সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বুধবার, ২৩ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অনশন সফল হলো প্রেমিকা আয়নার

manikganj-pic-25-10-16-696x418নিউজ ডেস্ক:
মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলার মুন্সিচড় গ্রামে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করা সেই প্রেমিকার বিয়ে সম্পন্ন হল সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুল্লাহ সরকারের হস্তক্ষেপে।

সাটুরিয়ায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকার অনশন এমন শিরোনামে শনিবার ১ম স্বচিত্র প্রতিবেদন পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজ প্রকাশিত হয়। এ সংবাদটি প্রকাশ হওয়ার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যপক আলোচনায় আসে।

পরে পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজ টি দেখে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুল্লাহ সরকার বিষয়টি তদারকি শুরু করেন।

জানা যায়, সাটুরিয়া উপজেলার মুন্সিচড় গ্রামে শনিবার বিকেল ৪ টা থেকে বিয়ের দাবিতে প্রেমিক রাকিব হোসেন (২৬) বাড়িতে অনশন শুরু করেন কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী তানিসা আক্তার আয়না।

মেয়েটিকে মারধর করে বের করে দেবার চেষ্টা করলে গ্রামবাসীর সহাতায় সে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করে।

প্রেমিকা অনশন শুরু করার পর থেকে প্রেমিক ও তার পরিবারের সদস্যরা বাড়ি তালা দিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে রোববার বিকেলে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুল্লাহ সরকার ফোর্স পাঠায় ঘটনাস্থলে।ফোর্স গিয়ে প্রেমিক- প্রেমিকার সম্পর্ক আছে সত্যতা পাওয়ার পর প্রেমিকাকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।আর প্রেমিকের পরিবারকে দুই দিন সময় দেওয়া হয় আনুষ্ঠিকভাবে বিয়ের কাজ সম্পাদন করার জন্য।

পুলিশে দুই দিন পাও হওয়ার আগেই মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রেমিক এ রাকিব হোসেন ও অনশন করা প্রেমিকা তানিসা আক্তার আয়নার সঙ্গে বিয়ে সম্পন্ন হয়।

বিষয়টি প্রেমিকার বাবা আব্দুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার বারাহির চড় গ্রামের আব্দুর রহমান এর কন্যা সিংগাইর ডিগ্রী কলেজের বিএর ১ম বর্ষের ছাত্রী তানিসা আক্তার আয়না (১৯) সঙ্গে সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটী ইউনিয়নের মুন্সিচড় গ্রামের শওকত হোসেনের ছেলে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ অধ্যয়নরত রাকিব হোসেন (২৬) এর সঙ্গে মোবাইলের মাধ্যমে ২ বছর আগে কথা বার্তা শুরু হয়। এরপর তাদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে দৈহিক সর্ম্পক হয়। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিগত ৮ মাসে কক্সবাজারসহ বিভিন্ন হোটেলে রাত্রি যাপন করে।

গত কয়েকদিন ধরে বিয়ের চাপ দিলে রাকিব বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। পরে উপায় না পেয়ে শনিবার বিকেল ৪ টার দিকে রাকিবের বাড়িতে অনশন শুরু করে। রাকিবের সঙ্গে বিয়ে না হলে সে আত্মহত্যার হুমকি দেয় ।

এ ব্যাপারে মেয়ের পিতা আব্দুর রহমান জানান, এমন খরব পেয়ে শনিবার আমার পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু কোনো সমাধান আসে না। পরে এ নিয়ে পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজসহ অন্যান্য মিডিয়ায় আমার মেয়ের অনশন নিয়ে নিউজ প্রকাশ হওয়ার পর সাটুরিয়া থানার ওসি আমাকে সহযোগিতা করে। সে বালিয়াটী ইউপি চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমিন এর সঙ্গে পরার্মশ করে মেয়েকে আমার হাতে তুলে দেয় ও দুই দিন সময় বেধে দেন এবং বিয়ে না হলে আইনের আশ্রয় নিতে পরামর্শ দেয়।

কিন্তু ওসি সাহেবের দুই দিন পার হওয়ার আগেই মঙ্গলবার রাত ৮ দিকে আমার মেয়ের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে । এ জন্য আমি পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজ ও ওসি সাহেবকে বিশেষ ধন্যবাদ জানাই।

এ ব্যাপারে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুল্লাহ সরকার জানান, কলেজ ছাত্রী বিয়ের দাবিতে অনশন, এমন শিরোনামে পূর্বপশ্চিমবিডি. নিউজে ১ম সংবাদটি প্রকাশিত হয়, পরে অন্যান্য মিডিয়ায় এ নিউজটি প্রকাশিত হওয়ার পর, ঘটনা স্থলে আমার ফোর্স পাঠিয়ে এ প্রেমিক- প্রেমিকা একাধিকবার রাত্রি যাপন করেছে এমন সত্যতা পেলে তাদের উভয় পরিবারকে দুই দিনের মধ্যে বিয়ের জন্য চাপ দেওয়া হয়। পরে মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান মহোদয়ের আন্তরিক পরার্মশের প্রেক্ষিতেই মঙ্গলবার রাত ৮ দিকে অনশন করা প্রেমিকা তানিসা আক্তার আয়নার সাথে রাকিব হোসেনের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: