সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২৯ মার্চ, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

একজন লুৎফুর রহমান

luthfur-rahman_dailysylhetআহমদ কবীর রাসেল::
আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে সিলেটের আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী এ্যাডভোকেট মো. লুৎফুর রহমান। একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ হিসেবে সর্বমহলে যার গ্রহণযোগ্যতা ঈর্ষনীয়। জেলা পরিষদ নির্বাচনে তাঁর প্রতীক ‌’আনারস’। নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন গুণী এই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব।

কে তিনি, কী তার পরিচয়…
জনাব এডভোকেট মো. লুৎফুর রহমান ১৯৪০ সালের ৪ ডিসেম্বর তৎকালীন সিলেট জেলাধীন বালাগঞ্জ উপজেলার বড় হাজিপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম ছৈদ উল্লাহ এবং মাতা সমিতা ভানু। ছাত্রজীবনে ১৯৬২ সালে তৎকালীন ছাত্রলীগের রাজনীতির মাধ্যমে তাঁর রাজনৈতিক জীবনের সূচনা হয়। দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতার মাধমে কর্মজীবন শুরু করেন এবং পরবর্তীতে আইন পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করেন। বাঙালী জাতির মুক্তি সংগ্রামের জন্য ১৯৬৬ সালের ৬ দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থানে সক্রিয়ভাবে নেতৃত্ব প্রদান করেন। ১৯৭০ সালের প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচনে মাত্র ২৯ বছর বয়সে ‘বালাগঞ্জ-ফেঞ্চুগঞ্জ’ আসন থেকে সদস্য নির্বাচিত হোন। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণসহ মুক্তিযুদ্ধের একজন সফল সংঘটক ছিলেন। ১৯৭২ সালে গণপরিষদ সদস্য হিসেবে হাতেলেখা বাংলাদেশের প্রথম সংবিধানে স্বাক্ষর প্রদানকারীদের একজন। সর্বশেষ সিলেট জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসাবে সততা এবং নিষ্ঠার সাথে নিজ দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্বে আছেন।

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা অবস্থায় সদালাপী, অমায়িক এই মানুষটি দলমতের ঊর্ধ্বে এসে মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তার কাছে কোন প্রয়োজনে কেউ আসলে কখনও জিজ্ঞেস করেননি আপনি কোন রাজনৈতিক দলের লোক, বরং জিজ্ঞেস করেছেন ‘আপনি কোথা থেকে এসেছেন, কি কাজে এসেছেন’। সাধ্যের মধ্যে থাকলে তাৎক্ষণিক সমাধা করার চেষ্টা করেছেন আর সাধ্যের বাইরে থাকলে পরামর্শ দিয়েছেন ‘আপনি অমুক জায়গায় যান আমি সুপারিশ করে দিব’। সাদা মনের নির্লোভ এই মানুষটি জীবনভর মানুষের উপকারে কাজ করে গেছেন, কিন্তু নিজের জন্য কিছুই করেননি। সিলেট শহরে আজ পর্যন্ত একখন্ড ভূমির মালিক হতে পারেননি। ভাড়া বাসায় থেকেই আজ অবধি নিতান্তই সাদামাটা জীবনযাপন করে যাচ্ছেন। উনার ব্যক্তিগত কোন আয় বা আয়ের উৎস নেই। সন্তানদের আয় দ্বারাই উনি পরিচালিত হোন। বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠান কিংবা সভা-সমাবেশে যখন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা নামি-দামি গাড়ি চড়ে উপস্থিত হোন; উনি তখন উপস্থিত হোন রিক্সা কিংবা সিএনজি অটোরিক্সা চড়ে…

একজন রাজনীতিবিদ কতটুকু সৎ, নির্লোভ ও ন্যায়বান হলে জীবনে এত বড় বড় ক্ষমতাধর পদে আদিষ্ট হবার পরও জীবনসায়াহ্ন পর্যন্ত নিজেকে সব ধরণের লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে রেখে মানুষের উপকারে নিয়োজিত রাখতে পারেন। আজকালকার যুগে সততা, ন্যায়নীতির আদর্শে লালিত রাজনীতিবিদদের স্থান কেবল ইতিহাসের পাতায়, আমরা শুধু বইয়ের পাতায়-ই তাদের জীবনকথা দেখতে পাই কিন্তু এডভোকেট লুৎফুর রহমান একজন জীবন্ত ইতিহাস।

আমি ব্যক্তিগতভাবে কোন রাজনৈতিক দলের সমর্থক কিংবা কোনধরণের রাজনীতির সাথে জড়িত নই কিন্তু একজন সৎ, আদর্শবান, পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদের প্রশংসা করতে কখনওই দ্বিধাবোধ করিনা তিনি যেকোন দলেরই হোন না কেন। অতি কাছে থেকে উনাকে চেনার জানার সৌভাগ্য হয়েছে বিধায় আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে এই লেখা। উনার সাথে যতো জায়গায় গিয়েছি উনার প্রতি মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা দেখে গর্বে বুকটা ভরে উঠেছে। অর্থ, বিত্ত, প্রাচুর্যকে পায়ে ঠেলে একজন মানুষের সবচেয়ে বড় সম্পদ ‘সম্মানটুকু’ আঁকড়ে ধরে মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় জীবনের শেষ সময় পার করছেন এই মানুষটি।
আমি তাঁর সুস্বাস্থ্য, সাফল্য এবং দীর্ঘায়ু কামনা করি।

লেখক: ব্যাংকার।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: