সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘সর্বোচ্চ স্বীকৃতি পেয়েছি, সব শক্তি দলের জন্য উৎসর্গ করবো’

obaydul-kader-1-696x418নিউজ ডেস্ক:
দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, এটি তার বিগত দিনের পরিশ্রমের সর্বোচ্চ পুরস্কার। এ জন্য তিনি দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমি আমার পরিশ্রমের পুরস্কার পেয়েছি। আমি আমার জীবনের সর্বোচ্চ পুরস্কার পেয়েছি, সর্বোচ্চ স্বীকৃতি পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমার রাজনৈতিক জীবনের সর্বোচ্চ স্বীকৃতি দিয়েছেন।

কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ একটি ঐতিহ্যবাহী দল। এ দায়িত্ব দিতে গিয়ে তিনি যে আস্থা আমার ওপর রেখেছেন। আমি আমার মেধা, ঘাম ও শ্রম, সব শক্তি সামর্থ্য দিয়ে নিজেকে উজাড় করে দিতে চাই।

দলের ভেতরে আরও গুণগত পরিবর্তন আনা এবং দলকে সামনের নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করে তোলাই নয়া নেতৃত্বের মূল কাজ হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, একই সঙ্গে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালনে কোনো সমস্যা হবে না। বরং দুটি কাজ এক সঙ্গে করলে আরও ভাল ফল আসবে।

সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম তার নাম প্রস্তাব করাকেই সম্মেলনের, দলীয় সভানেত্রীর চমক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, কাউন্সিলের আগে মিডিয়ায় নানাভাবে সমালোচনা করা হয়েছে। সমালোচনা সহ্য করা উচিত। যে সইতে পারে সে শুদ্ধ হয়। সমালোচনা নেতাদের শুদ্ধ করে। এত বড় সম্মেলন হয়ে গেল, এত প্রচারণা। কেউ শুনেছেন কোথাও কারও নামে স্লোগান দেয়া হয়েছে। বিলবোর্ডে কারও পক্ষে কোথাও প্রচারণা দেখেছেন? আওয়ামী লীগ গুণগতভাবে এগিয়ে গেছে। আচরণগতভাবে আওয়ামী লীগ আরও এগিয়ে যাবে। জনগণের কাছে দলকে আরও গ্রহণযোগ্য করার পথে এগিয়ে গেছি আমরা। আরও গুণগত পরিবর্তন হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি নিজেকে মন্ত্রী ভাবি না। দলের কর্মী ভাবি, শেখ হাসিনার কর্মী ভাবি। আমি রাস্তায় কাজ করতাম। পার্টির লোকেরা অনেক সমস্যার কথা বলতো। ছোটখাট সমস্যা রাস্তায় সমাধান করা যায়। এখন থেকে একদিকে রাস্তা দেখব, অন্যদিকে স্পটেই পার্টির লোকদের কথা শুনে সমস্যার সমাধান করব। এটা আমার জন্য বাড়তি লাভ।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কোনো অঞ্চলের নই। আমি সুনামগঞ্জ থেকে সুন্দরবন, তেঁতুলিয়া থেকে কুতুবদিয়া পর্যন্ত গোটা বাংলাদেশের সুবিশাল দায়িত্ব পেয়েছি। এখানে ব্যক্তির ঊর্ধ্বে পার্টি, পার্টির ঊর্ধ্বে দেশ। আমি নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করতে চাই। তিনি বলেন, আমি নিজেকে মন্ত্রী ভাবি না। জনগণের সেবক ভাবি। সেভাবেই সামনে কাজ করে যেতে চাই।

কাদের বলেন, ‘২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরের যে লক্ষ্য সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে কাজ করবো। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগকে আচরণে-উন্নয়নে দেশের সেরা দল হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।’

বিএনপি এই কমিটিকে অভিনন্দন জানানোর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটি রাজনৈতিক শিষ্টাচারের ব্যাপার। তবে তাদের শুভেচ্ছা অভিনন্দন মনে প্রাণে গ্রহণ করতে পারতাম যদি তারা আমাদের সম্মেলনে আসতো। তারা কথা দিয়ে কথা রাখলেন না। সম্মেলনে আসলে তাদেরকে কেউ বলতো না, ডাল ম্যা কুচ কালা হ্যায়।’

এ সময় তিনি আরো জানান, ‘আজ-কালের মধ্যে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর নেতাদের নাম, ৩-৪ দিনের মধ্যে সদস্যদের নাম প্রেস রিলিজ করে আপনাদের জানিয়ে দেওয়া হবে। সর্বোচ্চ এক সপ্তাহ সময়ও লাগতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সম্পাদক ডা. দীপু মনি, মাহবুবুল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক কার্যনিবর্হী সদস্য সুজিত রায় নন্দী, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: