সর্বশেষ আপডেট : ৩৫ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পরিতৃপ্ত ঘুমের জন্য যে ৮টি অভ্যাস এড়িয়ে যাবেন

1476950913লাইফ স্টাইল ডেস্ক: আমাদের সারাদিনের পরিশ্রান্ত শরীরটাকে পরবর্তী দিনের জন্য কর্ম চনমনে করে তুলতে পরিতৃপ্ত ঘুমের কোন বিকল্প নেই। পরিপূর্ণ ঘুমই আপনার মাঝে ফিরিয়ে আনবে নতুন উদ্যমে কাজ করার পুরো শক্তি। আমাদের মাঝে অনেকেই ভালো ঘুম নাহওয়া নিয়ে বেশ হতাশায় ভুগেন এবং যার প্রভাব তাদের দৈনন্দিন কর্মব্যস্ত জীবনের উপর এসে পড়ে।

তবে নিচের এই ৮টি অভ্যাস থেকে বিরত থাকার মাধ্যমে আমরা অনেকাংশেই এই সমস্যা থেকে বের হয়ে আসতে পারি।

১. ব্যায়াম করা থেকে বিরত থাকা

নিয়মিত ব্যায়াম করা সুস্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং এটা ভালো ঘুম হওয়ার জন্য সহায়ক। তবে সেটা হবে ঘুমাতে যাওয়ার তিনঘণ্টা পূর্বে। কারণ শরীর চর্চার ফলে আপনার শরীরের আর্দ্রতা বৃদ্ধি পায় এবং এটা ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। ব্যায়াম করার জন্য দিনের শুরুটা সবথেকে উপযুক্ত সময়।

২. টিভি দেখা বা ইন্টারনেটে সময় কাটানো

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ঘুমের আগে টিভি,মোবাইল,ল্যাপটপ বা অন্য যে কোন ধরনের পর্দায় তাকিয়ে থাকার জন্য পর্দার উজ্জ্বল আলো ঘুমের সহায়ক মেলাটোনিন হরমোনের কর্মদক্ষতায় ব্যাঘাত ঘটায়। তাই ঘুমাতে যাওয়ার একঘণ্টা আগে আপনার ল্যাপটপ বন্ধ করুণ।

৩. গরম পানি দিয়ে শাওয়ার বা গোসল করা

শরীর চর্চার মত গরম পানি দিয়ে শাওয়ার বা গোসল করা ভালো ঘুমের জন্য সহায়ক। কিন্তু গরম পানি শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি করে এবং ঘামের সৃষ্টি করে যেটা ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। তাই ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে শরীর ঠাণ্ডা করে নিন।

৪. অধিক পরিমাণে পানীয় পান করা

অধিক পরিমাণে পানীয় পান করার ফলে মাঝরাতে আপনাকে টয়লেটে যেতে হতে পারে যেটা আপনার নিরবচ্ছিন্ন ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাবে। তাই ঘুমাতে যাওয়ার আগে ভরপেট পানি পান করা থেকে বিরত থাকুন।

৫. কাজের প্রতি অধিক মনোযোগ

স্কুল-সংশ্লিষ্ট বিষয় বা অন্য যে কোন কাজ যেটা আপনাকে গভীর রাত পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে করতে হয়। কাজের উপর অতিরিক্ত এই মনোযোগ আপনার মস্তিষ্কে এক ধরনের উদ্দীপনার সৃষ্টি করে যার জন্য ঘুম আসেনা।

৬. গভীর মনোযোগ দিয়ে গল্পের বই পড়া
যখন আপনি কোন বই পড়ে অতিরিক্ত মজা পান তখন বইটি ছেড়ে উঠতে মন চায় না। শুধু মনে হয় আরও কিছুটা পড়ি এভাবে ঘুমাতে যেতে অনেক রাত হয়ে যায়। ফলে নির্দিষ্ট সময়ে ঘুম থেকে উঠার তাড়া থাকার কারণে পরিপূর্ণ ঘুম হয় না।

৭. পোষা প্রাণী নিয়ে ঘুমাতে যাওয়া

অনেকে তাদের পোষা প্রাণী সঙ্গে নিয়ে ঘুমায়। তবে ঘুমের মাঝে ঐ প্রাণীর বিরক্তিতে হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে যেতে পারে।তাই ঘুমাতে যাওয়ার সময় এদেরকে দূরে রাখুন।

৮. তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে বিছানায় যাওয়া

‘ডোন্ট গো টু বেড অ্যাংরি” অর্থাৎ রাগান্বিত হয়ে ঘুমাতে যেওনা! প্রবাদটি পুরোপুরি সঠিক। গবেষণায় দেখা গেছে, ঝগড়া বা কোন ধরনের তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে ঘুমাতে গেলে ঘুম থেকে উঠা পর্যন্ত তার একটা ক্ষতিকর রেস থেকে যায় এবং ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। সুতরাং ঘুমাতে জাওয়ার আগে এসব সমস্যাগুলোর সমাধান করে ঘুমাতে হবে। কেয়ার২ ডটকম।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: