সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ মাঘ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নারায়ণগঞ্জে আজ ভোটযুদ্ধ

00-303-3-696x418ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::
ভোটের অপেক্ষায় নারায়ণগঞ্জবাসী সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটের সরঞ্জাম পাঠাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। নিয়ম অনুযায়ী, গত মঙ্গলবার রাত ১২টায় রাজধানীর লাগোয়া এই সিটিতে সব ধরনের প্রচার শেষ হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত নতুন মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনে ভোট দেবেন পৌনে পাঁচ লাখ ভোটার। নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা জানান, গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় শহরের আদালতপাড়ায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে নির্বাচনি সরঞ্জাম কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে। স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপার, প্যাড, সিল, অমোচনীয় কালিসহ অন্যান্য উপকরণ পুলিশি পাহারায় পাঠানো হচ্ছে ১৭৪টি ভোটকেন্দ্রে।

এসব সরঞ্জামের মধ্যে সুঁই, সুতা, সুপার গ্লু, স্ট্যাপলার, ভোটার তালিকা, কার্বন পেপার, মোমবাতি, স্কেল, কলমসহ ৬০টির বেশি উপকরণ রয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানান। রিটার্নিং কর্মকর্তা নুরুজ্জামান তালুকদার বলেন, আমরা যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ১৭৪টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৩৭টিকে বেশি নজর দেওয়া হচ্ছে। কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা হলে তা কঠোরভাবে দমন করা হবে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন ২০১৬ : ভোটার ৪ লাখ ৭৪ হাজার ৯৩১ জন। ভোট চলবে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। মেয়র পদে সাতজন, ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন এবং ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১৫৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিন পদের জন্য ব্যালট ছাপানো হয়েছে ১৪ লাখ ২৪ হাজার ৭৯৩টি। ১৭৪ কেন্দ্রের ১৩০৪টি কক্ষে এসব ব্যালটে রায় জানাবেন ভোটাররা। ভোটের দায়িত্বে রয়েছেন প্রায় ৪ হাজার কর্মকর্তা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে ৯ হাজার সদস্য রয়েছেন ভোটের নিরাপত্তায়।

ভোটের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গতকাল বুধবার সকাল থেকে মাঠে দেখা গেছে র‌্যাবের ডগ স্কোয়ার্ড ও বোমা নিস্ক্রিয়করণ ইউনিট। বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনে চলছে তল্লাশি। পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি র‌্যাবের ৬০০ সদস্য এ নির্বাচনে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নরেশ চাকমা জানিয়েছেন। কিছু অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগ এবং আশঙ্কার সুর থাকলেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন (নাসিক) সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবেই সম্পন্ন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলোর প্রার্থীরা। এসব আশাবাদ নিয়েই গতকাল মধ্যরাত থেকে নাসিক নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা শেষ হয়েছে। এখন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, স্থানীয় নগরবাসীর সঙ্গে সঙ্গে দেশবাসীও আগামীকাল বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জে একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে বলে অপেক্ষায় রয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮ থেকে শুরু হবে ভোট গ্রহণ। ইতিমধ্যে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এখন কেবল অপেক্ষার পালা।

নাসিক নির্বাচনের ভোট হবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার ২২ ডিসেম্বর। বিধি অনুযায়ী মঙ্গলবার রাত ১২টা পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণা করা যাবে। তবে গত সোমবার রাত ১২টার পর থেকে সিটি করপোরেশন এলাকার বাইরের কারও প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকায় অন্যান্য দিনের মতো গতকাল মঙ্গলবার দুই দলের কোনও কেন্দ্রীয় নেতাকে নারায়ণগঞ্জে দেখা যায়নি। এ সময় সাখাওয়াত অভিযোগ করেন, সুষ্ঠু ভোট নিয়ে আমি শঙ্কায় আছি। নির্বাচনের শুরু থেকেই আমি সেনা মোতায়েন চেয়েছিলাম। কিন্তু নির্বাচন কমিশন সেটা করেনি। এ কারণেই লোকজনের মধ্যেও উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। আর সরকারও চাচ্ছে না সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট হোক। সরকারের অবস্থান ভোটের দিন সকালেই বোঝা যাবে। তার পরেও আমি চাই সুষ্ঠু ভোট হোক। কারণ, মানুষ ধানের শীষকে ভোট দিতে উন্মুখ হয়ে আছে। লোকজন ধানের শীষকেই ভোটে পাস করাবে। এটা বুঝতে পেরেই সরকার ষড়যন্ত্র করছে।

এদিকে, নাসিক নির্বাচনে নৌকার পালে হাওয়া লেগেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আমাদের পার্টি এখন ঐক্যবদ্ধ, ঐক্যবদ্ধভাবেই এ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। গতকাল সচিবালয়ে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে তিনি আরও বলেন, আমরা সবাইকেই সুযোগ করে দিতে চাই। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আছে, নির্বাচন যেন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়। দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এ বিষয়ে আমিও একমত। নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে তাদের কর্মকা- পরিচালনা করুক। নারায়ণগঞ্জের মানুষ যাকে খুশি তাকেই ভোট দিক।

অপরদিকে, শেষ নির্বাচনটা ভালো করার ব্যবস্থা ইসি নেবে বলে আশা প্রকাশ করেছে বিএনপি। মেয়াদ শেষের আগে ভালো নির্বাচন’ করার প্রয়াস নিতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে দলটির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানিয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে সিইসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এ দাবি জানায়।

বৈঠক শেষে নজরুল ইসলাম খান বলেন, বর্তমান কমিশনের অধীনে কোনও নির্বাচন ভালো হয়নি। তাদের প্রতি আমাদের আস্থা নেই। কিন্তু দেশে একটিই কমিশন। এজন্যে তাদের অধীনে আমাদের নির্বাচনে আসতে হয়। আশায় আছি, তারা শেষ নির্বাচনটা ভালো করার ব্যবস্থা নেবে। সিইসিও সুষ্ঠু নির্বাচনের আপ্রাণ চেষ্টার কথা জানিয়েছেন বলে নজরুল ইসলাম খান জানান।

এদিকে, গতকাল মঙ্গলবার প্রচার-প্রচারণার শেষ দিনে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহরের ১৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। এসময় তিনি বলেন, প্রচারণার শেষ দিন আজ। আর কারও অভিযোগ শুনবো না, কারও বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ করবো না। আমিও চাই নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হোক। ভোটাররা যাতে সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে পারে; সেজন্য সব নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। যে গণজোয়ার তৈরি হয়েছে সেটা এখন ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে। ভোটারদের জন্য শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট চাই। সুুুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

১৬নং ওয়ার্ডে সেলিনা হায়াৎ আইভীর বাসার গেট থেকে গতকাল শেষ গণসংযোগ শুরু করেন তিনি। পরে তিনি ১৬নং ওয়ার্ডের দেওভোগ এলএন রোড, নিহত দিদারুল ইসলাম চঞ্চলদের বাড়ি, দেওভোগ আখড়া মোড়, নতুন পালপাড়া মোড়, কাঠের দোতালা, দেওভোগ পাকারোড বড় মসজিদ, পুরাতন দেওভোগ পাকা রোড, খানকা রোড. জামাল উদ্দিন সড়ক, গার্মেন্টস গলিসহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে নিজ বাড়িতে এসে গণসংযোগ শেষ করেন।
এবারের নির্বাচনে ৭ জন মেয়র প্রার্থী অংশ নিলেও এরমধ্যে এলডিপির কামাল প্রধান ও কল্যাণ পার্টির রাশেদ ফেরদৌস বিএনপির প্রার্থী এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেনকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। যার ফলে ভোট যুদ্ধের জন্য রয়ে গেছেন ৫ জন মেয়র প্রার্থী। এর মধ্যে অন্যদের নিয়ে তেমন আলোচনা না থাকলেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীই রয়েছেন সকল আলোচনায়। মূল হিসেবটাই কষা হচ্ছে এই দুই দলের প্রার্থী আইভী ও সাখাওয়াতকে ঘিরে। এদিকে রাজনৈতিক হিসেব নিকেষের উপরেও এখানকার ভোটারদের একটাই চাওয়া এ নারায়ণগঞ্জ নগরী শাসন হোক নির্বাচিত একজন জনপ্রতিনিধির দ্বারা এবং তা হোক সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে। এদিকে, এ নির্বাচনে সাধারণের উৎসাহ উদ্দীপনা দুটোই রয়েছে। তবে এখানে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আইভীকে নিয়ে নিজ দলীয় লোকদের মাঝেই নীরব দ্বন্দ্ব যেন রয়েই গেছে। অপর দিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা প্রতিদিন প্রচারণায় ঘাম ঝরালেও স্থানীয় বিএনপির ভূমিকা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। বলা হচ্ছে, এখানকার অনেক বিএনপি নেতাকর্মী প্রকাশ্যে না হলেও গোপনে গোপনে আইভীর পক্ষে কাজ করছেন।

নির্বাচন আয়োজনকারী সংস্থা নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে তাদের প্রায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। ভোটের আগের দিন সকাল ৮টা থেকেই রিটার্নিং কর্মকর্তা ভোটের উপকরণ প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করবেন। দিনভর কেন্দ্রে কেন্দ্রে মালামাল পৌঁছানো এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নির্বাচনী কর্মকর্তাসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও সদা তৎপর থাকবেন।

ইতিমধ্যে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মাঠে নামানো হয়েছে ২২ প্লাটুন বিজিবি। পাশাপাশি পুলিশ, র‌্যাবসহ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা নগরীতে টহল অব্যাহত রেখেছে। এছাড়াও মাঠে রয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। কোনো অনিয়ম হলেই যেন পার পেয়ে না যায়, সেজন্য কঠোর নির্দেশনাও দিয়েছে ইসি। ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ ইতিমধ্যে শেষ করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে মোট ১৬৩ প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ১২১৭ সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ভোট গ্রহণ করবেন। আগামীকাল ২২ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন। এরপর কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা করার পর তা নারায়ণগঞ্জ ক্লাব (নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী কার্যালয়) রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হবে। এখান থেকে পূর্ণাঙ্গ ফলাফল প্রকাশ করা হবে।হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মুফতী মাসুম বিল্লাহর ২৭ দফা ইশতেহার ঘোষণানারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২৭ টি ওয়ার্ডে ১৫৬ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ও ৩৮ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থী এবং ৫ জন মেয়র পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এখানে ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৮৯ হাজার ৩৯২ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৫১৪ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৩৭ হাজার ৮৭৮ জন। তারা ১৬৩টি কেন্দ্রের ১২১৭টি ভোটকক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পাবেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: