সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ২৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বনাথে পুলিশের ভয়ে নদীতে ডুবে জামায়াত নেতার মৃত্যু : আটক ২

wyyyyyyyogo-copyবিশ্বনাথ প্রতিনিধি ::
সিলেটের বিশ্বনাথে পুলিশি গ্রেফতার এড়াতে সুরমা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে শাহীন আহমদ (৪০) নামের এক জামায়াত নেতার করুণ মৃত্যু হয়েছে। সিলেট জেলা জামায়াতের সাবেক রুকন সদস্য শাহীন উপজেলার লামাকাজি ইউনিয়নের সৎপুর গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রায় দুই ঘন্টা অভিযান চালিয়ে সুরমা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে সিলেটের তালতলা ফায়ার ব্রিগেডের ডুবুরী দল। এরআগে সন্ধ্যা ৫টার দিকে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ ভারতীয় তীর (জুয়ার আসর) খেলায় অভিযান চালালে গ্রেফতার এড়াতে সুরমা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হন।

এসময় থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ৮জুয়াড়িকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের সহযোগীরা পুলিশের উপর হামলা করে গ্রেফতার হওয়া ৮জনের মধ্যে ৬জনকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এঘটনার পর প্রায় অর্ধঘন্টা পুলিশকে অবরুদ্ধ করে রাখে তারা। খবর পেয়ে থানা পুলিশের পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোঁড়ে উশৃংখল জনতাকে ছত্রভঙ্গ করার পর অবরুদ্ধ পুলিশের ওই দলকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশের অভিযানকালে আটক হওয়া দু’জন হচ্ছে, সিলেট সদর উপজেলার খালপার গ্রামের গোলাম রেজার ছেলে আব্দুল লতিফ (৩২) ও একই গ্রামের আসদ আলীর ছেলে জুনেদ মিয়া (২৫)।
500x3501480525894_01পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিশ্বনাথের সুরমা তীরবর্তী লামাকাজি এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ভারতীয় তীর খেলা চলে আসছিল। খবর পেয়ে বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই জুয়ার আসরে অভিযান চালায়। অভিযানে ৮ জুয়াড়িকে আটক করে পুলিশ। তখন সংঘবদ্ধ জুয়াড়িরা সহযোগিদের ডেকে নিয়ে আসলে স্থানীয় রাগীব রাবেয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে পুলিশ সদস্যদের জিম্মি করে রাখে জুয়াড়িরা। তারা আটক হওয়া ৮ জনের মধ্যে ৬ জনকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। বিশ্বনাথ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম ঘটনার খবর উপজেলা ও জেলা পুলিশ প্রশাসনকে জানান। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ড. আখতারুজ্জামান বসুনিয়া, দক্ষিণ সার্কেল এএসপি আমিনুল ইসলাম সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিতাভ পরাগ তালুকদার, সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আব্দুল হক বিশেষ ফোর্সসহ লামাকাজিতে ছুটে যান। তারা ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে সংঘবদ্ধ জুয়াড়ি ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং জিম্মি থাকা পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে। এসময় উপস্থিত হন উপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল আহমদ চৌধুরী, খাজাঞ্চি ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও জেলা পরিষদ সদস্য প্রার্থী মোসাদ্দিক হোসেন সাজুলসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ফায়ার ব্রিগেডের উপ-পরিচালক রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ডুবুরি দল শাহীনকে খুঁজতে সুরমা নদীতে অভিযানে নামে। সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রায় দুই ঘন্টা অভিযান চালিয়ে অবশেষে সুরমা নদীর তলদেশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। লাশ উদ্ধারের পর স্থানীয় জনতা লামাকাজি বাজারে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী শাহীনের লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্যে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

১০রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপের কথা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম পিপিএম বলেন, জুয়ার আসরে অভিযানকালে গ্রেফতার এড়াতে থানার ৩নং তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ৮মামলার আসামি জামায়াত নেতা শাহীন নদীতে ঝাঁপ দেয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: