সর্বশেষ আপডেট : ২৯ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ বৈশাখ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বাংলাদেশে আবারও ইন্টারনেটের দাম কমছে

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক ::
বাংলাদেশ পাইকারি পর্যায়ে ইন্টারনেটের দাম আবারও কমছে। প্রতি এমবিপিএস (মেগা বিট প্রতি সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথের দাম শতকরা ১০ শতাংশ অর্থাৎ ৬২৫ টাকা থেকে কমিয়ে ৫৬৩ টাকা করা হচ্ছে। দাম কমানোর প্রস্তাব শিগগিরই অনুমোদনের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে পাঠাবে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)। তবে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেটের দাম কমার কোনো সম্ভাবনা নেই। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিএসসিসিএল সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে ন্যূনতম ১০ জিবিপিএস কিনলে সর্বনিম্ন দামে অর্থাৎ ৬২৫ টাকায় বিএসসিসিএলের ব্যান্ডউইথ কেনা যায়। এ ছাড়া ৫০ থেকে ৯৯৯ এমবিপিএস ব্যান্ডউইথ ৯০০ টাকা, ১ হাজার থেকে ২ হাজার ৪৯৯ এমবিপিএস ৮২৫ টাকা, ২ হাজার ৫০০ থেকে ৪ হাজার ৯৯৯ এমবিপিএস ৭৫৫ টাকা, ৫ হাজার থেকে ৯ হাজার ৯৯৯ এমবিপিএস ব্যান্ডউইথ ৬৮০ টাকায় বিক্রি করে বিএসসিসিএল। অর্থাৎ ব্যান্ডউইথ বেশি কিনলে দাম আনুপাতিকভাবে কমে। কম কিনলে বেশি দামেই কিনতে হবে পাইকার ব্যবসায়ীদের।

বেশির ভাগ আইআইজি বিএসসিসিএলের সর্বনিম্ন দরের ব্যান্ডউইথ কিনতে পারে না। আবার আইটিসি, আইআইজি, আইএসপি প্রতিটি স্তরে সরকারের সঙ্গে ১০ শতাংশ রাজস্ব ভাগাভাগি করতে হয়। এরপর মূসক ও নিজেদের লাভের হিসাব রয়েছে। তাই বিএসসিসিএলের দামের চেয়ে বেশি মূল্যে আইএসপির কাছে ব্যান্ডউইথ বিক্রি করে আইআইজিগুলো। ফলে ব্যান্ডউইথের এ দাম কমানোর ফলে গ্রাহকরা খুব একটা লাভবান হবেন না।

আইএসপিগুলো বিএসসিসিএল বা আইটিসির কাছে সরাসরি ব্যান্ডউইথ কিনতে পারে না। তাদের ব্যান্ডউইথ কিনতে হয় আন্তর্জাতিক ইন্টারনেট গেটওয়ে অপারেটর (আইআইজি) থেকে। আইআইজির কাছ থেকে কেনা ব্যান্ডউইথের সঙ্গে যোগ হয় এনটিটিএন অপারেটরের অবকাঠামো ভাড়া, মূল্য সংযোজন কর (মূসক), পরিচালন ব্যয় ও সরকারের সঙ্গে রাজস্ব ভাগাভাগির খরচ। সব খরচ যোগ করে কয়েক হাত ঘুরে বর্তমান দামের চেয়ে কম দামে গ্রাহকের কাছে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া সম্ভব নয়।

বাংলাদেশে বর্তমানে দৈনিক ৩৫০ থেকে ৪০০ জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের চাহিদা রয়েছে। বিএসসিসিএলের বাইরে বাকি ২০০ থেকে ২৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথের জোগান আসে ইন্টারনেট ট্রান্সমিশন কোম্পানির (আইটিসি) মাধ্যমে। আইটিসি প্রতিষ্ঠানগুলো ভারত থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানি করে।

সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের দাম কমিয়েছিল বিএসসিসিএল। তখন প্রতি এমবিপিএস ব্যান্ডউইথের দাম ১ হাজার ৬৮ থেকে কমিয়ে ৬২৫ টাকা করা হয়। দাম কমানোর পরে গত দুই বছরে বিএসসিসিএলের ব্যান্ডউইথের বিক্রি ৪০ জিবিপিএস থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ১৭৬ জিবিপিএস হয়েছে। অর্থাৎ দুই বছরে প্রতিষ্ঠানটির ব্যান্ডউইথ ব্যবহার বেড়েছে চার গুণের বেশি।

বিএসসিসিএল সূত্রে জানা গেছে, প্রথম সাবমেরিন কেবলের (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৪) মাধ্যমে পাওয়া ২০০ জিবিপিএসের ব্যান্ডউইথের ব্যবহার আরও বাড়াতে দাম কমিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে বিএসসিসিএল এখন ১৭৬ জিবিপিএস (গিগা বিট প্রতি সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথ বিক্রি করছে। এর মধ্যে ভারতে রপ্তানি হচ্ছে ১০ জিবিপিএস। এ ছাড়া দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৫) মাধ্যমে আরও ১ হাজার ৪০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ এ বছর পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ যেমন আমদানি করছে আবার রফতানিও করছে প্রতিবেশি দেশ ভারতে। এর পরের ধাপে বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ যাবে ভুটানে। এছাড়া পাইপলাইনে রয়েছে মায়ানমার, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ইতালিসহ আরও কয়েকটি দেশ। বাংলাদেশের কাছে থাকা অতিরিক্ত ব্যান্ডউইথ অন্যান্য দেশে বিক্রি করার জন্য নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে পরে কোথায় বা কবে কোন কোন দেশকে ব্যান্ডউইথ দেওয়া হচ্ছে সে ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে এখনও স্পষ্ট কোনো বক্তব্য দেওয়া হয়নি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: