সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২১ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিনেমা শিল্পকে বাঁচাতে চঞ্চলের আকুতি

1477488238বিনোদন ডেস্ক:: অমিতাভ রেজা পরিচালিত বহুল আলোচিত আয়নাবাজির পাইরেসি ঠেকাতে দর্শকদের আহ্বান জানিয়েছেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রকাশ করা একটি ভিডিওতে তিনি দর্শকদের এই আহ্বান জানান।

বাংলাদেশের মন্দা সিনেমা শিল্পে আয়নাবাজি নতুন আলোড়ন তৈরি করেছিল। কিন্তু সিনেমাটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে মুক্তি দেয়ার পর তা ব্যাপকহারে পাইরেসি হচ্ছে। সিনেমাটি ফেসবুকে লাইভ প্রচার করাসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ডাউনলোডের জন্যও পাওয়া যাচ্ছে। মুক্তির পর থেকে চলচ্চিত্রটির প্রায় প্রতিটি প্রদর্শনীই ছিল হাউজফুল। এরপর থেকে প্রেক্ষাগৃহগুলোতেও দর্শকসংখ্যা বেশ কমে গেছে।

এই প্রেক্ষাপটে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে দেয়া এক পোস্টে সিনেমার প্রধান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী বলেন, আসলে আমরাই আমাদের বন্ধু, আমরাই আমাদের শত্রু। এ খেলায় কে জিতবে, বন্ধু নাকি শত্রু? ভালো না মন্দ? আসল না নকল? আয়নাবাজির পাইরেসি হয়েছে, ফেসবুকের ওয়ালে কেউ কেউ শেয়ার করছেন, ট্যাগ করেছেন। এটা খুবই দুঃখজনক।

নিজের সিনেমা নিজেই হলে টিকেট কেটে দেখেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, সিনেমা রিলিজ হওয়ার সময় আমাদের প্রতিজ্ঞা ছিল কলাকুশলীরা সবাই টিকেট কেটে আয়নাবাজি দেখবো। আমি এই পর্যন্ত ৫ দিন বন্ধু বান্ধব আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে হলে গিয়ে সিনেমাটি দেখেছি। আমি নিজের পকেটের টাকা দিয়ে টিকেট কেটে আয়নাবাজি দেখেছি। কারণ আমরা সবাই চাই, এই দেশের সিনেমা শিল্পটি বেচে উঠুক। এবং সেটার পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান আপনাদের, আপনারাই আয়নাবাজিকে বাচিয়ে রেখেছেন, এবং বাঁচিয়ে রাখবেন। আপনারা যদি হলে এসে টিকেট কেটে সিনেমা দেখেন তাহলে আমাদের সিনেমা শিল্প বাঁচবে। আসুন পাইরেসি প্রতিরোধে আমরা সবাই এক হই।

আয়নাবাজি’র মতো চলচ্চিত্র দেশের মানুষের সম্পত্তি উল্লেখ চঞ্চল বলেন, আয়নাবাজি রিলিজ হওয়ার আগে ছিল আমাদের সম্পত্তি, কিন্তু রিলিজ হওয়ার পরে আয়নাবাজি সারা দেশের মানুষের সম্পত্তি। এটা রক্ষা করার দায়িত্ব দর্শকদের। আপনাদের কাছে অনুরোধ, ফেসবুকের ওয়ালে দেয়া পাইরেসিওয়ালা আয়নাবাজি দেখবেন না। আপনারা হলে গিয়ে টিকেট কেটে আয়নাবাজি দেখবেন। আপনারা যদি হলে গিয়ে আয়নাবাজি দেখেন, তাহলে আয়নাবাজি বাঁচবে, বাংলাদেশের সিনেমা বাঁচবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: