সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২৬ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রাবি ক্রপ সায়েন্স বিভাগের সভাপতির পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষকদের আল্টিমেটাম

download-3রাবি প্রতিনিধি:: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি (সিএসটি) বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মো. মোসলেহ উদ্দীন’র পদত্যাগের দাবি জানিয়ে ২ জানুয়ারী পর্যন্ত আল্টিমেটাম দিয়েছে বিভাগের দুই-তৃতীয়াংশের অধিক শিক্ষকবৃন্দ এবং প্রতিকী কর্মবিরতি (আগামি ২৮ ডিসেম্বর ২ ঘন্টা এবং আগামি ২ জানুয়ারি ৩ ঘন্টা) ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যও পদত্যাগ না করলে আরো বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে, এছাড়াও এ সভাপতি থাকাকালীন আন্দোলনরত শিক্ষকরা কোন প্রকার একাডেমিক ও প্লানিং মিটিং করবেন না বলে জানিয়েছেন।

অভিযোগকারী শিক্ষকগণ জানান, কৃষিবিদ ও অকৃষিবিদ প্রসঙ্গ টেনে বিভাগের শিক্ষকবৃন্দের মধ্য দীর্ঘদিনের সুসম্পর্ক নষ্ট করার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তোলা হয়েছে বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. মোসলেহ উদ্দীন এর বিরুদ্ধে। বিভাগের অন্য শিক্ষকদের সাথে গালমন্দ করা সহ দুরব্যবহার করার অভিযোগ আছে। এছাড়াও অভিযোগ আছে, বিভাগের শিক্ষার্থীদের একাডেমিক পরীক্ষার তার পরীক্ষিত খাতাগুলোর প্রায় অর্ধেক খাতা তৃতীয় পরিক্ষক দ্বারা পরীক্ষিত করতে হয়। একাডেমিক কমিটির অনুমোদন ছাড়া শিক্ষার্থীদের একটি ব্যাচকে ব্যক্তিগত ট্যুরে নিয়ে গিয়ে বিভাগের অনেক টাকা অবৈধভাবে খরচ করেছেন এমনকি শিক্ষার্থীদের কাছে ‘ব্যাক্তি হিসাবে মোসলেহ উদ্দীন কেমন?’ এ বিষয়ে একটি এসাইনমেন্ট দেন। এ এসাইনমেন্টের উপর শিক্ষার্থীদের তার প্রতি এককভাবে আনুগত্য যাচাই করে মূল্যয়ন করাসহ শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকবেন বলে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন। নিজের চেম্বারে এসি লাগানো সহ হাইডেকোরেশন করেছেন অথচ অন্য শিক্ষকদের জানালার পর্দা পর্যন্ত খুলে নিয়েছেন কর্মচারীর দ্বারা। বিভাগের সভাপতি হিসাবে তার এমন হীনমন্যতার পরিচয়ে আর শিক্ষকরা ক্ষুদ্ধ হয়েছেন। এছাড়াও বিভাগের উন্নয়নের নামে প্লানিং কমিটির কোন অনুমোদন ছাড়া আরো বেশ কিছু ক্ষেত্রে বিভাগের অর্থ অবৈধভাবে খরচ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

মতিহার হল প্রভোস্ট ও ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. মুহা. আলী আসগর বলেন, আমাদের বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যানের অন্যায়-অনিয়ম ব্যপ্তি অনেক দীর্ঘ হয়েছে; যা মেনে নেওয়া যায়না। এ জন্য আমরা প্রতিকী কর্মসূচি দিয়েছি, উনি পদচ্যুতি না হলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনে যাব। আল্টিমেটাম মধ্য সভাপতি পদত্যাগ না করলে প্রতিকী কর্মসূচি শেষে আলোচনা করে আরও বৃহত্তর কর্মসূচি গ্রহন করা হবে।
এসব বিষয়ে অভিযুক্ত সিএসটি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোসলেহ উদ্দীন অভিযোগ গুলো অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে অভিযোগ তোলা হয়েছে। এক ধরণের ষড়যন্ত্র বলে তিনি উল্লেখ করেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: