সর্বশেষ আপডেট : ৩২ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৮ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জামালগঞ্জে কৃষকদের বিক্ষোভ অব্যাহত

unnamed (8)জামালগঞ্জ প্রতিনিধি:: জামালগঞ্জের মিনি পাকনা ও হালির হাওরের বাধ ভেঙ্গে ফসল ডুবিতে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো উপজেলায় কৃষকদের বিক্ষোভ অব্যাহত। উত্তাল হয়ে উঠেছে কৃষকরা। দুর্ভোগ বেরেই চলেছে বিক্ষোভ রত কৃষকদের চোখে মুখে অন্ধকারের চাপ লক্ষ করা যায়। গত দুইদিন থেকে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকেরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কে মিছিল অব্যাহত রেখেছে। বুধবার দুপুরে হালির হাওর পাড়ের কয়েক হাজার কৃষক পাউবো, পিআইসি ও সিন্ডিকেট ঠিকাদারদের শাস্তির দাবীতে মিছিল শেষে প্রায় ঘন্টাব্যাপী উপজেলা পরিষদ চত্তর ঘেরাও করে রাখে।

ফসল হারা বিক্ষোদ্ধ কৃষকরা পাউবোর দুর্নীতিবাজ, ঠিকাদার ও পিআইসিদের শাস্তির দাবীতে নানান শ্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠে উপজেলা পরিষদ চত্তর। অনাহার, অর্ধহারে, ঋণের জালে বন্ধি অনেক কৃষক সব হারিয়ে কন্নায় ভেঙ্গে পরেন। এসময় বিক্ষোদ্ধ কৃষকদেরকে শান্তনা দিতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মনিরুল হাসান তাদের কাছে এলে তারা কয়েক দফা দাবী তুলে ধরেন। দাবী গুলোর মধ্যে রয়েছে,জামালগঞ্জ উপজেলাকে দূর্গত এলাকা ঘোষনা করা,দুর্নীতিবাজ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতিনিধিদের সহায়তায় সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও পিআইসিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা। কৃষকদের কাছে সরকারি-বেসরকারি ও এনজিও সংস্থার নিকট হইতে ঋণ সহ সকল ঋণের কিস্তি বন্ধ ও সুদ মওকুফ করা। ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভেঙ্গে বাজার মূল্য স্থিতিশীল রাখা। ক্ষতিগ্রস্থ সকল ওর্য়াডে রেশনিং ব্যবস্থা চালু করা, ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ১০ টাকা কেজি মুল্যে চাল বিতরন করা। উপস্থিত কৃষকদের ঘেরাও কালে সমবেত কৃষকদের উদ্দ্যোশে বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইউসুফ আল আজাদ,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রশীদ আহমদ, উপজেলা আ:লীগের সাধারন সম্পাদক এম নবী হোসেন, মোবারক আলী,কামিনীপুরের কৃষক জাকির হোসেন প্রমুখ।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার মনিরুল হাসান কৃষকদের সকল দাবীর সাথে একাত্মতা পোষন করে বলেন, পাউবো সহ পিআইসিদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে। অচিরেই ক্ষতি গ্রস্থ কৃষক পরিবারের মধ্যে যাতে কম মুল্যে চাল বিতরন করার বিষয়টি উর্ধতন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হবে। প্রত্যেক বাজারে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে।

গত ৩ দিন ধরে বাজারে চাল-আটা সহ ভোগ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বাজারের দ্রব্যমুল্য নিয়ন্ত্রন রাখতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মনিরুল হাসান বিকেল ৩ টায় সাচনা-জামালগঞ্জের ব্যবসায়ীদের সাথে উপজেলা হল রুমে জরুরীভিত্তিতে বৈঠক করেন। বৈঠকে সকল ব্যবসায়ীকে সরকার নির্দেশীত নির্ধারিত মূল্য চাল-আটা, ময়দা সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিক্রয় করতে নির্দেশ দেন। তিনি সর্তক করে বলেন, কোন অবস্থাতেই অসহায়েত্বের সুযোগে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে সরকারী সিদ্ধান্তের অতিরিক্ত টাকায় পণ্য বিক্রয় করলে, তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা করা হবে। চালের মূল্য প্রতি বস্তা নি¤েœ ১৯০০ থেকে ২৩০০ টাকা মূল্যে বিক্রি করার নির্দেশ দেন। সেই সাথে প্রত্যেক ব্যবসায়ীর দোকানে মূল্য তালিকা ঝুলিয়ে রাখার পরার্মশ দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইউসুফ আল আজাদ, ভাইস চেয়ারম্যান রশিদ আহমদ, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী, খাদ্য পরিদর্শক অসীম কুমার দাস, ব্যবসায়ী চিত্ত রঞ্জন পাল, মনি লাল সরকার, প্রনয় রঞ্জন,আল উদ্দিন, বদর উদ্দিন, অমল দাস, প্রনয় রায়, রহমত আলী প্রমূখ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: