সর্বশেষ আপডেট : ৪৪ মিনিট ১৪ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অবশেষে প্রকাশ পেল নাসিরকে অবহেলার মূল কারণ!

9স্পোর্টস ডেস্ক: চলছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চতুর্থ আসর। এই আসরের খেলার পর পরই নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ১০ ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে উড়াল দেবে বাংলাদেশ দল।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে এই সিরিজ। এর আগে ১০ দিন অস্ট্রেলিয়ায় ক্যাম্পিন করবে টাইগাররা। এই সিরিজ উপলক্ষ্যে ২২ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াড ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

ইংল্যান্ডে সিরিজে একাদশে জায়গা হলেও নিউজিল্যান্ড সফরে ২২ সদস্যের স্কোয়াডে জায়গা হয় নি মি.ফিনিসার খ্যাত অলরাউন্ডার নাসির হোসেনের।

নাসির ২২ সদস্যের দলে সুযোগ না পাওয়ার ব্যাপরা জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘শর্টার ও লংগার ভার্ষনে সাত নম্বরে ব্যাট করার জন্য অলরাউন্ডার হিসেবে সাব্বির ও সৈকত এগিয়ে আছে। লংগার ভার্ষনে সৌম্যকেও ওখানে বিবেচনা করতে হয়েছে। এ ছাড়া মিরাজ ও শুভাগত হোম আছে স্পিনিং অলরাউন্ডার হিসেবে। এখন এই সাত-আট নম্বরের জন্য তিন ফরম্যাটে আমরা পাঁচ জনের বেশী তো বিবেচনা করতে পারি না। ফলে নাসির আসলে টিম কম্বিনেশনের জন্যই বাদ পড়েছে।’

স্কোয়াডে অন্যান্যদের অবস্থান দেখলে মনে হতেই পারে নাসিরের জায়গা হতে পারত শুভাগত হোমের জায়গায়। শুভাগত ও নাসির দুজনই ডানহাতি অলরাউন্ডার। অভিজ্ঞতার দিক থেকে নাসির অনেক বেশি পরিপক্ক।

নাসির এবং শুভাগত ভিন্নধর্মী খেলোয়াড়। কিছু দিন আগে অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ডের সাথে টেস্টে খেলেন শুভাগত ও ওয়ানডেতে খেলেন নাসির। নাসির ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচে ব্যাট হাতে করেন ৩১ রান আর বল হাতে পেয়েছেন ২ উইকেট।

অপরদিকে শুভাগত ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঢাকা টেস্ট খেলেছিলেন, যেটা বাংলাদেশের ইতিহাসে ঐতিহাসিক জয়। সেই টেস্টে শুভাগত দুই ইনিংসেই বল হাতে ব্যার্থ হন। কোন উইকেটও নিতে পারেন নি। টেস্টের ১ম ইনিংসে ৬ রানে আউট হলেও ২য় ইনিংসে ২৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

নাসির এবং শুভাগত দুজনই ব্যার্থ হয়েছেন তাদের নিজ নিজ অবস্থানে। কিন্তু অভিজ্ঞতার দিক থেকে নাসির শুভাগত থেকে এগিয়ে। এইবার আসুন নতুন সম্ভাবনাময়ী দুই ক্রিকেটার মোসাদ্দেক এবং মিরাজকে নিয়ে কথা বলা যাক। মোসাদ্দেক ব্যাটিংয়ে নাসির এবং শুভাগত হোমের থেকে অনেকাংশে এগিয়ে।

টেস্ট, ওয়ানডে, টি- টোয়েন্টি, ফাস্ট-ক্লাস, লিস্ট ‘এ’, টোয়েন্টি ২০ তে মোসাদ্দেকের ব্যাটিং গড় যথাক্রমে ৩৮.৬৬, ১৫, ৭০.৮৯, ৪৫.৩৮, ৩৭.৪২। বোলিংয়ে নিজেকে যদিও ঠিকভাবে মেলে ধরতে পারেননি।

অন্যদিকে মিরাজ যদিও ব্যাট হাতে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে নিজেকে মেলে ধরেছিলেন, কিন্তু ইংল্যান্ড টেস্টে নিজেকে ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রমাণ করতে পারেননি। অবশ্য তার বোলিংয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে জয়ের স্বাদ পায় টাইগার বাহিনী।

দুই টেস্ট মিলে সর্বমোট ১৯ উইকেট পান তিনি, তার মধ্যে তিনটি ইনিংসেই ৫ উইকেট বা তার বেশী উইকেট পান। সুতরাং এই দুইজন খেলোয়াড় নিজেদের ফর্মে থাকলে দলে নাসির বা শুভাগত এর জায়গা করে নেওয়াটা কষ্টকর হবে। তখন দল গঠিত হবে এইভাবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: