সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২২ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে বিতর্কিত পোষ্টার নিয়ে এলাকায় তোলপাড়

01-daily-sylhet-chhatak-news2ছাতক প্রতিনিধি:: ছাতকে বিতর্কিত পোষ্টারকে কেন্দ্র করে এলাকায় বিরাজ করছে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা। পোষ্টারের ভাষা আপত্তিকর ও উস্কানীমুলক হওয়ায় যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকাবাসী। স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির ছবি সংযুক্ত করে এক ইউপি সদস্যসহ এলাকার কয়েক জনের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ন বক্তব্য লিখে পোষ্টার ছাপা করায় এলাকা জোড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। পোষ্টারের উপরের এক কোনায় জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিও ব্যবহার করা হয়েছে। ব্যক্তিগত আক্রোশের বিষয়ে জাতিরজনক, রাষ্ট্র প্রধান ও জনপ্রতিনিধিদের ছবি বিতর্কিত পোষ্টারে ব্যবহার করায় স্থানীয় আ.লীগসহ রাজনৈতিক মহলেও সৃষ্টি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

জানা যায়, উপজেলার দক্ষিন খুরমা ইউনিয়নের পালপুর গ্রাম সংলগ্ন সরকারী খাস ভুমিতে বড় হওয়া কয়েকটি বন্য গাছ কেটে নিয়ে যায় গ্রামের মৃত হারিছ আলীর পুত্র নুর মিয়া। এ নিয়ে পালপুর আলিম মাদ্রাসা কমিটি ও এলাকার লোকজনের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। মাদ্রাসা কমিটির দাবী খাস ভুমির গাছ বিক্রি করে বিগত দিনে মাদ্রাসার উন্নয়নে ব্যয় করা হয়েছে। বিষয়টি গ্রামের লোকজন নুর মিয়ার সাথে কয়েক দফা বৈঠক করে কাটা গাছ মাদ্রাসা কমিটির কাছে হস্তান্তর করার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু গাছ না দিয়ে গত ১৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় নামাজের পূর্ব মুহুর্তে প্রতিপক্ষরা দেশীয় ও আগ্নেয়াস্ত্র¿ নিয়ে মসজিদে আসা গ্রামবাসীর উপর হামলা চালায়। এতে ৫জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ ব্যক্তি আহত হয়। এ ঘটনায় আবুল হোসেন বাদি হয়ে পালপুর গ্রামের মৃত হারিছ আলীর পুত্র নুর মিয়াকে প্রধান আসামী করে ২৯ জনের বিরুদ্ধে ছাতক থানায় একটি মামলা (নং- ১৯) দায়ের করলে আব্দুল জব্বার-মোশাহিদ, হোসেন ও শাহ আলমকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। এতে গ্রামবাসীর প্রতি ক্ষীপ্ত হয়ে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয় নূর মিয়া পক্ষ। ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এ মহলটি সম্প্রতি পালপুর ফুলকলি সমাজ কল্যাণ সংস্থার নামে গ্রামের ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল, সাবেক সদস্য আকিকুর রহমান ও সমাজসেবী ফখর উদ্দিনের বিরুদ্ধে জঙ্গি, জামাত নেতা আখ্যায়িত করে কুরুচিপূর্ণ, অশালিন ও আক্রমনাত্মক বক্তব্য লিখে পোষ্টার আকারে এলাকায় প্রচার করেছে। আর এ পোষ্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়, সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল, ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাদাত লাহিন, ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদের ছবি ব্যবহার করায় ফুসে উঠেছে স্থানীয় আ.লীগসহ রাজনৈতিক মহল। ইউপি সদস্য আব্দুুল জলিল, সাবেক সদস্য আকিকুর রহমান, ইউপি সদস্য আব্দুুল জলিল, হাজি আব্দুল মালিক, আব্দুল জলিল মানিক, হাজি আশক আলী, আব্দুল কাদির-জালু মিয়া, মসজিদের মোতাওয়াল্লি মামুনুর রহমান জুয়েল, কাজি লিয়াকত আলী, সমছু মিয়া, জুবেদ আলী, সামছুল হকসহ গ্রামের লোকজন জানান, ব্যক্তিগত আক্রোশ মেটাতে গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিদের নামে অশালিন বক্তব্য লিখে জাতীয় নেতৃবৃন্দের ছবি ব্যবহার করা অপরাধের শামিল। এসব কুচক্রিমহলের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: