সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ১৮ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হত্যা নয় দুর্ঘটনায় মারা যায় বড়লেখার শিশু রেদোয়ান, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই হত্যা মামলা

01-daily-sylhet-barlekha-news1বড়লেখা প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় হত্যা নয়, পানিতে ডুবে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মারা যায় শিশু রেদোয়ান। পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতেই শিশুটির পিতা মারুফ আহমদ পুত্র হত্যার অভিযোগে আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার আড়াই বছর পর দুইজন সিআইডি পুলিশ ইন্সপেক্টরের পৃথক তদন্তে বিষয়টি ওঠে আসে।

আদালতে দাখিলকৃত সিআইডির চূড়ান্ত প্রতিবেদনসহ একাধিক সূত্র জানায়, উপজেলার তালিমপুর ইউনিয়নের টেকাহালি গ্রামের মৃত হবিব আলীর ছেলে মশাহিদ আলীর সাথে বসতবাড়ির যাতায়াতের রাস্তা নিয়ে মৃত আজির উদ্দিনের ছেলে মারুফ উদ্দিনের বিরোধ চলছিলো। মারুফ আহমদ দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে যাতায়াতে প্রতিবন্ধতকা সৃষ্টি করে আসছিলেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় বিকল্প রাস্তা তৈরি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত মেনে উভয় রাস্তা বন্ধ করে দিলে মশাহিদ আলীর পরিবার কার্যত গৃহবন্দি হয়ে পড়ে। এরপর ভুক্তভোগীরা ইউএনওসহ বিভিন্ন দপ্তরে একাধিক অভিযোগ দেন।

এর মধ্যে ২০১৪ সালের ০২ মে মারুফ আহমদের শিশুপুত্র রেদোয়ান আহমদ (০৮) পানিতে ডুবে মারা যায়। দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া শিশুপুত্রকে খুন করার অভিযোগে মারুফ তার প্রতিপক্ষের মশাহিদ আলী ও তার ছেলে ছাদিকুর রহমান; মাওলানা তৈয়বুর রহমান, আছাদুর রহমান ও তার মেয়ে সাহিদা বেগম এবং ইমাম উদ্দিনকে আসামী করে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটির তদন্তভার সিআইডি পুলিশের কাছে ন্যস্ত করেন। তদন্তকালে সিআইডি পুলিশ মামলার ৩নং আসামী মাওলানা তৈয়বুর রহমানকে গ্রেফতার করে। ৫ মাস জেল খাটার পর তিনি জামিনে মুক্ত হন।

এদিকে ইতোপূর্বে শিশু রেদোয়ানকে হত্যার সত্যতা পাননি জানিয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন সিআইডি পুলিশ ইন্সপেক্টর আব্দুল আহাদ। বাদীর নারাজি আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত মামলাটি পুন:তদন্তের জন্য জেলা সিআইডি পুলিশ ইন্সপেক্টর দেবাশীষ চৌধুরীকে আদেশ দেন। তাঁর পৃথক তদন্তেও রেদোয়ানকে হত্যার প্রমাণ পাননি মর্মে গত ১৯ সেপ্টেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

সিআইডি পুলিশ ইন্সপেক্টর দেবাশীষ চৌধুরী জানান, আদালতের নির্দেশে রেদোয়ান হত্যা মামলাটি তদন্ত করা হয়। প্রকাশ্যে, গোপন ও নিরপেক্ষ স্বাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদে শিশু রেদোয়ানকে হত্যার প্রমাণ মিলেনি। সে দুর্ঘটনাবশত পানিতে ডুবে মারা যায়। বাড়ির রাস্তা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকদের বিরুদ্ধে শিশুটির পিতা মিথ্যা হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: