সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠানে আইনি বাধা দূর হয়েছে বিয়ানীবাজার পৌরসভার

1451240521_77360_153বিয়ানীবাজার সংবাদদাতা ::
বিয়ানীবাজার পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠানে আইনি বাধা দূর হয়েছে। গত সপ্তাহে প্রধান বিচারপতি এস.কে সিনহার নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের এক রায়ে এখানকার পৌরসভার নির্বাচন আয়োজনে দীর্ঘদিনের জটিলতার অবসান হয়।

মামলা সূত্র জানায়, সদর ইউনিয়নসহ আশপাশের কিছু এলাকা নিয়ে বিয়ানীবাজার পৌরসভা গঠনের পর তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রশাসকের দায়িত্ব দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। তখনও নির্বাচিত সদর ইউপি চেয়ারম্যান তফজ্জুল হোসেনের মেয়াদ বাকি ছিল। তিনি মেয়াদ পূর্তি এবং প্রশাসক নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেন। আদালত তাঁর দায়েরকৃত রিট পিটিশন আমলে নিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করেন। এরপর থেকে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী তফজ্জুল হোসেন প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করছেন।

রায় নিয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে পৌর প্রশাসকের ভাই ময়নুল হোসেন বলেন, পূর্ণাঙ্গ রায়ে আদালত কি নির্দেশনা দিয়েছেন তা দেখে আইনজীবীর সাথে পরামর্শ সাপেক্ষে পৌরবাসীর অধিকার সুরক্ষায় ব্যবস্থা নেয়া হবে। পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শুকুর জানান, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে নির্বাচনকালীন পর্যন্ত কে দায়িত্ব পালন করবেন, এ ধরনের কোনো স্পষ্ট নির্দেশনা নেই। তবে আদালত দ্রুত নির্বাচন আয়োজন করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র হতে আগ্রহী এবং সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের অপেক্ষা যেন আর সইছে না। মেয়র পদে আগ্রহী এখানকার প্রায় এক ডজন প্রার্থী এবং কাউন্সিলর পদে আগ্রহী আরো অন্তত ৬০জন প্রার্থীর সরব পদচারণায় মুখর এখন পুরো পৌর এলাকা। বিয়ানীবাজার পৌরসভায় মেয়র পদে বর্তমান প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন, আওয়ামী লীগ থেকে সভাপতি আব্দুল হাছিব মনিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জাকির হোসেন, সহদফতর সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শুকুর, বিএনপি থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি নজরুল হোসেন, পৌর সভাপতি আবু নাসের পিন্টু, জাসদ থেকে শমসের আলম, জাতীয় পার্টি থেকে সাহেদ আহমদ নির্বাচন করতে পারেন। জামায়াতে ইসলামী এখানে কোনো প্রার্থী না দিলেও পৌর এলাকার ১, ২, ৪, ৫, ৬ এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলার প্রার্থী মনোনয়ন দেবে।

সার্বিক বিষয় নিয়ে তফজ্জুল হোসেন জানান, নির্বাচন যখনই হোক, আমি সে সময় পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে যাব। এতে কোনো আইনি সমস্যা নেই।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: