সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাহাড়ী ও অতিবৃষ্টিতে কমলগঞ্জের বন্যা : ৫শত হেক্টর উঠতি আমন ফসল ক্ষতিগ্রস্থ

unnamed-3মো.মোস্তাফিজুর রহমান,কমলগঞ্জ:: পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টিতে কমলগঞ্জে ধলাই নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে মুন্সীবাজার ও রহিমপুর ইউনিয়নে ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধের ২টি স্থান ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এতে বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে ৪ টি গ্রাম। তলিয়ে গেছে কৃষকের প্রায় ৫শত হেক্টর আধাপাকা আমন ধান। কমলগঞ্জ পৌরসভা এলাকার একটি বসত ঘর নদী গর্ভে বিলিন হলেও ১৪টি বসত ঘর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। এছাড়া আরো ৪টি স্থান ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুকিঁপুণবাঁধ ও বন্যা কবলিত গ্রামগুলো পরিদশর্ণ করেছেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.মাহদুুদল হক, মেয়র জুয়েল আহমেদ ,মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীসহ প্রশাসনের লোকজন।unnamed

গত শনিবার ও রোববারের টানা বৃষ্টিতে কমলগঞ্জের ধলাই নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে সোমবার (৭ নভেম্বর) বেলা ১১টায় মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সুরানন্দপুর ও রহিমপুর ইউনিয়নের কুশালপুর এলাকায় ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধে ২টি ভাঙ্গন দিয়েছে। প্রায় পাঁচ শত ফুট চওড়া করে ভাঙ্গন দিয়ে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি দ্রুত গতিতে ফসলি জমিতে প্রবেশ করছে। ঢলের পানিতে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়ন, মুন্সীবাজার, শমশেরনগর ও রহিমপুর ইউনিয়নের ব্যাপক এলাকার শষি আসা আমন ফসল তলিয়ে গেছে। ঢলের পানিতে মুন্সীবার ইউনিয়নের ঠাকুরের বাজার এলাকায় কমলগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কের বেশ কিছু এলাকা নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। অন্যদিকে ধলাই নদে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বাঁধের ভাঙ্গনে কমলগঞ্জ পৌরসভার আলেপুর গ্রামের মনাই মিয়ার বসত ঘর নদী গর্ভে বিলিন হয়। একই গ্রামে আরও ১৪টি বসত ঘর ঝুঁকিরপূর্ণ অবস্থায় আছে। কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ বলেন, এ গ্রাম এলাকায় আগে ১৫ ফুট চওড়া বাঁধ ছিল। পানির বেড়ে স্রোতের আঘাতে এ গ্রামের প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে এখন অবশিষ্ট ৫০ ফুটে এসে দাঁড়িয়েছে। একটি ঘর নদী গর্ভে বিলিন হলেও আরও ১৪টি বসত ঘর বিলিনের অপেক্ষায় আছে। এসব বসত ঘরের লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে বলা হয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুদ্দীন সোমবার সকালে মুন্সীবাজার ও রহিমপুর ইউনিয়নে ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধের ২টি স্থানে ভাঙ্গন ও ভাঙ্গন দিয়ে পানি প্রবেশ করে আমন ফসল তলিয়ে যাবার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রাথমিকভাবে দেখা গেছে ৫শ হেক্টর জমির আমন ফসল তলিয়ে গেছে।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহমুদুল জানান, ধলাই নদে প্রতিরক্ষা বাঁধের ২টি স্থানে ভাঙ্গনের কারনে ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। উপজেলা প্রশাসন বন্যার বিষয়টি সার্বক্ষনিক নজরদারী করছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: