সর্বশেষ আপডেট : ৫১ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৭ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘শফীর সিদ্ধান্ত মেনে নিলেন মাসঊদ’

164177_1নিউজ ডেস্ক: শোলাকিয়া ঈদগাহের খতিব মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতি বিষয়ে আল্লামা শাহ আহমদ শফীর সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন।

সমালোচনার মধ্যে থেকেই দীর্ঘদিন ধরে কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতি আদায়ের জন্য কাজ করেছেন ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। সরকারের উদ্যোগে কওমি মাদ্রাসার শিক্ষা আইন, কমিশন, পাঠক্রম প্রণয়ন, এসবের নেপথ্যে থাকায় সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছিল ফরীদ উদ্দীন মাসঊদকে।

অবশেষে আহমদ শফীর আহ্বানে ডাকা বৈঠকে যোগ দিয়ে, তার সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে স্বাক্ষর করেছেন মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।
এ বিষয়ে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, ‘আমি তো পরিষ্কার ঘোষণা দিয়েছি, কওমি মাদ্রাসার স্বীকৃতি বা মানের ব্যাপারে আল্লামা আহমদ শফীর যে মতামত, তার সঙ্গে আমিও একমত।’

আহমদ শফীর উপস্থিতিতে বৈঠকে বক্তব্য রাখছেন ফরীদ ঊদ্দীন মাসঊদ। জানা গেছে, হেফাজতে ইসলামের আমির ও বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফী ১০ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে দারুল উলূম হাটহাজারী মাদ্রাসায় দেশের কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডগুলো ও কওমি অঙ্গনের শীর্ষস্থানীয় প্রতিনিধিদের নিয়ে সভা আহ্বান করেছিলেন।

সেই সভায় যোগ দিয়েছিলেন ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। সভার শুরুতেই গত ২৩ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া শাহ আহমদ শফীর ছয় পৃষ্ঠার চিঠির কপি পড়ে শোনানো হয়।

এরপর এই চিঠির আলোকে কওমি বোর্ড প্রতিনিধিরা নিজদের বক্তব্য তুলে ধরেন। সভায় কওমি মাদ্রাসা বোর্ডগুলোর ঐকমত্যের ভিত্তিতে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদীসের সনদের সরকারি মান গ্রহণের বিষয়ে সকলের মতামত গ্রহণ করা হয়। বিস্তারিত আলোচনা-পর্যালোচনা শেষে সর্বম্মতিক্রমে সভায় তিনটি সিদ্ধান্তসমূহ গৃহীত হয়। গৃহীত
সিদ্ধান্তে সম্মতি প্রদান করে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের স্বাক্ষর
বৈঠকের তিনটি সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে,
১. কওমি মাদ্রাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে কোনও ধরনের সরকারি কর্তৃপক্ষ ও কমিশন গঠন এবং নিয়ন্ত্রণ , শিক্ষা পদ্ধতি,সিলেবাস ও মাদ্রাসা পরিচালনায় কোনোরূপ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ হস্তক্ষেপ ছাড়া দাওরায়ে হাদিসের সনদকে ইসলামের ইতিহাস ও আরাবি সাহিত্যে এমএ-এর সমমান প্রদান করা হলে গ্রহণ করা হবে।

২.কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদের মান গ্রহণ সম্পর্কে উল্লিখিত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে “কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদের মান বাস্তবায়ন কামিটি” নামে ২২ জন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়।

৩. সনদের মান গ্রহণের বিষয়ে “কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদের মান বাস্তবায়ন কামিটি” ও সরকারি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার জন্যে পাঁচ সদস্যের একটি ‘লিয়াজোঁ কমিটি’ গঠন করা হয়।

কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদের মান বাস্তবায়ন কামিটি নামে ২২ জন সদস্যের কমিটির সভাপতির দায়িত্বে থাকবেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী। বাস্তবায়ন কমিটির বৈঠকে আহমদ শফী উপস্থিত না হতে পারলে দায়িত্ব পালন করবেন মাওলানা আশরাফ আলী।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: