সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ১৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি, বাসায় ফিরেছেন সুরঞ্জিত

156762_1ডেইলি সিলেট ডেস্ক: শারীরিকভাবে কিছুটা সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত। তাকে এ পর্যন্ত পাঁচটি ক্যামোথেরাপি দেওয়া হয়েছে। তবে তার শারীরিক অবস্থা এখনো স্বাভাবিক হয়নি। আরো একটি ক্যামোথেরাপি নিতে হবে তাকে। এ সপ্তাহের মধ্যেই তাকে এ ক্যামোথেরাপি দেওয়া হবে বলে জানান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সোহরাবুজ্জামান।

রবিবার রাতে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে জিগাতলায় তার বাসায় নেওয়া হয়েছে। তার বাসায় গিয়ে তার সাথে কথা বলার সুযোগ না পেলেও স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তার শারীরিক অবস্থা এখন কিছুটা ভাল। তবে বাকী একটা ক্যামোথেরাপি না দেওয়া পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না। ডাক্তারের পরামর্শ ক্রমে এ সপ্তাহের মধ্যেই বাকী ক্যামোথেরাপি দেওয়া হবে তাকে।

বিদেশে নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে তারা বলেন, এখনো তেমন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। ল্যাবএইড হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সোহরাবুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে আছেন তিনি। পরবর্তী ক্যামোথেরাপি দেওয়ার পর কি হয় তা জেনে কোথায় নেওয়া হবে তা ঠিক করা হবে। মোট ৬টি ক্যামোথেরাপি সম্পন্ন হলে ডাক্তাররা সিদ্ধান্ত নেবেন তার বোনম্যারো প্রতিস্থাপন করা হবে কিনা।
গত শনিবার বিকেলের দিকে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়েন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। রাত ১০টার দিকে তাকে ধানমণ্ডির ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সোহরাবুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে আছেন তিনি।

আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের শরীরে মরণব্যাধি ব্লাড ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য অনেকটা নীরবে বিভিন্ন দেশে ঘুরেছেন নানা সময়ে আলোচিত-সমালোচিত এ রাজনীতিবিদ।

সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের পারিবারিক নিকট আত্মীয় অ্যাডভোকেট দোলন ভৌমিক বলেন, সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের শরীরে ক্যান্সারের কারণে রক্ত কণিকা ঠিকমত তৈরি হচ্ছে না। ক্যান্সারের চিকিৎসা সমন্বয় করে সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্রে দুই দেশেই চলছে।

তিনি বলেন, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী পরবর্তী চিকিৎসার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তার হার্টেও সমস্যা রয়েছে।

সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অসুস্থতা সম্পর্কে আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতার কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, তার চিকিৎসা চলছে। তিনি অনেক আগে থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। তার শরীরে মরণব্যাধি ক্যান্সার ধরার পর থেকে তিনি রাজনৈতিক সভা-সমাবেশে খুব কম সময় উপস্থিত থাকতেন। তিনি একজন মাঠ কাঁপানো নেতা। তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

আওয়ামী লীগের এই বর্ষীয়ান নেতার জন্ম ১৯৪৬ সালে সুনামগঞ্জের আনোয়ারাপুরে। প্রথম জীবনে বামপন্থী আন্দোলনের মাধ্যমে রাজনীতিতে আসেন সুরঞ্জিত। তারপর দশম জাতীয় সংসদসহ মোট সাতবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত তিনি।

১৯৯৬ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্বে ছিলেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসার পর তিনি রেলমন্ত্রী হন। তবে অর্থ কেলেঙ্কারির দায় মাথায় নিয়ে তিনি পদত্যাগ করলেও তা গ্রহণ না করে তাকে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী হিসেবে রাখেন শেখ হাসিনা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: