সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ট্রাম্প কর্তৃক ভয়ঙ্কর যৌন হয়রানির গল্প ভিকটিম ট্যাব্লিনের মুখে

156078_1আন্তর্জাতিক ডেস্ক: অ্যাম্বার রোজ ট্যাব্লিন একজন আমেরিকান অভিনেত্রী, লেখক, কবি এবং ফিল্ম এডিটর।

নারীদের নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফাঁস করা অডিও উপর তার আপত্তিকর মন্তব্যের জবাবে অ্যাম্বার ট্যাব্লিন তার যৌন হয়রানির গল্প শেয়ার করেছেন। এখানে তিনি খোলাখুলিভাবেই প্রকাশ করেছেন কিভাবে তিনি তার সাবেক প্রেমিক ট্রাম্প কর্তৃক যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন।

‘আপনাকে (ডোনাল্ড ট্রাম্প) আমার একটা গল্প শোনানোর প্রয়োজন অনুভব করছি। আমার স্বামীর ভালবাসা ও তার সমর্থনে আমি গল্পটা জনসম্মুখে প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ অ্যাম্বার তার ইন্সটাগ্রাম একাউন্টে এভাবেই শুরু করেন।

তিনি এতে বলেন, ‘অনেক দিন আগে একজন মানুষের সঙ্গে আমার একটি দীর্ঘ আবেগের এবং শারীরিকভাবে অবমাননাকর সম্পর্কের ইতি ঘটেছে। ওই মানুষটির সঙ্গে আমার কিছুটা সময় কেটেছিল। এক রাতে আমি আমার বান্ধবীদের সঙ্গে নিয়ে হলিউডের ডিজে প্রদর্শনীতে গিয়েছিলাম। আমি জানতাম, সেখানে আমার সাবেক প্রেমিককে দেখার সুযোগ পাব। কিন্তু আমি আমার চারপাশের  মেয়েদের রক্ষা করার বিষয়টি অনুভব করি। তাদের বিস্তারিত সব বলার আগেই আমি আমার সাবেক প্রেমিকের দেখা পাই এবং ভিড়ের মধ্যে সে আমার কাছে এসে হাজির হয়।’

‘তিনি ছিলেন বেশ বড় আকারের একজন মানুষ। লম্বায় আমার চেয়ে অনেক বেশি। আমাকে সে কিছুক্ষণ অবলোকন করে। পরে সে তার এক হাত দিয়ে আমার চুলে পিছনটায় ধরে এবং তার অন্য হাত দিয়ে আমার যৌনাঙ্গ স্পর্শের মাধ্যমে আমার স্কার্টের নিচে আঁকড়ে ধরে। এরপর সে আমার গোপানাঙ্গে হাত দেয়াসহ আমার সমস্ত শরীর লেহন করতে থাকে। বাস্তবে তার হাতের আঙ্গুলগুলো ছিল আমার ভেতরে, তার অন্য হাত শক্তভাবে আমার চুলের চারপাশে আবৃত করছিল। আমি আর্তনাদ ও চিৎকার করি। কিন্তু তিনি কিছুতেই থামছিল না। রুমের ভিতর আমাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়।’

‘পরে আমার বান্ধবীরা দৌড়ে আসে এবং তাকে থামানোর চেষ্টা করে। আমি ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানাই যে, সেখানে তার ভাইয়েরাও ছিলেন এবং পরে তারা হস্তক্ষেপ করে। ধস্তাধস্তির সময় সে আমার কাপড় টেনে ধরে আমাকে সম্মুখে রাখার চেষ্টা করে। অনবধানতাবশত আমার দাদীর নেকলেস যেটি আমি পরেছিলাম তা সে খুলে নেয়। রাতের বাকিটা ছিল অস্পষ্ট যা আমার স্বরণ নেই। কিভাবে আমি গাড়ি থেকে বেরিয়ে এলাম, কিভাবে আমি তার কাছ থেকে সেই রাতে মুক্তি পেয়েছিলাম তার কিছুই জানি না। এমনকি সে আমার নেকলেসও সে ফেরত দেয়নি।’

‘বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক সম্প্রতি যেটি বর্ণিত হয়েছে তা আমার জীবনের একটি অংশ। ওই ঘটনার পরে আমাকে জিন্স পরে থাকতে হয়েছে যা আমার জন্য একটি কঠিন সময় ছিল। আমাকে আমার দুপায়ের মাঝখানে ফাঁকা জায়গা তৈরি করে ঘুমাতে হয়েছে। এজন্য আমাকে দুপায়ের মাঝখানে বালিশ ব্যবহার করতে হয়েছে।’

‘আজকে আমি ওই মুহূর্তের কথা লজ্জার সঙ্গে স্মরণ করছি। আমি ভয় পাচ্ছি আমার মা এই পোস্ট পড়ে কি মনে করবে সেটি ভেবে। আমি আরো বেশি ভয় পাচ্ছি আমার বাবা যদি এই কাহিনী জানতে পারে তাহলে সে এটাকে কিভাবে নিবে। আমি নিশ্চিত এতে তিনি তার হৃদয়ে বড় আঘাত পাবে। কিন্তু আমার কিছুই করার ছিল না। কিন্তু তুমি (ডোনাল্ট ট্রাম্প) তো বুঝতে পেরেছ, তাই না? আমার প্রয়োজন ছিল তোমাকে এ গল্পটা বলার। আজ রাতের বিতর্কটা উপভোগ করুন।’

সূত্র: ইউএস টুডে

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: