সর্বশেষ আপডেট : ২১ মিনিট ১৫ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২৫ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ভিজিডি কার্ড বরাদ্ধে ঘুষ দুর্নীতি

2.-daily-sylhet-666-2সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা:: সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ভিজিডি কার্ড বরাদ্ধ নিয়ে লঙ্কাকান্ড শুরু হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে চেয়ারম্যান,মহিলা সদস্যা ও মেম্বাররা গড়ে ৩ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে প্রকৃত সুবিধাভোগীদেরকে উপেক্ষা করে বিত্তবানদেরকে ভিজিডি কার্ড প্রদান করছেন। কার্ডদানের জন্য নগদ ঘুষ গ্রহনের পাশাপাশি স্বজনপ্রীতিরও আশ্রয় নিয়েছেন তারা। ভিজিডি সুবিধাবঞ্চিত কার্ড প্রত্যাশীরা এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগকারীরা হচ্ছেন ফতেহপুর ইউনিয়নের বাঘুয়া গ্রামের আশিক নূরের স্ত্রী হাফছা বেগম,নোয়াগাও গ্রামের মন্টু দাসের স্ত্রী শিতারানী দাস,দক্ষিণ কাদাঘাট ইউনিয়নের শ্রীধরপুর গ্রামের মৃত কলিম উদ্দিনের বিধবা স্ত্রী করিমুন্নেছা বেগম,ধনপুর ইউনিয়নের ধনপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের রজব আলীর স্ত্রী হামিদা বেগম,পলাশ ইউনিয়নের মুক্তিখলা গ্রামের আলাউদ্দিনের স্ত্রী পারভীন আক্তার,নতুনপাড়া গ্রামের নূর উদ্দিনের স্ত্রী রোকেয়া বেগম এবং সুলুকাবাদ ইউনিয়নের মাঝেরটেক গ্রামের আব্দুল ওয়াহাবের স্ত্রী জমিলা বেগম,আল আমিনের স্ত্রী খোদেজা বেগম,আনোয়ার মিয়ার স্ত্রী জুলেখা বেগম এবং ভাদেরটেক গ্রামের জহিরুল ইসলামের স্ত্রী মর্জিনা বেগম প্রমুখ।

অভিযোগে প্রকাশ, চেয়ারম্যান,মহিলা সদস্যা ও মেম্বারদের চাহিতো ৩ হাজার টাকা ঘুষের দাবী যারা পূরন করছেন তাদেরকেই কার্ড প্রদানের জন্য পরিষদের সভায় সিদ্বান্ত নিয়ে রেজ্যুলেশন করা হয়েছে। ভূক্তভোগীরা চাহিতো ঘুষের দাবী পূরনে সক্ষম না হওয়ায় তাদেরকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে উপেক্ষা করা হয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায়,অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না আক্তার ভিজিডি তালিকা চুড়ান্ত কার্যক্রম স্থগিত করেছেন। কোন পদ্ধতিতে সঠিক তালিকা প্রণয়ন করা যায় বা প্রণীত তালিকা যাছাই বাচাই করা যায় সে ব্যাপারে প্রশাসন চিন্তাভাবনা করছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন সাবেক চেয়ারম্যান মেম্বাররা উল্লেখ করেন,২৮ ডিসেম্বরের জেলা পরিষদ নির্বাচনে একাধিক চেয়ারম্যান সদস্যা ও মেম্বার প্রার্থীদের কাছ থেকে নগদ টাকা নিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান,মহিলা সদস্যা ও মেম্বারদের হলখম লম্বা হয়ে গেছে। যেকারনে এখন তারা টাকা বা ঘুষ ছাড়া কিছুই করছেনা।

এলাকাবাসী ঘুষখোর চেয়ারম্যান, সদস্যা ও মেম্বারদের তথাকথিত ভিজিডি তালিকা বাতিলপূর্বক প্রকৃত সুবিধাভোগীদের সঠিক তালিকা প্রণয়নের মাধ্যমে ভিজিডি কার্ড প্রদানের ব্যবস্থা ও তদন্ত সাপেক্ষে ঘুষ গ্রহীতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পাশাপাশি উপজেলা পরিষদের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: