সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ০ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২২ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

স্টয়নিসের কাছে শেখার আছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের

full_1241428770_1485777312খেলাধুলা ডেস্ক:: কে এই স্টয়নিস? যার কাছে বাংলাদশের ব্যাটসম্যানরা শিখতে পারেন। বাংলাদেশের খেলা প্রেমী মানুষের কাছে স্টয়নিস নামটা বেশি পরিচিত না হলেও। অদূর ভবিষ্যতে পরিচিত হয়ে উঠবে আশা করা যায়। অস্ট্রেলিয়ান মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মার্কাস স্টয়নিস। আলোচনায় এসেছেন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ম্যাচে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে।

নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২৮৭ রানের লক্ষ্যে একপর্যায়ে ৬৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল অস্ট্রেলিয়া। সাত নম্বরে ব্যাট করতে নেমে স্টয়নিস ১৪২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন। যদিও দলকে জেতাতে পারেননি। কিন্তু তার করা ১৪২ রানের পাশাপাশি আরো একটি কৃতিত্ব আলোচনায় নিয়ে এসেছে এই ব্যাটসম্যানকে। টেল টেল এন্ডারদের আড়াল করে দলকে এতদূর নিয়ে যাওয়া চারটিখানি কথা নয়।

এবার আসা যাক বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের শিখার কি রয়েছে? বাংলাদেশের শেষ দিকের ব্যাটিং বরাবরই সমালোচিত। ৬ থেকে ৭ উইকেট একটু তারাতারি পড়ে গেলে ম্যাচ বাচানো বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের জন্য কষ্টকর হয়ে দাড়ায়, ক্রিজে উপরের সারির কোন সেট ব্যাটসম্যান থাকা সত্তেও। যেমন বলা যেতে পারে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম টেস্টের কথা। সেই টেস্ট ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরেছিলো মাত্র ২২ রানে। যদিও সাব্বির রহমান অপরাজিত ছিলেন ৬৪ রানে। টেল এন্ডারদের ব্যর্থতা কিংবা নিচের দিকের ব্যাটসম্যানদের ঠিকমতো দিকনির্দেশনা দেওয়ার ক্ষেত্রে সাব্বিরের ব্যর্থতাতেই ম্যাচটা হারতে হয় বাংলাদেশকে।

স্টয়নিসের ‌১৪২ রান আসে সপ্তম, অষ্টম, নবম ও শেষ উইকেট জুটিতে জেমস ফকনার, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক ও জশ হ্যাজলউডকে নিয়ে ৮১, ৪৮, ৩০ ও ৫৪ রানের চারটি দারুণ জুটিতে। সবচেয়ে দুর্দান্ত দুটি জুটি হয়েছে নবম ও দশম উইকেটে। দলের শেষ দু্ই ব্যাটসম্যানকে নিয়ে যোগ করলেন ৮৪। সবচেয়ে অবাক করা ব্যাপার, এই দুই জুটিতে স্টার্ক ও হ্যাজলউড খেলেছেন মাত্র ৩ বল! কীভাবে টেল এন্ডারদের আড়াল করে খেলতে হয়, এর একটা ট্রেনিং ম্যানুয়াল হয়ে থাকল যেন এই ম্যাচ! প্রতি ওভারের শেষ বলে রান নিয়ে স্ট্রাইক নিজের কাছে রাখা। বাজে বলের জন্য অপেক্ষা করা। বাজের বলের পুরো সদ্ব্যবহার করে রান বাড়িয়ে নেওয়া।

চট্টগ্রাম টেস্টে ২৮৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ষষ্ঠ উইকেটে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে সাব্বিরের ৮৭ রানের জুটি প্রায় জয়ের পথেই নিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশকে। কিন্তু ৩৯ রানে মুশফিক আউট হয়ে যাওয়ার পর, বাংলাদেশের টেল এন্ডারদের ঠিকমতো ব্যবহার করতে পারেননি সাব্বির। নিজে ১০২ বল খেলে উইকেটে সেট হয়ে থাকলেও নিচের ব্যাটসম্যানদের আড়াল করে এগিয়ে যেতে পারেননি। ৭ম উইকেটে মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে ৩, কামরুল ইসলাম রাব্বীকে নিয়ে ৪ রানের বেশি তুলতে পারেননি। দ্রুত উইকেট পড়ে যাওয়ার পর প্রায় ফিকে হয়ে আসা জয়ের সম্ভাবনাটা জাগিয়েছিলেন তাইজুল ইসলামই। নবম উইকেটে সাব্বিরের সঙ্গে তাঁর জুটিটি ছিল ২৫ রানের। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই জুটিতে ১৬ রানই আসে তাইজুলের ব্যাট থেকে। সাব্বির করেন ৯। শুধু রান করা নয়, বলও বেশি খেলেছেন তাইজুল। ৫১ বলের জুটির ৩৩ বলই খেলেছেন তাইজুল!

এই জুটিও ভাঙল কীভাবে? ৮১তম ওভারের শেষ ওভার। স্ট্রাইকিং প্রান্তে তাইজুল। সবাইকে চমকে দিয়ে ওই বলে ১ রান নিয়ে নিলেন দুজনে! আবারও পরের ওভারে তাইজুল ফিরলেন স্ট্রাইকে! আর নতুন ওভারের প্রথম বলেই আউট তাইজুল! দুই বল পরে আউট শফিউল। ম্যাচটা বাংলাদেশ হারল ২২ রানে। অথচ সেই টেস্ট জিততে পারলে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজও জিততে পারত দল! টেল এন্ডারদের আড়াল করতে না-পারার এই দুর্বলতাটা সাব্বির দেখিয়েছেন গত নিউজিল্যান্ড সফরেও।

শুধু সাব্বিরের কথা বললে ভুল হবে। মিডল অর্ডারে এরকম অনেক ভালো ব্যাটসম্যান আছেন বাংলাদেশের, যারা টেল এন্ডারদের ঠিকমত নির্দেশনা দিতে পারলে হয়তো আরো বেশি জয়ের মুখ দেখতে পাবো আমরা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: