সর্বশেষ আপডেট : ২৪ মিনিট ৫ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এসএমপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ : প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির এক দশক

ledporjoton_lead_logo-copyবিশেষ প্রতিবেদক ::
সমস্যা আর সংকট যেন পিছু ছাড়ছে না সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি)। নানা সমস্যা আর সংকট নিয়েই এক দশক পার করে আজ ১১ বছরে পা রাখল এসএমপি। গত এক দশকে তাদের কার্যক্রম চলেছে প্রাপ্তির চেয়ে বেশি অপাপ্তি নিয়ে। এ যেন নেইয়ের মধ্যেই মহানগর পুলিশের বসবাস।
নিজস্ব কার্যালয় নেই, অফিসার দের বসবাসের ভবন নেই, পর্যপ্ত লোকবল নেই, যানবাহন নেই, আবাসন ব্যবস্থারও নাজুক অবস্থা। এত নেইয়ের মধ্যেও আছে এসএমপি পুলিশের কার্যক্রম। রয়েছে সফলতাও।
আজ বুধবার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এসএমপি ঘটা করে কোনো অনুষ্ঠানাদি পালন না করার পেছনেও যে শব্দটি জড়িয়ে রয়েছে, তাও হচ্ছে ‘নেই’। আর প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে আজও নিজস্ব ঠিকানা খোঁজে পায়নি মহানগর পুলিশ। তাদের বসবাস পরের জমি আর পরের ঘরে।
সূত্র মতে, গত এক দশকেও হয়নি এসএমপির নিজস্ব কার্যালয়। পানি উন্নয়ন বোর্ডের রেস্ট হাউসে চলছে কমিশনার কার্যালয়ের সার্বিক কাজ। রেস্ট হাউসে সাধারণত অতিথিরা থাকেন। নিজস্ব ঠিকানা না হওয়ায় এসএমপি যেন অতিথি হয়েই আছে।
২০০৬ সালে ২৬ অক্টোবর সিলেট মহানগরে বিশাল আয়তনে এলাকা নিয়ে দুটি থানা দিয়ে মহানগর পুলিশের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম দিকের ওই দুটি থানা হচ্ছে, কোতোয়ালি ও দক্ষিণ সুরমা। পাঁচ বছর পর ২০১১ সালের অক্টোবর মাসে দুটি থানা থেকে সেবার মান বাড়াতে ৬টি থানায় উন্নীত হয় এসএমপি। মহানগরের উত্তর এলাকায় কোতোয়ালি থানা ছাড়াও এয়ারপোর্ট, জালালাবাদ থানা গঠন করা হয়। আর মহানগরের দক্ষিণে দক্ষিণ সুরমা থানার সাথে মোগলাবাজার ও শাহপরান থানা করে মোট ৬টি থানা নিয়ে নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করে এসএমপি। ২০০৬ সালে যাত্রাকালে ১৩শ’ লোকবল নিয়ে কার্যক্রম শুরু হয়। ২০১১ সালে অক্টোবর মাসে নতুন ৪ টির থানা চালু হলে এর মধ্যে বাড়ানো হয় লোকবলও। আর নিজস্ব ভূমিতে কোতোয়ালি, দক্ষিণ সুরমা ও শাহপরান থানায় কার্যক্রম চললেও প্রতিষ্ঠার পাঁচ বছরেও স্থায়ী ঠিকানা হয়নি, এয়ারপোর্ট, জালালাবাদ ও মোগলাবাজর থানার। এই তিনটি থানার ওসিরা জানান, মোগলাবাজার থানার নিজস্ব ভবন না থাকায় প্রতি মাসে ৩৫ হাজার টাকা, জালালাবাদ থানায় প্রতি মাসে ১ লাখ টাকা ও এয়ারপোর্ট থানায় প্রতিমাসে ৬৫ হাজার টাকা বাসাভাড়া দিতে হচ্ছে। তিনটি থানায় প্রতি মাসে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা বাসা ভাড়া দিতে হচ্ছে। আর এ জন্য সরকারকে বাসাভাড়া বাবত প্রতি বছর অতিরিক্ত প্রায় ২৪ লাখ টাকা দিতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়; ছয়টি থানা নিয়ে গঠিত মহানগর পুলিশের (এসএমপি) লোকবল, যানবাহন, আবাসন, স্যানিটেশন সংকট যেন নিত্যদিনের সঙ্গী। ছয়টি থানা এলাকায় ৮ টি পুলিশ ফাঁড়ি ও দুটি পুলিশ তদন্তকেন্দ্র থাকলেও পুলিশের দায়িত্ব পালনের জন্য কোনো যানবাহন নেই। ওই সকল ফাঁড়ি পুলিশ সদস্যদের সিএনজি অটোরিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহন রিকুইজিশন করে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে।
এছাড়াও এসএমপির মঞ্জুরিকৃত লোকবলের সংখ্যা ২৯’শ ৫৩ জন হলেও বর্তমানে আছেন ২৬শ’ ৯২ জন। মঞ্জুরিকৃত জনবলের চেয়ে কম আছেন ৪১৫ জন।
এসএমপিতে রয়েছে যানবাহন সমস্যাও। ছয়টি থানার এসি ও ওসির গাড়ি ছাড়া পুলিশ-ডিউটির জন্য কোনো থানায়ই গাড়ি নেই। কার্যক্রম চালাতে প্রতিদিন প্রায় ৮০টি গাড়ি রিকুইজিশন করতে হয়। বর্তমানে ৯৭টি গাড়ি রয়েছে এসএমপিতে। এর মধ্যে মোটরসাইকেল রয়েছে ৫০টি।
নিজস্ব কোনো হাসপাতালও নেই এসএমপির। নগরীর মধুশহীদে সিলেট জেলা পুলিশের একমাত্র হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে হয় মহানগর পুলিশকে। অনেক সময় এ হাসপাতালে স্থান না পেলে তাদের যেতে হয় সিলেট ওসমানী হাসপাতালে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা থেকে শুরু করে কারো আবাসন ব্যবস্থা না থাকায় পুলিশ সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। পুলিশ লাইনের ১৭০ জন ধারণ ক্ষমতা তিনতলা একটি ভবনে ৭শ’ পুলিশকে গাদাগাদি করে বসবাস করতে হচ্ছে। ভবনের পাশে একটি কক্ষ তৈরি করা হয়েছে। ওই স্থানেও কষ্টে থাকছেন অনেক পুলিশ সদস্য।
তবে অনেক অপ্রাপ্তির মধ্যেও কিছু প্রাপ্তি রয়েছে এসএমপির। নিজস্ব একটি পূর্ণাঙ্গ পুলিশ রাইন স্থাপনের জন্য ২৫ একর ভূমি অধিগ্রহনের কার্যক্রম শেষ হয়েছে। মহানগর পুলিশ লাইন স্থাপন করতে কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।
মহানগর পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার এসএম রুকন উদ্দিন বলেন, গত ১০ বছরের চেয়ে এসএমপি বর্তমানে অনেক ভালো অবস্থানে রয়েছে। নিজস্ব পুলিশ লাইন করতে ভূমি হয়েছে, আগের চেয়ে লোকবল রড়েছে। যানবাহনসহ যে অন্যান্য সমস্যা সমাধানেও কাজ চলছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের তিনটি থানা নিজস্ব ভূমিতে চলছে। বাকি তিনটি থানারও নিজস্ব ভূমি একসময় হবে। পর্যায়ক্রমে এগিয়ে যেতে হবে। মহানগর পুলিশের প্রধান কার্যালয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মন্ত্রণালয়ে কয়েক দফা আলোচনা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী ও পানি উন্নয়নমন্ত্রী বিষয়টি অবহিত রয়েছেন। এসএমপির কার্যালয়ের ভূমি প্রাপ্তি ও ভবন নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। পুলিশ কমিশনার দেশের বাইরে থাকায় এবার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী তিনি ফিরে আসার পর পালন করা হবে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: