সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ২৫ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কেবল জনগণই আমাকে বহিষ্কার করতে পারে —— আরিফ

1483537305নিজস্ব প্রতিবেদক ::
আমাকে জনগণ ভোট দিয়ে মেয়র বানিয়েছে। আমাকে কেবল জনগণই বহিষ্কার করতে পারে। সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের নানা প্রশ্নের জবাব দিচ্ছিলেন।

দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়া শেষে গতকাল উচ্চ আদালতের আদেশে মুক্তি পান বিএনপির এই নেতা। দুই বছর পর কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে বুধবার সন্ধ্যায় কুমাড়পাড়ায় নিজ বাসায় ফেরেন আরিফ। বাসায় ঢুকেই আরিফুল হক নিজের মেয়েক জড়িয়ে ধরেন। এসময় পরিবারের অন্য সদস্যরাও এগিয়ে আসেন। এরপর আরিফ যান পাশের কক্ষে। যেখানে অপেক্ষায় ছিলেন তার মা। সে কক্ষে ঢুকে আরিফ পায়ের পায়ে ধরে সালাম করেন। এসময় ছেলে বুকে টেনে নেন মা আমিনা খাতুন।

আরিফ বলেন, “আমার মা অসুস্থ, আমি নিজেও অসুস্থ। সকলের সহযোগিতা ও ভালোবাসায় আমি মুক্তি পেয়েছি। আমাকে আদালত এসব বিবেচনায় নিয়ে জামিন প্রদান করেছেন।”

সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলার এজাহারভূক্ত আসামি হিসেবে ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর হবিগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করেন আরিফ। ওইদিন আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

দুই বছর পর চারটি মামলায় জামিন পেয়ে বুধবার সন্ধ্যায় কারামুক্ত হন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এর আগে মায়ের অসুস্থতার কারণে কিছুদিন প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়েছিল আরিফুলকে।

বুধবার সিলেটের জেলা ও দায়রা জজ মনির আহমদ পাটেয়ারীর আদালতে আরিফুল হক চৌধুরীকে হাজির করা হয়। এ সময় আসামিপক্ষ আদালতে আরিফের জামিনের কাগজপত্র প্রদর্শন করেন। আদালতও মুক্তিতে সম্মতি জানান।

২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজারে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভা শেষে ফেরার পথে গ্রেনেড হামলায় নিহত হন সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়াসহ পাঁচজন। এ ঘটনায় হত্যা এবং বিস্ফোরক আইনে পৃথক দুইটি মামলা করা হয়। ২০১৪ সালের গত ২১ ডিসেম্বর আরিফুল হক চৌধুরী, জি কে গউছ এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১১ জনকে অভিযুক্ত করে হবিগঞ্জে আদালতে সম্পূরক চার্জশিট দেয় সিআইডি পুলিশ।

২০০৪ সালের ২১ জুন সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের জনসভায় বোমা হামলা হলে এক যুবলীগকর্মী নিহত হন। দুটি মামলাতে আসামি করা হয়েছে আরিফুলকে। এ মামলার কারণে স্থানীয় সরকার ও সমবামন্ত্রণালয় ২০১৬ সালের শুরুর দিকে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: