সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তাহিরপুরে কন্যা শিশুর লাশ দাফন নিয়ে নাটকীয়তা

2-daily-sylhet-thahirpur-newsতাহিরপুর প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় চল্লিশ দিনের শিশু কন্যা মাহিয়ার লাশ দাফন নিয়ে নাটকীয়তা শুরু হয়েছে। মাহিয়ার উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বানিয়াগাঁও গ্রামের হুমায়ুন কবিরের মেয়ে। গত শুক্রবার মধ্য রাতে শিশু কন্যা মাহিয়া (৪০দিন) তার বাবার বাড়িতে মারা যায়। কিন্তু আলপিনা বেগম (শিশুর মা) এর পরিবারের সদস্যরা শিশুকে হত্যার করার অভিযোগ তুলে জমি, বাড়ি ও টাকার দাবী করছে হুমায়ুন কবিরের পরিবারের লোকজনের কাছে।
এ নিয়ে বিচার শালিশেও সমাধান না হওয়ায় পুলিশ গত শনিবার রাতে লাশ উদ্ধার করে পোষ্টামর্টেম রির্পোটের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়,উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বানিয়াগাঁও গ্রামের কাজিম উদ্দিনের মেয়ে আলপিনা বেগমের সাথে আব্দুন নূরের ছেলে হুমায়ুন কবিরের সাথে ১বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর শশুরবাড়ির লোকজনের সাথে জগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।

এরই জের ধরে এক সাপ্তাহ পূর্বে আলপিনা বেগম নবজাতক শিশু কন্যা মাহিয়া কে স্বামীর বাড়ি রেখেই বাপের বাড়ি চলে যায়। পরে স্বামীর বাড়ির লোকজনের নবজাতক শিশুটিকে মা ছাড়াই আগলে রাখার চেষ্টা করেন। কিন্তু গত শুক্রবার মধ্য রাতে শিশু কন্যা মাহিয়ার মারা যায়। এরপর শশুর বাড়ির লোকজন কে জানিয়ে জানাজার নামাজ শেষে শনিবার সকালে বাড়ির সামনের কবর স্থানে শিশুটির লাশ দাফন করতে গেলে আলপিনা বেগমের পরিবারের সদস্যরা শিশুর হত্যার অভিযোগ তুলে জমি,বাড়ি ও টাকার দাবী করে বাধা দেয়। জমি,বাড়ি ও টাকা দিলে লাশ দাফন হবে না হলে লাশ দাফন করতে দেওয়া হবে না । এতে করে এক প্রকার বাদ্য হয়ে করব থেকে আবার বাড়ির উঠানে নিয়ে আসা হয়। এই বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে বিকালে বিচার-শালিশে সমাধানের জন্য উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খছরুল আলমের কার্য্যালয়ে সমাধানের চেষ্টা করলে আলপিনা বেগমের (শিশুটির মা) পরিবারের লোকজনের দাবী অনুযায়ী জমি,বাড়ি ও টাকা না দেওয়া রাত ১০টা পর্যন্ত সমাধান হয় নি।

ওমর আলী (হুমায়ুনের বোন জামাই)জানান,সাপ্তাহ খানেক পূর্বে বাচ্চা রাইখা আলপিনা বেগমে বাপের বাড়ি চলে যায়। আমরা কইছিলাম বাচ্চা টারে নিত নেয় নাই। পরে মা ছাড়াই বাচ্চা টারে বাচানোর চেষ্টা করে পরিবারে লোকজন পরে শুক্রবার মারা যায়। জমি,বাড়ি ও টাকা না দেওয়ায় হত্যার অভিযোগ করছে। আলপিনা বেগমের চাচা কাইয়ুম জানান,আমার ভাাতিজি কে তারা মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। আমরা টাকা,জমি চাই নি। ভাইজি আমাকে বলেছে তার মেয়েকে হত্যা করেছে স্বামীর বাড়ির লোকজন তাই আমি দাফনে বাধা দিয়েছি। উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খছরুল আলম জানান,আমি শিশুটির লাশ দাফন করানোর জন্য ও সমাধানের জন্য অনেক চেষ্টা করেছি কিন্তু আলপিনা বেগমের বাবা ও তার আতœীয় স্বজনরা জমি,বাড়ি ও টাকা দাবী করার কারনে সমাধান করতে পানি নি। তাহিরপুর থানার ওসির দায়িত্বে থাকা এসআই নুরুল ইসলাম জানান,গত কাল শনিবার রাতে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে আজ রবিবার সকালে পোষ্টামর্টেমর জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: