সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

৬০০ বারের চেষ্টাতেও ক্যাস্ত্রোকে মারতে পারেনি তার প্রতিপক্ষ!

full_1749336845_1480219405আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সদ্য প্রয়াত কিউবার সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের মহান নেতা ও দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ফিদেল ক্যাস্ত্রোকে ৬০০ বারের বেশি হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। প্রতিবারই তিনি ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান তিনি। ক্যাস্ত্রোকে হত্যার বেশির ভাগ চেষ্টাই হয় ১৯৫৯ থেকে ১৯৬৩ সালের মধ্যে। এ সময় তাকে কিউবার সিংহাসন থেকে নামাতে নেওয়া হয় ‘অপারেশন মঙ্গুজ’ পরিকল্পনা।

কিউবার সরকারি সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। তবে ২০০৬ সালের ব্রিটিশ এক তথ্যচিত্রে দেখানো হয়েছে, ৯০ বছরের জীবনে ৬৩৮ বার ক্যাস্ত্রোকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে।

ক্যাস্ত্রো অবশ্য এই হত্যাচেষ্টার বিষয়ে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘হত্যাচেষ্টায় বেঁচে যাওয়ার ঘটনা নিয়ে অলিম্পিকে যদি কোনো ইভেন্ট থাকত, তাহলে আমি সেই ইভেন্টে স্বর্ণপদক পেতাম।’

হত্যার ষড়যন্ত্র বেশির ভাগই করা হয় তার শাসনামলের শুরুতে। বহু বিদ্রোহের পর কিউবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৯৫৯ সালে দায়িত্ব নেন ফিদেল ক্যাস্ত্রো। একাধারে ৪৯ বছর দেশ পরিচালনার পর ২০০৮ সালে ভাই রাউল ক্যাস্ত্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে বিদায় নেন ফিদেল।

ফেবিয়ান এসকালান্তে ফিদেলের নিরাপত্তারক্ষী ছিলেন। ৪৯ বছরের শাসনামলে পুরো সময় তার নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন তিনি। তার তথ্যমতে, ৬৩৮ বার ক্যাস্ত্রোকে হত্যার চেষ্টা করে তার শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। প্রতিটি ষড়যন্ত্রই ছিল অভিনব।

এসব ষড়যন্ত্রের মধ্যে সবচেয়ে অভিনব ও জটিল ছিল ক্যাস্ত্রোর চুরুটের মধ্যে বিস্ফোরক দ্রব্য রাখা। ওই চুরুটের মধ্যে যে পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য রাখা হয়, তা তার মাথা উড়িয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল। কিন্তু এ ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়। ক্যাস্ত্রোকে দুর্বল করতে একবার তার জুতো ও চুরুটের মধ্যে রাসায়নিক দ্রব্য রাখা হয়। এর প্রভাবে তার শরীরের সব চুল পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। বিভিন্ন সময়ে তার খাবারে বিষ রেখে হত্যার চেষ্টা করা হয়। তার ব্যবহৃত কলমে বিষযুক্ত সুচ রেখে ও পোশাকে জীবাণু ছড়িয়েও তাকে হত্যার চেষ্টা চালায় চালানো হয়েছিল।

সিআইএর আরেকটি ষড়যন্ত্র ছিল সাবেক স্ত্রী মিরতাকে হাত করে কাস্ত্রোকে হত্যার চেষ্টা। বিষযুক্ত ক্যাপসুল দিয়ে তাকে হত্যা করার ফন্দি আঁটা হয়। কোল্ডক্রিমের কৌটায় রাখা হয় এই ক্যাপসুল। কিন্তু এ ষড়যন্ত্রের কথা জেনে ফেলেন কাস্ত্রো। তিনি মিরতার হাতে পিস্তল তুলে দিয়ে তাকে বিষ দিয়ে নয়, সরাসরি গুলি করে হত্যা করতে বলেন। মিরতা তা পারেননি।

শুধু হত্যার চেষ্টাই নয়, ক্যাস্ত্রোর ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টাও করা হয়েছে বহুবার। একবার এক বেতারকেন্দ্রে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন ফিদেল। এ সময় স্টুডিওতে নেশাজাতীয় দ্রব্য ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এর প্রভাবে অদ্ভুত আচরণ করতে থাকেন ফিদেল। বিচলিত হয়ে পড়ে পুরো কিউবা। তবে এবারও ব্যর্থতার পাল্লা ভারী হয় প্রতিপক্ষের।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে শাসনামলের শেষের দিকে ২০০০ সালে পানামা সফরে যান ক্যাস্ত্রো। সেখানেও তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। একটি মঞ্চে বক্তৃতা দেওয়ার কথা ছিল তার। সেই মঞ্চে ভাষণ ডেস্কে ৯০ কেজি বিস্ফোরকদ্রব্য রাখা হয়। ক্যাস্ত্রোর নিরাপত্তাকর্মীরা এই চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন।

ক্যাস্ত্রোকে হত্যার ষড়যন্ত্র নিয়ে পরবর্তী সময়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র তৈরি করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক চ্যানেল ফোর। ‘৬৩৮ ওয়েজ টু কিল ক্যাস্ত্রো’ নামের ওই প্রামাণ্যচিত্রে দেখানো হয়—কত কৌশলে তাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে তার শত্রুরা। ২০০৬ সালে যুক্তরাজ্যে সম্প্রচার করা হয় এটি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: