সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ২৫ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

লক্ষ্যে পৌঁছাতে নিজেকে অনুপ্রাণিত করবেন যেভাবে

full_1208139408_1484130420লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: যে কোনো কাজে নিজেকে অনুপ্রাণিত করার কাজটি একটু কঠিনই বটে। তবে এমন কিছু কৌশল আছে যেগুলো অবলম্বন করে আপনি নিজেকে সব সময়ই অনুপ্রাণিত রাখতে পারেন। আজ সে রকমই কিছু কৌশল পাটকদের জন্য দেয়া হলো।

# নিজের সঙ্গে কথা বলা পট বদলে ফেলুন
কোনো কাজের পেছনের উদ্দেশ্য নিয়ে নিজেকে যা বলেন তার বদলে ফেলুন। যেমন, আপনি হয়তো এতদিন বিদ্যালয়ে ক্লাস করতে যাওয়ার পেছনে নিজেকে এই বুঝ দিতেন যে, ক্লাসে না গেলে বিদ্যালয় থেকে আপনাকে তাড়িয়ে দেয়া হবে বা পরীক্ষায় পাশ করতে পারবেন না। অথবা আপনি নিয়মিত ক্লাসে যাওয়ার কারণ হিসেবে নিজেকে এই বুঝ দেন যে এতে আপনি আপনার কর্মজীবনে সাফল্য লাভ করতে পারবেন। দ্বিতীয় বুঝটি আপনাকে আরো বেশি অনুপ্রেরণা যোগাবে এবং আপনি ভালো পারফর্ম করবেন।

# সমালোচনায় ভয় পাবেন না
সমালোচনায় ভয় না পেয়ে বরং তা আন্তরিকভাবে গ্রহণ করেন। এছাড়াও নিজের দুর্বলতাগুলো যথা সম্ভব কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করুন।

# নিজেকে অন্যদের সঙ্গে তুলনা বন্ধ করুন
নিজেকে অন্যদের সঙ্গে তুলনা করলে আপনার আত্মবিশ্বাস নষ্ট হবে। আপনার অগ্রগতির সক্ষমতা কমে যাবে। কারণ অন্যদের সাফল্য দেখে আপনি হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়বেন।

# নিজের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য বুঝুন
আপনি কীসের জন্য কাজ করছেন তা বুঝার চেষ্টা করুন। আপনি যদি তা না জানেন তাহলে তা সৃষ্টি করুন।

# প্রতিদিনের কাজ ডায়রিতে লিখুন
আপনার প্রতিদিনের অগ্রগতির রেকর্ড রাখুন। গবেষণায় দেখা গেছে, দিনশেষে নিজের কাজের অগ্রগতি দেখে লোকে আরো বেশি অনুপ্রাণিত হন এবং কঠোর পরিশ্রম করেন।

# কোথায় শুরু করেছেন তা মনে রাখুন
প্রতিদিনের কাজের ডায়রি রাখতে শুরু করার কোনো একটি কাজ কয়েক সপ্তাহ বা মাস খানেক আগে কোথা শুরু করেছেন তা পুনরায় দেখুন। এতে আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়বে যে, আপনি দীর্ঘ কাজ করতে সক্ষম।

# কাজ বন্ধ করার নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করুন
অনেক সময় কোনো কাজ শেষ করার জন্য আপনার হয়তো মনে হতে পারে যতটা সম্ভব বেশি পরিশ্রম করতে হবে। কিন্তু হিতে বিপরীত হতে পারে। তার চেয়ে বরং প্রতিদিনের কাজের একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা নির্ধারণ করে নিন এবং বিরতি নিন। আর নয়তো কাজের উদ্যম হারাবেন।

# স্মার্ট লোকদের সঙ্গে সময় কাটান
নিজের চেয়ে বেশি বুদ্ধিমান এবং বেশি জ্ঞানী লোকদের সঙ্গে সময় কাটালে আপনি নিজের দুর্বলতাগুলো কী তা বুঝতে পারবেন এবং সেগুলো কাটিয়ে ওঠার উপায়ও জানতে পারবেন।

# অভ্যাসের ওপর নির্ভর করুন
নিজের আকাঙ্খিত আচরণগুলোকে অভ্যাস পরিণত করুন। তাহলে সাফল্য অর্জন সহজ হবে। যেমন, আপনার যদি পড়তে ভালো লাগে। তাহলে প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় ধরে পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

# সমস্যাগুলো আগে থেকেই আন্দাজ করুন
আপনি যদি কোনো সমস্যা মোকাবিলার জন্য আগে থেকেই প্রস্তুত থাকেন তাহলে সে সমস্যা আসলে আপনি সহজেই এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি ভাবেন কোনো সমস্যাই আসবেনা তাহলে বিপদে পড়ে যাবেন।

# প্রক্রিয়ার ওপর মনোযোগ দিন
আপনি হয়তো আগেও শুনেছেন: জীবন হলো একটি অভিজ্ঞতামূলক সফরের মতো, কোনো গন্তব্য নয়। কিন্তু আপনি যদি জীবনের কোনো চুড়ান্ত গন্তব্যের ওপর মনোযোগ কেন্দ্রীভুত না করে বরং এই অভিজ্ঞতামূলক সফরের ওপর মনোযোগ দেন তাহলেই আপনি জীবনটাকে আরো বেশি উপভোগ করতে পারবেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: