সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বন্ধুদের সঙ্গ ছেড়ে দিয়েছেন ইসলামাবাদের চা ওয়ালা

arshad-1-550x330বিনোদন ডেস্ক:: পাকিস্তানের ইসলামাবাদের নীল চোখা চা ওয়ালার ভাগ্য বদলের পর নিজ বন্ধুদেরকেই ভুলে গেছেন। ছেড়ে দিয়েছেন তাদের সঙ্গে চলাফেরা। এমনটাই অভিযোগ করছে তার পুরনো বন্ধুরা।

বেসরকারি টেলিভিশন সামা নিউজের সূত্রে, চা ওলালা আরশাদ খানের বন্ধুরা অভিযোগ করেছেন, তারা আরশাদ খানের এ ধরণের আচরণে অবাক হয়েছেন। আরশাদ খানকে তারা মিস করছেন। তার হাতের চাও তারা অনেক মিস করছেন।
কোন এক বন্ধু রাগান্তি হয়ে হয়ে বলেছেন, আমারও মন চায় আরশাদ খানের মতো জনপ্রিয়তা পেতে। তাকেও মানুষ এভাবে পছন্দ করুক ও তার পেছনে ছুটে আসুক, যেভাবে আরশাদ খানের পেছনে মানুষ ছুটে আসে।
উল্লেখ্য, ফোটোগ্রাফার জাভেরিয়া বা জিয়া আলির তোলা ইসলামাবাদের এ চা ওয়ালার ছবি কিছুদিন আগে ভাইরাল হয় ইন্টারনেটে। এই ছবি দেখার পরে দু’দেশের মানুষই টুইটারে বহু মজার মন্তব্য করেন।

কিন্তু কে এই চা ওয়ালা? ফোটোগ্রাফার জাভেরিয়া এখন যদি ইসলামাবাদের সেই চায়ের দোকানে তাঁকে খুঁজতে যান, তবে নাও পেতে পারেন। কারণ জাভেরিয়ার ছবি ভাইরাল হওয়ার পরে সেই চা ওয়ালার জীবন রাতারাতি পাল্টে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই শ্যুট করে ফেলেছেন তাঁর প্রথম মডেলিং অ্যাসাইনমেন্ট। অবাক লাগলেও সত্যি। পাকিস্তানের রিটেল সাইট ফিটিন.পিকে তাঁদের বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে বেছে নিয়েছে ‘আরশাদ খান’কে। হ্যাঁ, এটিই চা ওয়ালার নাম।

পাকিস্তানি সংবাদপত্র ‘ডন’-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন জানাচ্ছে, আরশাদ জানতেনও না যে কোনও এক ফোটোগ্রাফার তাঁর ছবি তুলেছেন। ইন্টারনেটে তাঁকে নিয়ে যে তুলকালাম হচ্ছে সেসব খবর তাঁর কানে পৌঁছায়নি। কারণ ১৮ বছরের আরশাদ কখনও স্কুলে যাননি। চায়ের দোকানে কাজ করতে করতেই হঠাৎই তিনি দেখেন কয়েকটি ছোট বাচ্চার হাতে রয়েছে লিফলেট জাতীয় কিছু এবং সেখানে রয়েছে তাঁর ছবি। দৌড়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারেন যে, একটি হেলিকপ্টার থেকে এই কাগজগুলি ফেলা হয়েছে।

তখনও তিনি জানেন না যে তাঁকে হন্যে হয়ে খুঁজছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলি। শেষ পর্যন্ত আরশাদের স্টল যখন খুঁজে পাওয়া যায়, তখন এত লোকজন, ক্যামেরা ইত্যাদি দেখে প্রথমটায় ভয় পেয়ে যান আরশাদ এবং তাঁর মামা। চটজলদি গা ঢাকা দিয়েছিলেন আরশাদ এবং হুড়োহুড়ির মধ্যে নিজের ফোনটাও হারিয়ে বসেছিলেন। সেই দিনটা খুবই খারাপ কেটেছিল আরশাদের। কিন্তু কথায় বলে, কোনও ভাল কিছুর আগে খুব খারাপ একটা সময় আসে। আরশাদের ক্ষেত্রেও অনেকটা তাই হয়।

পরের দিন থেকেই একেবারেই পাল্টে যায় তাঁর জীবন। কারণ, তিনি পেয়ে যান পাকিস্তানের রিটেল সাইট ফিটিন-এর মডেলিং অ্যাসাইনমেন্ট। ক্যামেরার সামনে অত্যন্ত সপ্রতিভ হয়েই পোজ দিয়েছেন আরশাদ। বিশেষ করে স্যুট-বুট পরে তাঁকে দেখাচ্ছে দারুণ। এইভাবে জীবন ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে যাওয়ায় এখন খুবই খুশি আরশাদ এবং তাঁর মামা। গত তিন মাস হল আরশাদ এই চায়ের দোকানে বসছেন। পাকিস্তানের কোহাত-এ তাঁর আদি বাড়ি। ইসলামাবাদে এসে প্রকৃতপক্ষেই ভাগ্য খুলে গেল তাঁর। আর খুব তাড়াতাড়ি বিয়েরও পরিকল্পনা রয়েছে আরশাদের। সূত্র : ডেইলি পাকিস্তান উর্দু

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: