সর্বশেষ আপডেট : ৪৩ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ বৈশাখ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এমপি লিটন হত্যা: তদন্তের তীর পরিবার ও সহোচরদের দিকে

1483616995নিউজ ডেস্ক:: গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনের দুর্বৃত্তদের ছোড়া গুলিতে নিহত সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে তদন্তকারীদের সন্দেহের তীর এখন পরিবার ও তার দলীয় সহোচরদের দিকে।

গত ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমপি লিটন নিহত হওয়ার পর র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি, পিবিআইসহ দেশের সর্বোচ্চ পর্যায়ের গোয়েন্দারা হত্যাকাণ্ডের মূল ক্লু উদঘাটনের জন্য রাত দিন একাকার করে চষে বেড়াচ্ছেন। দীর্ঘ ৬ দিন থেকে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও আসামি গ্রেফতারে মরিয়া আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা ও সদস্যরা বিভিন্ন পর্যায়ের ৪০ জনকে আটক ও জিজ্ঞাসাবাদ করে জেল হাজতে প্রেরণ করলেও হত্যাকাণ্ডের মূল রহস্য অন্ধকারেই থেকে যাওয়াই তাদের তীর এখন পরিবার ও দলীয় সহোচরদের দিকে।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তারা নিহত এমপির বড় শ্যালোক সৈয়দ বেদারুল আহসান বেতার, কাজের লোক ইসমাইল হোসেন, ইউসুফ, সৌমিত্র, গাড়ি চালক ফোরকান আকন্দ, এমপির সহধর্মিনী সৈয়দা খুরশিদ জাহান স্মৃতি, চাচি শামীম আরাসহ ১৩ জনকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এমপি লিটনের সার্বক্ষণিক রাজনৈতিক সহোচর ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক শহিদুল ইসলামকে র‌্যাব আটক করেন। আটকের বিষয়টি র‌্যাবের এডি এএসপি হাবিবুর রহমান নিশ্চিত করে জানান, শহিদুল ইসলাম এমপি লিটনের সার্বক্ষণিক রাজনৈতিক সহোচর হওয়ায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

এদিকে এলাকায় গুঞ্জন উঠেছে এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের আগের দিন ৩০ ডিসেম্বর তার বাড়িতে কর্মরত ১২/১৩ জন কাজের লোক ছুটিতে যাওয়ার পিছনের কারণ প্রশ্নবিদ্ধ। দীর্ঘ ৬ দিনেও এমপি লিটনের প্রকৃত খুনিদের গ্রেফতার করতে না পারায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলাবলি করছেন এমপি লিটনের সাথে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বকারীদের বিষয়ে তদন্তকারীদেরও খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। মামলার বাদী ফাহিমা বুলবুল কাকলী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমার ভাই এমপি লিটনকে যারা খুন করেছে তারা এখনো গ্রেফতার না হওয়ায় আমি বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছি।

পুলিশ সুপার আশরাফুল ইসলাম জানান, পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা বিভাগ, পুলিশের বিশেয়ায়িত তদন্ত দল এই খুনের প্রকৃত রহস্য উদঘাটনসহ খুনিদের গ্রেফতারে ব্যাপক তত্পরতা শুরু করেছে। অতিসত্ত্বর খুনের প্রকৃত তথ্য জানা যাবে এবং দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে।

এ নিয়ে থানার ওসি আতিয়ার রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, এমপি লিটনের হত্যাকাণ্ডের মূল রহস্য উদঘাটন ও আসামি গ্রেফতার এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। অচিরেই প্রকৃত খুনিরা গ্রেফতার হবে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবু হায়দার মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান জানান, অনেক তথ্য-উপাত্ত আমরা পেয়েছি। অপেক্ষা করুন সবকিছু দেখতে ও জানতে পারবেন।

প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন অব্যাহত
এমপি লিটনের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে উপজেলার সর্বত্রই প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার উপজেলার ধুবনী কঞ্চিবাড়ি হাইস্কুল মাঠে ৮ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠন প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে। আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন সভাপতি গোলাম রব্বানীর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, রাজু মিয়া, ফজলার রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান, ডাক্তার শফিউল আলম, স্বপন কুমার, ওসমান গণি প্রমুখ।

বক্তরা অভিলম্বে প্রকৃত খুনিদের গ্রেফতার পূর্বক শাস্তির দাবি জানান। এছাড়াও সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠন এমপি লিটনের নৃসংশ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ও খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে ইউপি চেয়ারম্যান বদিরুল আহসান সেলিমের নেতৃত্বে প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছেন।

fakhrul_islam

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: