সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ২৬ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে তিনটি বাসায় ডাকাতি : ৮ জন গুরুত্বর অসুস্থ্য

01-daily-sylhet-dakati-news-2মো.মোস্তাফিজুর রহমান, কমলগঞ্জ:: খাদ্য ও পানিতে চেতনানাশক মিশিয়ে রাতে জানালার গ্রীল ভেঙ্গে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগরে দুইটি চারতলা ভবনের তিনটি বাসায় অভিনব পন্থায় ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাতদল তিনটি বাসা থেকে প্রায় সাত লক্ষাধিক টাকার স্বর্ণালংকার লুটে নেয়। চেতনানাশকে তিনটি পরিবারের শিশু ও নারীসহ ৮ জন গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে একজনকে আশংকাজনক ভাবে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়ছে। বুধবার (২৩ নভেম্বর) দিবাগত রাতে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার শমশেরনগর বিমান বন্দর সড়ক আবাসিক এলাকার হাজী এখলাছুর রহমানের চারতলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ভাড়াটে প্রবাসী মোনায়েম আহমদের ফ্ল্যাটে বুধবার রাত ৯টায় রান্না ঘরের ফিল্টারের পানি পান করে তিন ছাত্রী ঘুমিয়ে পড়ে। এ ফ্ল্যাটের গৃহিনী ফিল্টারের পানি পান না করায় তিনি কয়েকজন স্বজন নিয়ে আকস্মিকভাবে ঘুমিয়ে পড়া তিন ছাত্রীকে নিয়ে ঘটনার পর থেকে ব্যস্ত থাকায় তার ঘরে ডাকাতি হতে পারেনি। এ ফ্ল্যাটে চেতনানাশকে অসুস্থ্য বিএএফ শাহীন কলেজ পড়ুয়া ৫ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষার্থী মায়মোনা মোনায়েমকে বিশেষ চিকিৎসা দেয়ার পর অসুস্থ্য অবস্থায় পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে।

ইয়ামিছ আলীর তিন তলা ভবনের দ্বিতীয় তলার ভাড়াটে আবু সাদেকের এক কক্ষের ও তৃতীয় তলার উপজেলা এলজিইডি সহকারী প্রকৌশলী মামুন ভূঁইয়ার বাসার জানালার গ্রীল ভেঙ্গে সুযোগ সন্ধানী ডাকাত সদস্যরা রান্না করা খাদ্যে চেতনানাশক মিশিয়ে আত্মগোপন করে থাকে। রাত গভীর হলে ডাকাত সদস্যরা দু’ফ্ল্যাটের আলমারী তছনছ করে প্রায় ১২ ভরি পরিমাণ স্বর্ণালঙ্কার লুটে নিরাপদে বেরিয়ে যায়। লুটে নেওয়া স্বর্ণালঙ্কারের বাজার মূল্য ৬ লক্ষাধিক টাকা হবে।

প্রতিবেশীরা গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় তিনটি ফ্ল্যাটের প্রকৌশলী মামুন ভুঁইয়া, তার ছেলে-মেয়ে,স্ত্রীসহ ছয়জন কে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করেন। অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় প্রকৌশলী আল মামুনকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্থর করা হয়। অপর দিকে প্রবাসী মোনায়েম আহমদের ফ্ল্যাটের দুই ছাত্রীকে কুলাউড়া উপজেলা সদরে মুসলিম এইড হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক ও শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় এলাকার ভাড়াটের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, হাজী এখলাছুর রহমানের ভবনের দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটের রান্না ঘরের জানালার পাশে থাকা পানির ফিল্টারে বাহির থেকে চেতনা নাশক মিশানো হতে পারে।
কমলগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী কিরণ চন্দ্র দেবানাথ বলেন, তার সহকারী প্রকৌশলী মামুন ভুঁইয়ার অবস্থা আশঙ্কা জনক। তিনি নিজে তাকে নিয়ে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে গেছেন।

কমলগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. বদরুল হাসান জানান, রাতে কোন এক সময় র্দুবৃত্তরা বাসার পানিতে নেশা জাতীয় কোন কিছু মিশিয়ে এ ঘটনাটি ঘটাতে পারে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। জোর তদন্ত চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: