সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
সোমবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ বৈশাখ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পিঁপড়ার নেভিগেশন আবিষ্কার : অবাক বিজ্ঞানীরা

full_1229840143_1485351265আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: পিঁপড়া কিভাবে চলাচল করে? গবেষকরা বলছেন, বিজ্ঞানের যে পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে পিঁপড়ারা নেভিগেটিং করে বা পথ চিনতে পারে সেটা খুবই অভিনব।

তারা বলছেন, যে কোনো দিকেই মুখ করে থাকুক না কেন, পিঁপড়া কম্পাসের পথ ঠিকই অনুসরণ করতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, আকাশে সূর্যের অবস্থান কোথায় সেটা বিবেচনা করে পিঁপড়া সঠিক পথটাই বেছে নেয়। সূর্যের এই অবস্থানকে তারা মিলিয়ে নেয় তাদের আশেপাশের পরিবেশের সাথে। সেগুলো তারা স্মৃতিতে জমিয়ে রাখে। পরের বার পথ চলতে গিয়ে তারা এই স্মৃতিকে ব্যবহার করে।

ব্রিটেনে এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ফ্রান্সে প্যারিসের একটি প্রতিষ্ঠান সিএনআরএস যৌথভাবে এই গবেষণাটি চালিয়েছে।

একজন গবেষক ড. এন্টোয়েন ওয়াইসট্র্যাচ বলন, “গবেষণায় আমরা দেখেছি পিঁপড়ারা, তাদের শারীরিক অবস্থান যে দিকেই থাকুক না কেনো, চলাচলের গতিপথ থেকে তারা তাদেরকে আলাদা করে ফেলতে পারে।”

তিনি বলেন, শরীর সামনে বা পেছনে যেদিকেই থাকুক না কেনো, তারা যে দিকে যাচ্ছিলো সেই পথ ধরেই পিঁপড়া এগুতে পারে।

পিঁপড়ারা দল বেঁধে এক ঝাঁক হয়ে চলাচল করে। খাদ্যের সন্ধানে ছুঁটতে হয় তাদের। তারপর সেই খাবার নিয়ে যেতে হয় বাড়িতে। অনেক সময় পেছন দিকেও খাবার টেনে নিয়ে যেতে হয় লম্বা পথ। তখনও তারা পথ চিনতে ভুল করে না।

তিনি বলেন, “পিঁপড়া আকারে খুবই ছোট। আরো ছোট তাদের মস্তিষ্ক। একটা পিনের মাথার সমান। কিন্তু সেটা খুবই দারুণ এবং স্পর্শকাতর। তারা এমনভাবে গতিপথ নির্ধারণ করে যা আমরা চিন্তাও করতে পারি না। ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতি ও পরিবেশেও তারা আশেপাশের অবস্থা থেকে ঠিক মতো দিক চিনে, পথ চলতে পারে।”

তিনি বলেন, মস্তিষ্কের ভেতরে তারা এসব তথ্যের সমাবেশ ঘটিয়ে সেগুলো বিশ্লেষণের মাধ্যমে পথ নির্ণয় করে থাকে।

মরুভূমির পিঁপড়ার চলাচলের ওপর গবেষণা চালিয়ে ব্রিটিশ ও ফরাসী বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, আকাশ থেকে বিভিন্ন সূত্র সংগ্রহ করার মাধ্যমে পিঁপড়া সঠিক পথ বেঁছে নেয়। দেখা গেছে, আয়না ব্যবহার করে সূর্য সম্পর্কে যদি তাদেরকে ভুল বা অস্পষ্ট তথ্য দেওয়া হয় তখনই তারা ভুল পথে চলে যায়।

“যদি তারা পেছন দিকে যেতে থাকে, যেমন তারা খাবার টেনে তাদের বাড়িতে নিয়ে যায়, তখনও তারা আশেপাশে যা কিছু দেখতে পায়, তার সব তথ্য একত্রিত করে তারা দিক নির্ধারণ করে।”

তিনি বলেন, “কোন একটা জায়গায় গিয়ে তারা থেমে যায়, সেখানে খাবার জমা করে রাখে, তারপর আবার আগের পথে ফিরে আসে। এই পদ্ধতির সাথে একটি রোবটকে নির্দেশনা দানকারী ‘কম্পিউটার এলগরিদম’ তৈরির মিল আছে।”

বিজ্ঞানীরা বলছেন, পিঁপড়ার এই চলাফেরার প্রযুক্তি অনেকটা চালকবিহীন গাড়ির চলার মতো।

সূত্র: বিবিসি

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: