সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

যে অদ্ভুত কারণে বাংলাদেশি দুই টাকা ৫ রুপীতে কিনছে ভারতীয়রা

full_1030762821_1479279774-1আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সম্প্রতি বেনাপোল চেকপোস্টের নোম্যান্সল্যান্ড থেকে বাংলাদেশি দুই টাকার নতুন নোট ভারতে পাচারকালে বিজিবির হাতে আটক হয় দুই ভারতীয় নাগরিক। যশোরের বেনাপোলে এক মাসেই দুই দফায় দুই টাকার নোটের বড় চালান সহ এ দুজন ভারতীয় নাগরিককে আটক করে বিজিবি।

মাসের শুরুর দিকে উদ্ধার করা হয় ২৬ হাজার ২ টাকার নোট । যার মোট অর্থমূল্য ৫২ হাজার টাকা। এরপর এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবার জব্দ করা হয় দুই টাকার নোটের আরো বড় চালান, যার মোট মূল্য ৮২ হাজার টাকার বেশি।

জানা গেছে, ভারতে মাদক সেবীদের অনেকের কাছে নেশাদ্রব্য গ্রহণের জন্য বাংলাদেশের নতুন দুই নোট খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ফলে সীমান্তের চোরাইপথ এবং আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচারের চেষ্টা দেখা যাচ্ছে বারবার। ভারতের বাজারে এই দুই টাকাই প্রতিটি ৫ রূপি পর্যন্ত মূল্যে বিক্রি করা হয়ে থাকে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বেনাপোল বন্দর থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেছেন, “এগুলো ইন্ডিয়ায় নিয়ে যাচ্ছিল। সেখানে এসব সেখানে হেরোইন বা ইয়াবা সেবনের জন্য ব্যবহার করা হতে পারে”।

এসব নোটের মাধ্যমে পাইপ তৈরি করে হেরোইন ও ইয়াবা গ্রহণ করে মাদকাসক্তরা। সিগারেটের প্যাকেটের ভিতরে থাকা রাংতাও একাজে ব্যবহার করা হয়। তবে এখন অনেকের কাছেই আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের নতুন দুই টাকার নতুন নোট। তিন মাস আগে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিপুল পরিমাণে দুই টাকার নোট চীনে পাচারের চেষ্টার সময় জব্দ করা হয়েছিল।

ভারতে যারা নেশা করেন তাদের ভাষায়, পান্নী অর্থাৎ পাইপ তৈরিতে বাংলাদেশের দুই টাকার নতুন নোট ব্যবহার করা হয়। হেরোইন ও ইয়াবা আগুনের তাপে গরম করলে তরল হয়ে যায়। ওই তরল পদার্থ থেকে একটি ধোঁয়া বের হয়। সেই ধোয়া পান্নী বা পাইপের মাধ্যমে সেবন করতে হয়। আগে এ ধরনের পাইপ তৈরিতে আগে ব্যবহৃত হতো সিগারেটের প্যাকেটের ভিতরে থাকা জরির কাগজটি।

অন্য কাগজের পাইপ আগুনের অল্প তাপেই পুড়ে যায়। একবার নেশা করতে হলে তিন/চার বার পাইপ পাল্টাতে হয়। এই ঝামেল থেকে মুক্তি পেতে বাংলাদেশি দুই টাকার নতুন নোট ব্যবহার করা হয়। এটি দিয়ে পাইপ তৈরি করলে একবারেই নেশার কাজ শেষ হয়। কারণ এ নোট বিশেষ ধরনের কাগজ দিয়ে তৈরি হওয়ায় তা সহজে আগুনে পোড়ে না ও সহজে পানিতে ভিজে যায় না। তাই ভারতে মাদকসেবীদের কাছে নেশার পরিপূর্ণ সুখটান দিতে বাংলাদেশি দুই টাকার নোট খুবই জনপ্রিয়!

ভারতীয় অসাধু ব্যবাসয়ীরা অধিক মুনাফার লোভে পাসপোর্ট এবং চোরাই পথে বাংলাদেশে এসে দুই টাকার নতুন নোট পাচারে জড়িত। ভারতীয় ১ টাকা ৮০ পয়সা দিয়ে বিনিয়োগ করলেই ২ টাকা ২০ পয়সা লাভ হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: