সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

KIN শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণ কর্মসূচী’১৬ সম্পন্ন

54ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: কথায় আছে,‘কারো পৌষ মাস,কারো সর্বনাশ’। হ্যাঁ,প্রবাদটি স্মরণ করার সময় এসেছে। কারণ প্রকৃতিতে এসেছে শীতের আগমনী বার্তা। তবে পার্থক্য শুধু এতটুকু,সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের কাছে আগমনটা একই রকম নয়।সমাজের উঁচুশ্রেণীর মানুষের কাছে এটি পৌষমাস!! তাদের কাছে এটি উপভোগের ঋতু,উৎসবের ঋতু-যে উৎসবের একটা অংশ জুড়ে থাকে হরেক রকমের পিঠাপুলি,খেজুর রস আর পায়েস খাওয়ার ধুম।

কিন্তু আমাদের সমাজের একটা বিরাট অংশ জুড়ে রয়েছে নিম্নবিত্ত শ্রেণী-যাদের কাছে ‘শীতকাল’ এক বিভীষিকার নাম।তাদের জীবন-মরণ সমস্যা আর সর্বনাশের নাম।সমস্যার কারণ হল,বছরের অন্য সময়গুলোতে তাদের পরিধেয় কাপড় নিয়ে তেমন চিন্তা করতে না হলেও শীতকালে করতে হয়।শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচার জন্যে এসময় তাদের দরকার হয় গরম কাপড়ের।‘দিন আনা দিন খাওয়া’ এসব মানুষের ‘শীতের প্রকোপ’ থেকে বাঁচার জন্যে ‘গরম কাপড়’কেনার মত কোন সামর্থ্য থাকে না।বৃদ্ধ,শিশুসহ সকল বয়সের মানুষের জন্যে এটি একটি বিরাট সমস্যা।কোন কোন অঞ্চলে শীতের প্রকোপ অনেক বেশী হয়।

পর্যাপ্ত শীতের কাপড়ের অভাবে প্রতিবছর এসময় অনেক শিশু ঠাণ্ডাজনিত রোগে ভোগে এবং অনেক বৃদ্ধ ও শিশু মারা যায়।z5

এসব অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্যে,তাদেরকে সাহায্য করার KIN প্রতি বছরের মত এবছরেও আয়োজন করে “KIN শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণ কর্মসূচী’১৬”। KIN শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেটের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। KIN তার যে ৫ টি মূলনীতির ভিত্তিতে কাজ করে তার মধ্যে শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণ কর্মসূচী অন্যতম একটি।

গত ২০ নভেম্বর,২০১৬ ইং থেকে ১০ ডিসেম্বর,২০১৬ ইং পর্যন্ত চলে ‘শীতবস্ত্র সংগ্রহ কর্মসূচী’। শাবিপ্রবির সকল আবাসিক ছাত্র/ছাত্রী হল,টিচার্স কোয়ার্টার,বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আবাসিক এলাকা,সুরমা আবাসিক এলাকা,মদিনা মার্কেট,পল্লবী,বাগবাড়ী, সুবিদ বাজার, আম্বরখানা,চৌকিদেখি ও ঈদগাহ সংলগ্ন আবাসিক এলাকা ও মেস থেকে এসময় শীতবস্ত্র এবং
আর্থিক সহায়তা সংগ্রহ করা হয়।

এসব সংগ্রহীত শীতের কাপড় ও প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে কেনা কম্বল বিতরণ করা হয় গত ৭ জানুয়ারি,১৭ ইং রোজ শনিবার।সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার খাগাউরা গ্রামে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।এসময় ১৭৫ টি কম্বল,৯০৫ টি গরম কাপড় এবং শার্ট,টিশার্ট,প্যান্ট,থ্রিপিস সহ মোট ১২৯৮ টি শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।এর আগে গত ২৮ ডিসেম্বর,১৬ ইং তারিখে রেলওয়ে স্টেশন ও মাজারে ৬০ জনকে শীতবস্ত্র দেওয়া হয়। এছাড়াও গত ২১ ডিসেম্বর,১৬ ইং তারিখে স্কুলের ১১৮ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

KIN এর সভাপতি হোসেন আহমেদ নিশান জানান,”দুস্থ,অসহায় মানুষদেরকে শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচানোর জন্যে,তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্যে প্রতি বছরেই KIN ‘শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণ কর্মসূচী’ আয়োজন করে।’আত্মার কাছে দায়বদ্ধতায় হাতে রাখি হাত’- এই মূলমন্ত্রকে সামনে রেখেই এধরণের কর্মসূচী আয়োজন করা হয় বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: