সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হ্যাকিংকে যুদ্ধের নতুন অস্ত্র বানাচ্ছে রাশিয়া

1484018838আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: রাশিয়ার সেনাবাহিনী যুদ্ধকে নতুন করে সংজ্ঞায়িত করছেন। তারা ভারী ভারী সামরিক অস্ত্রের সাজসজ্জার চেয়ে সাইবার হামলাকে আরো বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। রুশ সেনাবাহিনী মনে করে সরাসরি যুদ্ধের চেয়ে সাইবার হামলা আরো বেশি কিছু। রাশিয়ার বিখ্যাত কম্পিউটার প্রোগ্রামার আলেকসান্দার বি ভিয়ারিয়ার বরাত দিয়ে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত হয়েছে। গত ২৯ ডিসেম্বর জনপ্রিয় প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যমটির মস্কো প্রতিনিধি অ্যান্ড্রিউ কেইমার প্রতিবেদনটি লেখেন।

আলেকসান্দার বি ভিয়ারিয়া মনে করতেন তার কাজ সাইবার হামলা থেকে মানুষকে রক্ষা করা। এই ধারণা ততক্ষণ ছিল যতক্ষন না রুশ সেনাবাহিনীতে তাকে যোগ দেওয়ার আহবান জানানো হয়। গত বছর হঠাত্ করেই তাকে রুশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার অনুরোধ করা হয়। তার কাজ সাইবার হামলা চালানো। কিন্তু নিজের নীতির সঙ্গে না মেলায় তিনি ওই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন। যদিও তার মধ্যে আতঙ্ক ছিল যে এর পরিণতি ভাল হবে না। তাই তিনি ফিনল্যান্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করেন এবং সেখানে পালিয়ে যান।

আলেকসান্দার বি ভিয়ারিয়া জানান, রুশ জেনারেলরা অস্ত্র আর গানপাউডার দিয়ে যুদ্ধের চেয়ে সাইবার হামলাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। এতে রুশ স্বার্থ বেশি রক্ষিত হবে বলে তাদের ধারণা। রাশিয়ায় সাইবার যুদ্ধের বিষয়টি সম্পূর্ণ গোপন থাকে। তবে সামপ্রতিক বছরে অনেকটা প্রকাশ্যেই সাইবার হামলা চালাতে হ্যাকারদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। দক্ষ হ্যাকারদের একটি বড় দল গড়ে তুলতে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে অপরাধীদেরও নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। গত তিন বছরের বেশি সময় ধরে রুশ সরকার বাংকারে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকা সামরিক কর্মকর্তাদের ওপর নির্ভর না করে কম্পিউটার প্রোগ্রামারদের নিয়োগ দিচ্ছে। এজন্য দেশটির সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক কনতাকতেও বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে। বিজ্ঞাপনে দক্ষ প্রোগ্রামারদের নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার প্রস্তাবও দেওয়া হয়। দক্ষ প্রোগ্রামারদের সামরিক বাহিনীর নতুন ইউনিট সায়েন্স স্কোয়াড্রনে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী গত বছর সের্গেই কে. শোইগু বলেছিলেন, তারা প্রোগ্রামারদের খুঁজছেন। দেশটিতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সামরিক বাহিনীতে যোগদান বাধ্যতামূলক। সাইবার অপরাধ জগতে যাদের বিচরণ আছে তাদেরও নিয়োগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়।

সাইবার নিরাপত্তা কোম্পানি ক্রাউডস্ট্রাইকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং মুখ্য প্রযুক্তি কর্মকর্তা দিমিত্রি আলপেরোভিচ বলেন, এমন ঘটনাও আছে যে কোনো সাইবার অপরাধী হয়তো গ্রেপ্তার হয়েছেন, কিন্তু কখনোই তার কারাজীবন শেষ হয়নি। এই কোম্পানিটিই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কমিটির কম্পিউটারে সাইবার হামলাকারী ফ্যান্সি বিয়ারকে শনাক্ত করে।

২০১২ সালে প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে সের্গেই কে. শোইগু নিয়োগ পাওয়ার পরই রাশিয়ায় সাইবার যুদ্ধের বিষয়টি গুরুত্ব পায়। পরের বছর সিনিয়র প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জেনারেল ভ্যালেরি ভি জেরাসিমভ একটি মতবাদ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করেন যা জেরাসিমভ মতবাদ নামে পরিচিতি পায়। ওই মতবাদে তিনি বলেন, আজকের বিশ্বে যুদ্ধ এবং শান্তির সীমারেখা ঝাপসা হয়ে গেছে। গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে গোপন কৌশল। তিনি এই পদ্ধতিকে ‘অরৈখিক যুদ্ধ’ বলে আখ্যায়িত করেন। তবে তার সমালোচকরা এই পদ্ধতিকে বলেন, ‘গেরিলা ভূ-রাজনীতি’।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: