সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বের ১০ টি অশান্ত দেশ, কোথায় আছে পাকিস্তান?

venejuela-550x310আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মানুষ যেমন শান্তি চায় সেরকম শান্তি সারা বিশ্বের কোনো দেশেই নেই। এমনকি কোনো দেশের জলবায়ুও একেবারে বিশুদ্ধ নয়। মানুষ যে অক্সিজেন নেয় তাতেই রয়েছে ভাইরাস গ্যাস। তাই সকলারই দেখে নেওয়া উচিত বিশ্বের সবথেকে বিপজ্জনক দেশ কোন গুলি। এই মুহুর্তে পাকিস্তান ভারতে নিজেদের সন্ত্রাসবাদকে ছড়িয়ে দিতে চাইছে তারাই বা এখন দশটি বিপজ্জনক দেশের তালিকায় কত নম্বরে আছে? দেখে নিন একবার তালিকাটা। তালিকাটি তৈরি করেছে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম।

১ নাইজেরিয়া-
এই মুহুর্তে বিশ্বের সবথেকে বিপজ্জনক দেশের তালিকায় প্রথম নাইজেরিয়া। আফ্রিকা মহাদেশের এই দেশটিতে “বোকো হারেম” জঙ্গি গোষ্ঠির অত্যাচার দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। তাদের দাবি দেশের বেশিরভাগ রাজনৈতিক নেতারাই ওয়েস্টার্ন স্যোশাইটির দ্বারা প্রভাবিত। আর এটা ভোটের সময়ও দেখা যায়। এবং তারা সেকুলার শিক্ষারও বিরোধী।

২ কলম্বিয়া-
কলম্বিয়া টেরিটরির প্রভাব বৃদ্ধির কারনে এই দেশটির একটি সংগঠন আর একটি সংগঠনের সঙ্গে লড়াই করে চলেছে। এছাড়াও সিন্ডিকেট ব্যবস্থার জন্য লড়াই লেগেই থাকে। সঙ্গে আছে অতী বামপন্থিদের লড়াই। এছাড়াও ন্যাশানাল লাবারেশন আর্মির গেরিলা বাহীনির জন্য দেশেটির শান্তি বিঘিœত হয়েছে। আরও আছে অর্থনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক অস্থিরতা তো আছেই।

৩ ইয়েমন-
দেশটি বিশ্বের সবথেকে সন্ত্রাসবাদী প্রভাবিত রাষ্ট্রের মধ্যে একটি। দেশটিতে আল-কায়দা জঙ্গি গোষ্ঠির অত্যাচার লেগেই রয়েছে। এই সংগঠনটি স্থানীয় আমেরিকান, ওয়েস্টার্ন এবং আরবিয়ানদের উপর অত্যাচার চালায়। তারা বেশিরভাগ সময় লিমবার্গ আক্রমন চালায়।

৪ পাকিস্তান-
অশান্ত দেশের তালিকাতে পাকিস্তান আছে চতুর্থ স্থানে। দেশটিতে আল-কায়দা, মুজাহিদিন, লষ্কর, জৈস-ই-মহম্মদের মত জঙ্গি গোষ্ঠি গুলি আছে। ২০০৩ সালে দেশেটির ভিতরে ১৬৪ টি সন্ত্রাসবাদী আক্রমন হয়েছিল। সেখান থেকে ২০০৯ সালে সন্ত্রাসবাদী আক্রমন হয় ৩৩১৮ টি। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ম ২০১১ পর্যন্ত প্রায় ৩৫ হাজার সাধারন মানুষ সন্ত্রাসবাদী আক্রমনে নিহত হয়েছেন।

৫ ভেনেজুয়েরা-
দেশটিতে সেরকম কোনো সন্ত্রাসবাদী হানা নেই। কিন্তু দেশের নিকোলাস মাদুরো সরকারের বিরুদ্ধে সাধারন মানুষের লড়াই দেশটির শান্তি বিঘিœত করেছে। এই অশান্ত পরিবেশের জন্য সারা বিশ্বের নজর এই দেশটির দিকেও আছে। এছাড়া দেশটির মধ্যে আল কায়দা এফএআরসির মত জঙ্গি গোষ্ঠির প্রভাবও যথেষ্ট আছে।

৬ ইজিপ্ট-
১৯৯০ সালে ইজিপ্টে শুরু হয় সন্ত্রাসবাদের জন্ম। আল গামা, আর ইসলামিয়ার মত সংগঠন দেশটির উপর হামলা চালাতে শুরু করে। মাঝেমধ্যেই লেগে থাকে বড়বড় সন্ত্রাসবাদী হামলা।

৭ গুয়াতেমালা-
ভেনেজুয়েলার পর আরএকটি দেশ যেখানে সন্ত্রাসবাদের প্রভাব না থাকলেও দেশের অভ্যন্তরিন বিষয় দেশটিকে অশান্ত করে রেখেছে। এখানে চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণ, অপহরণ এবং খুন প্রায় রোজকার ঘটনা। প্রশাসন বলতে কিছুই নেই।

৮ এল সালভাদোর-
মধ্য আমেরিকার আরও একটি দেশ যেখানে শান্তি বলে কিছুই নেই। দেশটিতে শান্তি ভঙ্গের কারন গ্যঙ্গ ওয়ার। ১ লক্ষ মানুষের মধ্যে গড়ে ১০৪ জন করে খুন হয় দেশের মধ্যে। এছাড়াও খুন, ধর্ষণ, অপহরন, স্মাগলিং এগুলি তো লেগেই আছে।

৯ হন্ডুরাস-
রিপোর্ট অনুযায়ী হন্ডুরাসে ২০১১ সারে ৮৬.৫ জন খুন হয়েছে ১ লক্ষ জন সাধারন মানুষের মধ্যে। ২০১২ সারে ৮৫.৫ জন, ২০১৩ সালে ৭৯ জন ২০১৪ সালে খুন হয়েচে ৬৬.৫ জন প্রতি এক লক্ষ সাধারন মানুসের মধ্যে। ডাকাতি, খুন, সেক্সুয়ার হ্যারাসমেন্ট রেগেই আছে দেশটির মধ্যে।

১০ থাইল্যান্ড-
শেষ কিছু বছর ধরে দেশটিতে বড়বড় কিছু সন্ত্রাসবাদী আক্রমন হয়েছে। ২০০৪ সাল থেকে প্রায় রোজই সন্ত্রাসবাদী আক্রমন লেগেই থাকে। জেমাহ ইসলামিয়া নামের একটি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন দেশটির শান্তু বিঘ্নিত করার সবথেকে বড় কারন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: