সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শাবিতে রাতভর ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের অবস্থান

34967-jpegনিজস্ব প্রতিবেদক ::
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা রাতভর ক্যাম্পাসে অবস্থান করেন। মধ্যরাত পর্যন্ত উপাচার্য তাঁর কার্যালয়েই অবস্থান করেছেন বলে জানা যায়।

সূত্র জানায়, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা কয়েক দফা উপাচার্য ভবনের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। অবশ্য, রাত ১২টার পর তারা বিদ্যুত সংযোগ স্বাভাবিক রাখার সুযোগ দেয়। রাত ১০টার দিকে শাবি’র প্রথম ছাত্রী হল এবং সিরাজুন্নেছা চৌধুরী হল থেকে শতাধিক শিক্ষার্থী মিছিল নিয়ে আন্দোলনকারীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে।

জালালাবাদ থানার ওসি আখতার হোসেন জানান, রাত ১টা পর্যন্ত প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপাচার্য ভবনের সম্মুখে অবস্থান নেয়। যে কোন ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ক্যাম্পাসে শতাধিক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন ।
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, গুলি বিনিময় ও ককটেল বিস্ফোরণের পর উদ্ভুত পরিস্থিতি এড়াতে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বুধবার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই সাথে সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত এবং ক্যাম্পাসে সভা-সমাবেশেও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেন স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অনিবার্য কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাশ ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। ছাত্রদের সকাল ৮টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হলগুলো জানুয়ারির ১ তারিখ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে, সিন্ডিকেট সভায় হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের বিবদমান দুটি পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পর পুলিশ রাতে শাহপরান, বঙ্গবন্ধু ও সৈয়দ মুজতবা আলী হলে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন কক্ষ থেকে ৫০টি জিআই পাইপ, ১০টি রড, ৪টি ককটেল, ২টি দা, তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন শাহপরাণ হলের প্রভোস্ট শাহেদুল হোসেন।

ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আবু সাঈদ আকন্দ, অঞ্জন রায় ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজের নিয়ন্ত্রণে থাকা গ্রুপ একত্রিত হয়ে সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান সমর্থিত গ্রুপকে ধাওয়া দেয়। ধাওয়া খেয়ে সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান ও তার কর্মীরা ভিসি কার্যালয়ে গিয়ে অবস্থান নেয়।

অন্যদিকে,একই সময়ে ওই গ্রুপের আরেকটি দল শাহপরান হলে অবস্থান নিয়ে বেশ কয়েকটি কক্ষ ভাংচুর ও পরবর্তীতে নিজেরা আলাদা তালা মেরে আসেন। এর পর থেকে ইমরান খান সমর্থিত গ্রুপ ক্যাম্পাসের প্রবেশ করতে পারেনি, তবে অঞ্জন সমর্থিতরা হলের সামনে অবস্থান করছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: