সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ২৫ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে ছেলের হাতে মা খুন

2-daily-sylhet-khun-newsকমলগঞ্জ সংবাদদতাতা:: প্রতিবেশীর দেয়া অপবাদ সইতে না পেরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানে ছেলে তার মা নারী চা শ্রমিককে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে। এলাকাবাসী ঘাতক ছেলেকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। রোববার (১ জানুয়ারী) বেলা দেড়টায় শমমেরনগর চা বাগানের রবিদাস টিলা বস্তিতে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, নারী চা শ্রমিক ফুল কুমারী রবিদাস(৪৮)-এর দুই ছেলে ও দুই মেয়ের মাছে চন্দন রবিদাস বড় ছেলে। বছর খানেক আগে তাকে বিয়ে করিয়ে বাবা সরমজিৎ রবিদাসের নাম বদল করে চা বাগানের নিয়মিত শ্রমিক হিসাবে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়। কয়েক দিন ধরে ছেলে চন্দন রবিদাসের মনোভাব ভাল যাচ্ছিল না বলে পারিবারিকভাবে তাকে একজন কবিরাজ দেখানো হয়েছে। ছেলের একটি কথা প্রতিবেশী ও পাশের শ্রমিক বস্তির লোকজন তার উপর মিথ্যে অভিযোগ তুলে অপপ্রচার চালাচ্ছে সে নাকি তার মাকে নিয়ে একই বিছানায় থাকে। এ অপবাদ নিয়ে মায়ের সাথে তার বিরোধ চলছিল। রোববার বেলা দেড়টায় এসব বিষয়ে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে মায়ের বুকে ছুরিকাঘাত করলে ঘটনাস্থলেই মারা যান মা। পরে এলাকাবাসী ঘাতক ছেলেকে আটক করে শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়িতে সোপর্দ করেন।

শমশেরনগর চা বাগানের ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ইয়াকুব মিয়া বলেন, ধারনা করা হচ্ছে ছেলে মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত হয়ে এ কাজটি করেছে। শমশেরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক সৈয়দ নাসির উদ্দীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক ছেলেও অপবাদের কথা বলেছে। তাছাড়া এলাকার বিভিন্ন সূত্রে এ অপবাদের কথা উঠেছে। লাশের সুরতহাল তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: