সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

২০১৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যে কী ঘটবে?

herzl_halevy_32215_1480321530আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আসন্ন ২০১৭ সালের ফিলিস্তিন, সিরিয়া, ইরান ও তুরস্কসহ মধ্যপ্রাচ্যে কী ঘটবে তার ব্যাপারে খোলামেলা কথা বলেছেন ইসরাইলের সামরিক গোয়েন্দা প্রধান মেজর জেনারেল হেরজল হালেভি।

তিনি বলছেন, ২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের ক্ষমতার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ফিলিস্তিনে অস্থিতিশীলতা তৈরি হবে। এ বছর ফিলিস্তিনীদের ইসরাইল বিরোধী প্রতিরোধ সংগ্রামও নতুন মাত্রা পাবে।

এছাড়া নতুন বছরে সিরিয়ার যুদ্ধ বন্ধ হবে না, ইরানের বর্তমান প্রেসিডেন্টে আগামী বছরের মে মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ফের নির্বাচিত হবেন, তুরস্কে পাঁচ থেকে দশ বছরের মধ্যে ইসলামী চরমপন্থার উত্থান ঘটবে বলেও মন্তব্য করেছেন জেনারেল হালেভি।

রোববার তেলআবিব ইউনিভার্সিটির বিজনেস-অ্যাকাডেমিক ক্লাবে আঞ্চলিক পরিস্থিতি নিয়ে এক রুদ্ধদ্বার আলোচনাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

জেনারেল হালেভি বলেন, যে এন্টিস্টাব্লিশমেন্ট মতাদর্শ ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতায় এনেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার ভূমিকার মাধ্যমে ওই মতাদর্শের পরীক্ষা হবে।

আলোচনায় অংশগ্রহণকারীরা জানান, জেনারেল হালেভির বক্তব্যে মূল আলোচ্য বিষয় ছিল মাহমুদ আব্বাসের মেয়াদ শেষে ফিলিস্তিনী প্রেসিডেন্ট পদের জন্য বিবাদমান পক্ষগুলোর মধ্যে লড়াই।

তিনি বলেন, সেখানে নানা উপাদান রয়েছে যা আবু মাজেনের (আব্বাস) নেতৃত্বকে খর্ব করবে এবং প্রতিদ্বন্দ্বী হামাস পুনরায় বিজয়ী হতে চেষ্টা করবে। এর ফলে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ পরিস্থিতি তৈরি হবে।

ইসরাইলী সেনা গোয়েন্দা প্রধান বলেন, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইসরাইলীদের ওপর ফিলিস্তিনীদের হামলার সংখ্যা কমে আসছে। এসব হামলার ঘটনায় সমষ্টিগতভাবে ফিলিস্তিনীদের শাস্তি না দিয়ে হামলাকারীদের গুলি করার মাধ্যমে সামলানো হয়েছে। তবে সামনের দিনগুলোতে নতুন নতুন উপায়ে ফিলিস্তিনীরা হামলা চালাবে জানিয়ে এরজন্য ইসরাইলকে প্রস্তুতি নিতে বলেন তিনি।

জেনারেল হালেভি বেশ জোর দিয়েই বলেন, আসন্ন বছরগুলোতে সৌদি আরব এবং আরব আমিরাতের মতো সুন্নি মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গে ইসরাইলের বন্ধন জোরালো হবে। তিনি বলেন, এই বন্ধন নিয়ে আমরা কী করব তা ভিন্ন প্রশ্ন, তবে সামনের বছরগুলো ইসরাইলের জন্য ব্যাপক সুযোগ নিয়ে আসছে।

ইরানের ব্যাপারে ভবিষ্যতবাণী করে ইসরাইলি গোয়েন্দা প্রধান বলেন, আগামী বছরের মে মাসে অনুষ্ঠিতব্য ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হাসান রুহানি পুননির্বাচিত হবেন।

তিনি বলেন, পুননির্বাচিত হওয়ার পর রুহানি ইরানী জনগণের সংস্কারের আকাঙ্খা পূরণে গভীর নজর দেবেন। আগামী পাঁচ থেকে ছয় বছরের মধ্যে আমরা সম্পূর্ণ আলাদা এক ইরান দেখতে পাব।

আলোচনাকালে জেনারেল হালেভি সম্প্রতি অনুষ্ঠিত মার্কিন নির্বাচন এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশের আসন্ন নির্বাচন সম্পর্কেও কথা বলেন।

ট্রাম্পের বিজয় এবং ব্রিটেনে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে গণভোটে রায়ের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্ব তার সন্ধিক্ষণ পার করছে এবং অনেক মানুষ নির্বাচন বিরোধী হয়ে পড়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ট্রাম্প বিজয়ী হয়েছেন কারণ তিনি ছিলেন কায়েমী স্বার্থবিরোধী। এখন প্রশ্ন হলো তার বিরোধী মতাদর্শ পরীক্ষার মুখে টিকতে পারবে কি না এবং হোয়াইট হাউজ থেকে তিনি কিভাবে কায়েমী স্বার্থবাদের বিরোধী ভূমিকা পালন করবেন।

আগামী দিনগুলোতে পশ্চিমা বিশ্বে উগ্রজাতীয়তাবাদী আরও বেশি ক্ষমতাসীন হবে বলে ভবিষ্যতবাণী করেছেন জেনারেল হাভেলি। তার মতে, ভবিষ্যতে রাষ্ট্রগুলো আরও শক্তিশালী হবে এবং জাতিগুলোর মধ্যে বিভাজন আরও উচ্চ হবে।

তুরস্কের পরিস্থিতি ও দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেফ তাইয়িপ এরদোগানকে নিয়ে ইসরাইলের হতাশার কথাও তুলে ধরেন সেনা গোয়েন্দা প্রধান। তার মতে, আসন্ন বছরগুলোতে তুরস্কে ধর্মনিরপেক্ষতা অজনপ্রিয় হয়ে যাবে এবং ইসলামী রাজনীতি শুরু হবে।

তিনি বলেন, আগামী পাঁচ থেকে দশ বছরের মধ্যেই তুরস্কের ধর্মনিরপেক্ষতাবাদী জাতির পিতা কামাল পাশার জনপ্রিয়তার অবসান ঘটবে। আর আমরা তুরস্কে ধর্মীয় রাজনীতির প্রক্রিয়া শুরু হতে দেখব।

তিনি তুরস্কের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ার ক্ষেত্রে ইসরাইলকে কৌশলী ভূমিকা পালন করতে বলেন এবং ধীরস্থিরভাব এগুনোর পরামর্শ দেন।

জেনারেল হালেভির মতে, শিগগিরই সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের অবসান হবে না। এমনকি বৈরিতার অবসানে ইউরোপে যদি একটি চুক্তিতে পৌঁছানোও সম্ভব হয় তবুও যুদ্ধ বন্ধ হওয়ার সুযোগ কম।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সমঝোতার ভিত্তিতে সিরিয়া বিষয়ে একটি জাতিসংঘের একটি রেজুলেশন পাশ করা হবে। এটি সিরিয়ার উপর থেকে অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে মস্কোর সমঝোতার চেষ্টা ছাড়াই আর কিছু নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

যদিও ইসলামিক স্টেট (আইএস) দুর্বল হয়ে পড়েছে বলে হালেভির সতর্ক করে বলেন, এর মানে হলো সিরিয়ায় হিজবুল্লাহ এবং ইরান প্রতিপত্তি অর্জন করেছে, এটি ইসরাইলের জন্য ভালো খবর নয়।

তিনি বলেন, সিরিয়ায় অনেক সদস্য নিহত হওয়ায় এবং আর্থিক টানাপড়েনের কারণে হিজবুল্লাহ দৈন্যদশা পার করছে। তা সত্ত্বেও ইসরাইলের বিরুদ্ধে নিজেদের বাহিনীগুলোকে শক্তিশালী হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করছে হিজবুল্লাহ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: