সর্বশেষ আপডেট : ৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বনাথে এক রাতে তিন বাড়িতে ডাকাতি, ২২ লাখ টাকার মাল লুট

pic1বিশ্বনাথ প্রতিনিধি ::
বিশ্বনাথে গত শুক্রবার একই রাতে দুই প্রবাসীর বাড়িসহ ৩টি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের রহিমপুর গ্রামের লন্ডন প্রবাসী মাহমদ আলী, একই গ্রামের কাতার প্রবাসী মখলিছ আলীর ও বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়নের ধর্মদা গ্রামের শানুর মিয়ার বাড়িতে ডাকাতির ঘটনাগুলো সংঘটিত হয়।
তিনটি বাড়ি থেকে ডাকাত দল ২৬ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, আমেরিকান ২০ ডলার, ৩৭টি মোবাইলফোন, ২টি ক্যামেরা, ১টি ল্যাপটপসহ প্রায় ২২ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। ডাকাত দলের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন ধারাভাষ্যকার আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী শাকিলা বেগম।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে ২০/২৫ জনের একটি মুখোশধারী ডাকাতদল একই সময়ে হানা দেয় কাতার প্রবাসী মখলিছ আলী ও পার্শ্ববর্তী লন্ডন প্রবাসী মাহমদ আলীর বাড়িতে। ডাকাত দল বাড়ির কলাপসিবল গেইটের তালা ও দরজা ভেঙে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মালামাল নিয়ে যায়।
অন্যদিকে একই রাতে উপজেলার বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়নের ধর্মদা গ্রামের ধারাভাষ্যকার আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে হানাদেয় ডাকাত দল। এসময় ডাকাত দল অস্ত্রের মুখে পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে হাত-পা বেঁধে মালামাল নিয়ে যায়। ডাকাত দলের হামলায় গুরুত্বর আহত আনোয়ার মিয়ার স্ত্রী শাকিলা বেগেমকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানাগেছে।
প্রবাসী মখলিছ আলীর পুত্র ছাব্বির আহমদ জানান, ডাকাত দল তার ঘরে থাকা ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ২ লাখ টাকা, আমেরিকান ২০ ডলার, ১১টি মোবাইল সেট, ২টি ডিজিটাল ক্যামেরা নিয়ে গেছে।
প্রবাসী মাহমদ আলীর ভাই আহমদ আলী জানান, ডাকাতদল তার ঘরে থাকা ৬ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৫৫ হাজার টাকা, ১ টি ল্যাপটপ, ৬টি মোবাইলফোন নিয়ে গেছে ।
আনোয়ার হোসেন বলেন, ডাকাতদল তার ঘরে থাকা প্রায় ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ২০ হাজার টাকা, ২০টি মোবাইলফোনসহ প্রায় ২ লাখ টাকা নিয়ে যায়।
খাজাঞ্চী ইউনিয়নে সংগঠিত দুটি ডাকাতির ঘটনাই সাজানো। প্রবাসীদের কাছ থেকে টাকা আনানোর জন্য ডাকাতির ঘটনাগুলো সাজানো হয় দাবি করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম পিপিএম বলেন, ধর্মদা গ্রামের ডাকাতির ঘটনাটি সত্য। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান পিপিএম বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। পুলিশি টহল জোরদার করার ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সিলেটের ডিআইজি কামরুল আহসান দৈনিক সবুজ সিলেটকে বলেন, তিনটি ডাকাতির ঘটনা বিশেষ গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। এঘটনাগুলোর সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: