সর্বশেষ আপডেট : ২২ মিনিট ২ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২৬ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রথম সমাবর্তনে গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী পেলেন সিলেটের সৈয়দ হাবিবুল হক

Habibulমকিস মনসুর: ১৭ জানুয়ারী মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাগাঁও এ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠান।
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর মাননীয় চ্যান্সেলর মোঃ আব্দুল হামিদ।

সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

সমাবর্তন বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন এর মাননীয় চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান।
উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য হারুন-অর-রশিদ।

এছাড়া ও মন্ত্রীপরিষদ এর বিভিন্ন সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্য বৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ শিক্ষার্থীদেরকে কর্মজীবনে দেশ ও জাতির স্বার্থকে অগ্রাধিকার দেয়ার আহব্বান জানিয়েছেন। শিক্ষার্থীদেরকে মুক্তিযুদ্ধসহ বাঙালীর প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামের ইতিহাস জানার আহ্বান জানান। এ সময় রাষ্টপতি বলেন “প্রিয় স্নাতকবৃন্দ আজ আপনারা গ্র্যাজুয়েট, দেশের উচ্চতর মানব সম্পদ। আজকের এই সমাবর্তন যেমন আপনাদের আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বীকৃতি দিচ্ছে, ঠিক তেমনি আপনাদের উপর আমি দায়িত্ব অর্পন করছি। সেই দায়িত্ব পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের প্রতি।  মনে রাখতে হবে আপনাদের এই পর্যায়ে নিয়ে আসতে সমাজ রাষ্ট্রসহ দেশের খেটে খাওয়া মানুষের অবদান রয়েছে। কর্মের  জন্য আপনারা পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে থাকেন না কেন, এই দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে ভুলবে না। আপনাদের কর্ম জীবনে সফল হউ স্বার্থক হউক এই কামনা করি।”
উল্লেখ্য, ১৯৯২ সালের ২১ অক্টোবর  বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গাজীপুরে প্রতিষ্ঠিত হয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। এর অধিনে বর্তমানে ২ হাজার ১৫৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ২০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী রয়েছে। প্রায় দুই যুগ পর এবারই প্রথম জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় গ্র্যাজুয়েটদের সমাবর্তন আয়োজন করা হয়। ১৯৯৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন বিষয়ে উত্তির্ণ  লাখ লাখ  স্নাতক ও স্নাতকত্তোরদের মধ্যে ৪৯৩২ জন নিবন্ধনকৃত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। যাদের মধ্যে ৩১৩৭ জন ছাত্রী এবং ১৭৯৫ জন ছাত্র রয়েছে।
এদের মধ্যে সিলেটের জেলার ওসমানীনগর উপজেলার হলিমপুর গ্রামের সৈয়দ ফখরুল ইসলাম এর জ্যেষ্ঠ পুত্র এমসি কলেজের মেধাবী ছাত্র সৈয়দ হাবিবুল হক হচ্ছেন অন্যতম। তিনি ২০১০ সালে সিলেটের সব চাইতে পুরনো বিদ্যাপিট এমসি কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রী ও  ২০১৩ সালে একই কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করে এই সম্মাননা পান।
এছাড়াও  শিক্ষাজীবনে এফ.এম ম্যাথড থেকে স্পোকেন ইংলিশ, ব্রিটিশ কাউন্সিল থেকে আইএলটিএস সনদ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল থেকে ডিপ্লোমা ইন আইসিটি সনদ, এবং বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষাবোর্ড থেকে ডিপ্লোমা ইন প্যারামেডিক ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অধীনে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, বালাগঞ্জ এ কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার পদে কর্মরত আছেন।
নিজ গ্রামে ক্ষুদে ডাক্তার হিসাবে খ্যাত সৈয়দ হাবিব এর কাছে সমাবর্তন বিষয়ে অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি  বলেন “আমার দাদা ছিলেন সরকারী প্রাইমারী স্কুলের প্রধান শিক্ষক, আমার দুইজন চাচা ও ছিলেন প্রধান শিক্ষক, আবার বাবার স্বপ্ন ছিল আমি যেন আমাদের পরিবারের ঐতিহ্য ধরে রাখতে পারি সেই সুত্রে আমার এই পথচলা আমার এ পর্যন্ত সকল অর্জন আমি আমার বাবার নামে উৎস্বর্গ করে দিলাম। দোয়া করবেন আমি যেন আরো এগিয়ে যেতে পারি এবং দেশের জন্য, সমাজের জন্য ও পরিবারের জন্য কিছু করতে পারি।”

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: