সর্বশেষ আপডেট : ২৫ মিনিট ৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘নতুনভাবে’ টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাদেশ

1476880068খেলাধুলা ডেস্ক: সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ জুলাই টেস্ট খেলেছিলো বাংলাদেশ। এরপর পরের ১৪ মাস আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাদা পোশাকে লাল বলের দেখা পায়নি টাইগাররা। তাই দীর্ঘদিন না খেলার শুন্য অভিজ্ঞতা নিয়ে ‘নুতনভাবে’ বড় ফরম্যাটের ম্যাচ খেলতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দু’ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি খেলতে আগামীকাল মাঠে নামবে বাংলাদেশ। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে সকাল ১০টায় শুরু হবে টেস্টটি।

২০১৫ সালে তিনটি টেস্ট সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে দু’টি করে ম্যাচ এবং ভারতের সাথে এক ম্যাচের সিরিজ খেলে টাইগাররা। সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে টেস্ট সিরিজে অংশ নেয়। এরপর গেল ১৪ মাসে কোন টেস্ট সিরিজ খেলেনি টাইগাররা। এসময় ওয়ানডে ও টুয়েন্টি টুয়েন্টি ঠিকই খেলেছেন মাশরাফির নেতৃত্বাধীন দলটি। ৯টি ওয়ানডে ও ১৮টি টি-২০ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ।

তবে টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা একেবারেই শুণ্য বাংলাদেশের ভান্ডারে। এই শুন্য অভিজ্ঞতা নিয়ে দীর্ঘদিন পর ইংল্যান্ডের মত দলের বিপক্ষে মাঠে নামতে হচ্ছে টাইগারদের। তাই এমন অবস্থায় টেস্ট খেলাটা কঠিনই বলে গতকাল জানিয়েছিলেন সাকিব, ‘এভাবে খেলাটা অনেক কঠিনই। দীর্ঘদিন পর খেলতে নামছি। কবে খেলেছি ভুলেও গেছি, আমার মনে নেই।’

সাকিবের এমন মন্তব্যের পরও আশার বানী শুনিয়েছেন বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। প্রথম টেস্ট নিয়ে আজ সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকুর বলেন, ‘কতদিন পর খেলছি, এসব নিয়ে চিন্তা করলে পিছিয়ে পড়তে হবে। এখন খেলার সময়। আমাদের মনোযোগ সেখানেই। তবে দীর্ঘ বিরতিটা আমাদের সমস্যা করবে না। কারন আমরা খেলার মধ্যেই ছিলাম। তারপরও এটি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জের। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো কিছু করা সম্ভব। টেস্ট সিরিজে ভালো খেলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নেয়ার চেষ্টা থাকবে আমাদের। কিন্তু চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংস ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেবে।’

চট্টগ্রামের এই মাঠেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিজেদের সর্বশেষ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচটি খেলেছে বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারনে শেষ দু’দিনের খেলা না হওয়াতে টেস্টটি ড্র করে টাইগাররা। তবে প্রথম তিনদিনের পারফরমেন্সে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে এগিয়েই ছিলো মুশফিকুরের দল। প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২৪৮ রানে অলআউট করে দিয়ে নিজেদের ইনিংসে ৩২৬ রান করে বাংলাদেশ। তাই প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের লিড ছিলো ৭৮ রানের।

ঐ ম্যাচে বাংলাদেশের বোলিং লাইন-আপের সেরা দুই পারফরমার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান ও লেগ-স্পিনার জুবায়ের হোসেন প্রথম ম্যাচের স্কোয়াডে নেই। ঐ টেস্টে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা মুস্তাফিজুর ৪ ও জুবায়ের ৩ উইকেট নেন। তবে ব্যাটিং লাইন-আপের শীর্ষ ছয় এবারের স্কোয়াডে আছেন। সেই সাথে দলে সুযোগ পেয়েছেন নতুন চার মুখ। ওয়ানডে ও টি-২০ স্পেশালিষ্ট ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান, অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ, উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহান ও পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি।

এই চারজনের মধ্যে চট্টগ্রাম টেস্টে সাব্বির ও মিরাজের অভিষেক হবার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আজ বা টেস্ট শুরুর আগেই চূড়ান্ত সিদ্বান্ত নিবে টিম ম্যানেজমেন্ট। সাত নম্বর জায়গাটি সাব্বিরকে দিয়ে পূরণ করার ইচ্ছা দলের। আর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাঁক খাওয়ানো পীচের জন্য মিরাজের প্রয়োজন মনে করছে দল।

দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে নামলেও, সাম্প্রতিক সময়ে বড় ফরম্যাটে ইংল্যান্ডের অভিজ্ঞতা বেশ ভালোই। ২০১৫ সালে পাঁচটি সিরিজ ও চলতি বছর দু’টি টেস্ট সিরিজ খেলেছে ইংলিশরা। এ বছর শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩ ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতলেও, পাকিস্তানের সাথে চার ম্যাচের সিরিজ ২-২ ব্যবধানে ড্র করেছে ইংলিশরা। তাই বড় ফরম্যাটে বেশ চনমনে আছে অ্যালিষ্টার কুকের দল।

এছাড়া বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় দিয়ে সফর শুরু করেছে ইংল্যান্ড। তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছে তারা। তবে দু’টি প্রস্ততিমূলক ম্যাচে খুব বেশি ভালো পারফরমেন্স করতে পারেনি ইংল্যান্ড। তবে এসব নিয়ে চিন্তিত নয় ইংল্যান্ডের টিম ম্যানেজমেন্ট।

এর আগে টেস্ট ক্রিকেটে চারটি সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড। সবগুলোই দুই ম্যাচের সিরিজ ছিলো। সবগুলোতেই জয় পেয়েছে ইংলিশরা। কোন ম্যাচে জয় বা ড্র’র স্বাদ পায়নি বাংলাদেশ। তাই দীর্ঘদিন পর বড় ফরম্যাটে নতুনভাবে শুরুতে নতুন কিছুর জন্ম দিবে বাংলাদেশ, এমন প্রত্যাশাই থাকবে দেশের ক্রিকেটনুরাগীদের।

বাংলাদেশ দল(সম্ভাব্য) : মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), তামিম ইকবাল (সহ-অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, শুভাগত হোম চৌধুরী, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও নুরুল হাসান (উইকেটরক্ষক)।

ইংল্যান্ড দল(সম্ভাব্য) : অ্যালিষ্টার কুক (অধিনায়ক), মঈন আলী, জাফর আনসারি, জনি বেয়ারস্টো (উইকেটরক্ষক), জেক বল, গ্যারি ব্যালেন্স, গ্যারেথ বেটি, স্টুয়ার্ট ব্রড, জশ বাটলার (উইকেটরক্ষক), বেন ডাকেট, স্টিভেন ফিন, হাসিব হামিদ, আদিল রশিদ, জো রুট, বেন স্টোকস, ক্রিস ওকস ও মার্ক উড। বাসস

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: