সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৩২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাষন্ড ইমামের কান্ড!

1-daily-sylhet-0-8স্টাফ রিপোর্টার:: জকিগঞ্জে ঘটেছে নির্মম ভাবে শিশু নির্যাতনের ঘটনা।সরকার আইন করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশু নির্যাতন বন্ধ করলেও মানা হচ্ছেনা তা। প্রায়ই স্কুল বা মাদ্রাসা থেকে আসছে শিশু নির্যাতনের খবর। তবে স্কুল বা মাদ্রসায় নয় এবার শিক্ষার্থী নির্যাতন করা হয়েছে মক্তবে।

জকিগঞ্জ সুলতান পুর ইউনিয়নের রহিমপুর জামে মসজিদের ইমাম আব্দুল ওয়াদুদ (৩৫) পাষণ্ডের মত পিটিয়েছেন মসজিদে মক্তবে আরবী পড়তে আসা আম্বিয়া বেগম (১২) কে। সে স্থানীয় গনিপুর কামালগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের ষষ্ট শ্রেনীর ছাত্রী। মক্তব শিক্ষক ওয়াদুদের বেদম প্রহারে সে বর্তমানে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজে ভর্তি। এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করেছেন আহত আম্বিয়ার ভাই সালেহ আহমদ।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, গত ৯ নভেম্বর বুধবার সকালে এলাকার মসজিদে আরবী পড়তে যায় আম্বিয়া ও তার বোন আমিনা (১৪)। আরবী পড়ার এক পর্যায়ে আম্বিয়া পেছনে ফিরে তাকালে মক্তব শিক্ষক ওয়াদুদ তাকে বাশের লাঠি দিয়ে ক্রমাগত পেঠাতে থাকেন । মার খেয়ে আম্বিয়া উচ্চ স্বরে কান্না শুরু করলে আরো বেশি উন্মুক্ত হয়ে পড়েন মসজিদের ইমাম ওয়াদুদ। এ সময় তিনি মক্তবে অধ্যয়নরত সকল শিশু কে ছুটি দিয়ে আম্বিয়া কে ইমামের কক্ষে নিয়ে দরজা বন্ধ করে পেঠাতে থাকেন। এতে আম্বিয়ার হাত,দুই পায়ের পাতা , কোমরের নিম্নাংশ গুরুত্বর ভাবে জখম হয়। এ সময় সাথে থাকা বোন আমিনা বাসায় এসে বিষয়টি জানালে বাড়ির মানুষ জন মসজিদে এসে দেখতে পান ইমাম ওয়য়াদুদের কক্ষ বন্ধ । ভেতর থেকে ভেসে আসছে আম্বিয়ার আর্তচিৎকার। তাদের ডাকে ওয়াদুদ দরজা খুললে আম্বিয়া কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন তার ভাই সালেহ আহমদ ও চাচাতো ভাই জাকির।15129923_10206007862314627_321587248_n-copy

এ সময় আম্বিয়াকে মারার কারন জিজ্ঞেস করলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ওয়াদুদ সহ তার আত্নীয় আব্দুর রউফ ,জিয়াব উদ্দিন,খলু মিয়া,ফয়সল আহমদ সহ অজ্ঞাত নামা আরো কয়েক জন আম্বিয়ার ভাইদের উপর দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আগাত করার উদ্দ্যেশে ঝাপিয়ে পড়েন । তাদের আঘাতে আহত হন আম্বিয়ার ভাই সালেহ ও জাকির।

শোরগোল শুনে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এলে আম্বিয়াকে উদ্ধার করে জকিগঞ্জ সরকারী হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নেয়া হয়। সেখান থেকে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে স্তানান্তর করেন। বর্তমানে আম্বিয়া সেখানেই আছে। তার অবস্থা আশ্ংকা মুক্ত নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এ ব্যাপারে আপোষ মীমাংসা করা চেষ্টা করায় মামলা করতে বিলম্ব হচ্ছে বলে জানান আম্বিয়ার পরিবার। তবে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তির সহায়তায় আম্বিয়াকে চিকিৎসার জন্য ৫০০০ টাকা দেওয়া হয়েছে। এলাকাবাসী অচিরেই পাষন্ড ইমাম ওয়াদুদের শাস্তি দাবি করেছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: