সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ওসমানী হাসপাতালে বিশ্ব এইডস দিবস পালিত

efffffffffffসিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পিএমটিসিটি প্রকল্পের উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। দিনের শুরুতে ইউনিসেফের সহায়তায় সিওমেক হাসপাতালে বাস্তবায়িত ‘মা হতে শিশুর শরীরে এইচআইভি ও জন্মগত সিফিলিস প্রতিরোধ কার্যক্রম (পিএমটিসিটি) ও আশার আলো সোসাইটি, সিলেট এর আয়োজনে হাসপাতালে বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালিতে অংশগ্রহণকারীরা এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় আসুন ঐক্যের হাত তুলি, এইচআইভি প্রতিরোধ করি-এর প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন। সিওমেক হাসপাতালের পরিচালকের নেতৃত্বে র‌্যালিটি হাসপাতালের প্রশাসনিক ব্লক থেকে শুরু হয়ে রিকাবিবাজার হয়ে পুনরায় হাসপাতাল চত্বরে এসে শেষ হয়। হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগের অধ্যাপক ও শিক্ষকমন্ডলীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন।
র‌্যালি শেষে হাসপাতালের সেমিনার কক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। পিএমটিসিটি’র প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো. মোতাহের হোসনের সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আব্দুস ছবুর মিঞা । সভার শুরুতে গাইনি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. ইশরাত জাহান করিম ও শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. মো. জাকির হোসেন নিজ নিজ বিভাগের পক্ষে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
সভার শুরুতে বিশ্ব এইডস দিবস ও এইডস সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সেবাদানকারীদের ভূমিকা নিয়ে বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি মেডিসিন বিভিাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. শিব্বির আহমেদ পর্যায় ক্রমে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ডা. মো. মনোজ্জির আলী, অধ্যাপক ডা. এএফএম নাজমুল ইসলাম, অধ্যাপক নুরুল আলম, অধ্যাপক আবু ইউসুফ ভূইয়া, অধ্যাপক জাহানারা বেগম, ডা. কল্লোল বিজয় কর, ডা. দিলিপ কুমার ভৌমিক।
সভায় আলোচকরা সিলেট অঞ্চলে এইডসের বিস্তারে ঝুঁকিপূর্ণতা এবং তা প্রতিরোধে করণীয় ও সিওমেক হাসপাতাল কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের উপর আলোকপাত করেন। এইচআইভি সংক্রমনের অন্যতম ঝুঁকিপ্রবণ এলাকা হিসেবে সিলেট অঞ্চলে এব্যপারে জনসচেতনতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়।
পাশাপাশি সরকারের সংক্রমণ প্রতিরোধ নির্দেশনা মোতাবেক ব্যবস্থা নিয়ে এইচআইভি আক্রান্তদের সেবাদান করলে সেবাদানকারীদের সংক্রমণের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব বলে বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেন।
অধ্যাপক ডা. মো. শিব্বির আহমেদ বলেন, চিকিৎসক হিসেবে এইচআইভি আক্রান্তদের সেবা প্রদানে অবশ্যই সেবা প্রদানকারীরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কোনো রোগী যদি চিকিৎসা বঞ্চিত হয়ে ফেরত যান, তার দায়ভার সেবা প্রদানকারীরা কোনো অবস্থাতেই এড়াতে পারবেন না। আর এধরনের ঘটনা ঘটলে সেবাদানকারীদেরই সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিওমেক হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক সহ অন্যান্য চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ ।
উল্লেখ্য, পিএমটিসিটি প্রকল্পের মাধ্যমে সিওেমেক এ আগত সকল গর্ভবতী মাদের বিনামূল্যে এইচআইভি পরীক্ষা করা হয় এবং গর্ভবতী মা হতে শিশুর মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণ প্রতিরোধে বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা ও আক্রান্ত মাদের ডেলিভারিসহ অন্যান্য চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। বিজ্ঞপ্তি

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: