সর্বশেষ আপডেট : ২১ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রাত পোহালেই সিলেট বিভাগে ভোটের লড়াই…

1-daily-sylhet-0-7নিজস্ব প্রতিবেদক:: রাত পোহালেই জেলা পরিষদ নির্বাচন। সারাদেশের মত প্রথমবারের মতো সিলেট বিভাগের চার জেলায় হবে ভোটের লড়াই। চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত সদস্য ও সাধারণ সদস্য পদে লড়বেন ৪৪৩ জন প্রার্থী। ক্লান্তিহীন প্রচারণা শেষে এ নির্বাচনে শেষ মুহূর্তে এই প্রায় সাড়ে চারশো প্রার্থী নির্বাচিত হবেন মাত্র ৮৪ জন।

গত সোমবার রাত ১২টা থেকে সব ধরনের প্রচার প্রচারনা বন্ধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। প্রতিটি কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপার, প্যাড, সিল, কালিসহ সব রকমের সরঞ্জাম।প্রতিটি কেন্দ্রে মোতায়েন করা হয়েছে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী । সব ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে রাত থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা টহল দিচ্ছেন।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার রাখতে বিভিন্ন স্থানে বসানো হয়েছে একাধিক চেকপোস্ট। প্রার্থীরাও শেষ সময়ে কৌশলে তাদের মোবাইল সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে নানা অবলম্বনে ভোট প্রার্থনা করেছেন।অভিযোগ আছে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকায় শেষ মুহূর্তে নির্বাচনী হাওয়া অনুকূলে আনতে বাতাসে উড়তে শুরু করেছে টাকা। প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে অত্যন্ত নীরবে এবং কৌশলে টাকা বিতরণ করা হচ্ছে ভোটারদের মাঝে। বিভাগের চার জেলার মধ্যে সিলেট জেলায় ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১২৯ জন, সুনামগঞ্জে ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১শ’ জন, মৌলভীবাজারে ছয়জন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১১৪ জন এবং হবিগঞ্জে সংরক্ষিত সদস্য (নারী) এবং সাধারণ সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১শ’ জন প্রার্থী।

সিলেট জেলা :
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আজিজুল ইসলাম জানিয়েছেন, সিলেট জেলার ১৫টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে। নির্বাচন নির্বিঘ্ন করতে প্রত্যেক ভোটকেন্দ্রে ১ জন করে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুরো জেলায় আরো চারজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। ভোটকেন্দ্রে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি এবং আনসারের বিপুল সংখ্যক সদস্য থাকবেন। সব মিলিয়ে নির্বাচন সফল করতে সব প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।
এদিকে চেয়ারম্যান পদে সিলেটে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

তারা হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, ড. এনামুল হক সরদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন লালা ও ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলাম সুহেল। তবে ধারনা করা হচ্ছে শেষ পর্যন্ত সিলেট জেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়াই হবে দ্বিমুখী।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান ও শিক্ষাবিদ ড. এনামুল হক সরদারের মধ্যে একজনকেই শেষ পর্যন্ত বেছে নেবেন ভোটাররা। তবে খুব বেশি পিছিয়ে নেই জিয়া উদিন লালা আহমেদ। শেষ মূহূর্তে চমক দেখাতে পারেন তিনি ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: