সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ২৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অসাধ্য সাধন করতে পারবে তো পাকিস্তান!

pakistan20161218213502স্পোর্টস ডেস্ক:
একেই কী বলে পাকিস্তান? গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেট। তার চেয়েও বেশি অনিশ্চয়তার দল পাকিস্তান। যাদের সম্পর্কে আগাম কোন ভবিষ্যদ্বানী করা হবে বোকামি। সেই অনিশ্চয়তার দল পাকিস্তানের একই সঙ্গে দুই রূপ দেখা যাচ্ছে ব্রিসবেন টেস্টে। একবার অসি পেসের সামনে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়া তো আরেকবার ইস্পাত-কঠিন দৃঢ়তা নিয়ে রুখে দাঁড়ানো।

পাকিস্তানের দুই চরিত্রের কারণেই চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গেছে ব্রিসবেনের গ্যাবা টেস্টও। এই টেস্ট জিততে হলে পাকিস্তানকে করতে হবে আরও ১০৮ রান। হাতে আছে অবশ্য আর মাত্র দুই উইকেট। যদিও সেঞ্চুরি করা আসাদ শফিক রয়েছেন উইকেটে।

পঞ্চম দিন শেষে হয়তো টেস্টটিতে জয়ী দলের নাম থাকবে অস্ট্রেলিয়ার। কারণ, অসি পেসাররা যেভাবে তেতে আছেন, তাতে বাকি দুই উইকেট যে কোনো সময় চলে যেতে পারে। আসাদ শফিক ছাড়া প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যান বলতে আর কেউ নেই। শফিকের অপরপ্রান্তে রয়েছেন ইয়াসির শাহ। কাল সকালে ব্যাট-প্যাড পরে তৈরি থাকবেন রাহাত আলি।

ইয়াসির আর রাহাত আলি মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজলউড কিংবা জ্যাকসন বার্ডদের বেশিক্ষণ ঠেকিয়ে রাখতে পারবেন না, তা অনায়াসেই বলা যায়। তবুও দলটির নাম যেহেতু পাকিস্তান। সেহেতু এ ভবিষ্যদ্বানীও করা যায় না। কারণ, এই দু’জনকে নিয়েও অসাধ্য সাধন করে ফেলতে পারেন আসাদ শফিক। পারবেন তো তিনি? এটাই এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।

কারণ যে দলটি প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৪২ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল, সেই দলটিই কি না দ্বিতীয় ইনিংসে ঘুরে দাঁড়িয়ে রান সংগ্রহ করেছে ৩৮২। আজহার আলি, ইউনিস খান, আসাদ শফিক আর মোহাম্মদ আমিরদের দৃঢ়তায় তারা করে ফেলেছে ৩৮২ রান। শেষ দিন জিততে হলে বাকি ২ উইকেটে প্রয়োজন আর ১০৮ রান।

আগেরদিনই পাকিস্তানকে ১৪২ রানে অলআউট করে দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ২৮৭ রানে এগিয়ে থেকেও পাকিস্তানকে ফলোঅন করায়নি অস্ট্রেলিয়া। বরং, দ্বিতীয় ইনিংসে তারা নিজেরাই ব্যাট করতে নেমে যায়। উসমান খাজার ৭৪ আর স্টিভেন স্মিথের ৬৩ রানের ওপর ভর করে ৫ উইকেটে ২০২ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া।

পাকিস্তানের সামনে ৪৯০ রানের লক্ষ্য বেধে দিয়ে মিসবাহদের ব্যাটিংয়ে পাঠায় স্টিভেন স্মিথের দল। তৃতীয় দিন বিকেলেই সামি আসলাম আর বাবর আজমের উইকেট হারিয়ে বসে পাকিস্তান। ৫৪ রানে দুই উইকেট হারানোর পর সফরকারীরা ঘুরে দাঁড়ায় আজহার আলি আর ইউনিস খানের ব্যাটে। ৯১ রানের জুটি গড়ে তোলেন এ দু’জন।

১৭৯ বলে ৭১ রান করেন আজহার আলি। ১৪৭ বলে ৬৫ রান করে আউট হন ইউনিস খান। মিসবাহ-উল হক অবশ্য দাঁড়াতে পারেননি। তিনি আউট হয়েছেন ৫ রান করে। এরপর সরফরাজ আহমেদ আর মোহাম্মদ আমিরকে নিয়ে দারুণ দুটি জুটি গড়ে তোলেন আসাদ শফিক। ২৪ রান করে সরফরাজ আউট হয়ে গেলেও মোহাম্মদ আমির বাজিমাত করেন। টেস্ট ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংসই খেলে ফেলেন তিনি। আগে তার সেরা ছিল ৩৯ রান অপরাজিত। আজ খেলেন ৪৮ রানের ইনিংস।

জ্যাকসন বার্ডের বলে আউট হয়ে যান তিনি। আফসোস, আর মাত্র ২ রানের জন্য ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ সেঞ্চুরিটা পেলেন না। শুধু আমিরই নন, ব্যাট হাতে দারুণ প্রতিরোধ গড়েন ওয়াহাব রিয়াজও। তিনি খেলেন ৩০ রানের ইনিংস। দিনের শেষভাগে ওয়াহাব রিয়াজ আউট হওয়ার পর ইয়াসির শাহ ক্রিজে থাকেন ৪ রান করে। এরই ফাঁকে ক্যারিয়ারের ১০ম সেঞ্চুরিটা পূরণ করে ফেলেন আসাদ শফিক।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক আর জ্যাকসন বার্ড। ২ উইকেট নেন নাথান লায়ন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: