সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মোহনা আনসারি : নেপালের প্রথম মুসলিম নারী আইনজীবী

mohona-top20161010170259নিউজ ডেস্ক:
পর্যটনের স্বর্গ হিমালয় কণ্যা নেপাল। নেপালের প্রথম মুসলিম নারী আইনজীবী মোহনা আনসারি। তিনি দেশটির মানবাধিকার কমিশনের প্রধান। ইতিপূর্বে নেপাল সাংবিধানিকভাবে হিন্দু রাষ্ট্র থাকলেও এখন তা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসিবে স্বীকৃত। এ ক্ষুদ্র রাষ্ট্রটিতে জনসংখ্যার দিক থেকে মুসলমানদের অবস্থান তৃতীয়। দেশটির প্রতিটি জেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মুসলমানের সংখ্যা শতকরা ৪.২ভাগ।

নেপালের মুসলমানদের অধিকার রক্ষা, কোটা সংরক্ষণ এবং ঐতিহ্যের অনন্য প্রতীক মোহনা আনসারি। তিনিই নেপালের প্রথম মুসলিম নারী আইনজীবী। ৩৯ বছর বয়সী এ নারী আইনজীবীকে দেশটির মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন সরকার। তিনি নেপালের দক্ষিণের শহর নেপালগুঞ্জের নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবার তার জন্ম।

পর্যটনের স্বর্গ হিমালয় কন্যা খ্যাত নেপালে হিজরি পঞ্চম শতকে আরব দেশ থেকে বাণিজ্য কাফেলার আগমনের মধ্য দিয়ে মুসলমানদের আগমন ঘটে। এখন পর্যন্ত নেপালের মুসলিম জনগণের জন্য তাদের নিজস্ব ভাষায় কুরআন-হাদিসসহ কোনো ধর্মীয় পাঠ্য পুস্তক তৈরি হয়নি।

নেপালের মুসলমানদের মাঝে শিক্ষার হার এবং সরকারি চাকরিজীবির সংখ্যা উল্লেখ করার মতো নয়। এমনকি নেপালের সাতটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো মুসলিম শিক্ষকও নেই। সরকারের এ উচ্চ পদে মোহনা আনসারির অন্তর্ভূক্তি মুসলমানদের জন্য আলোকবর্তিকা।

নেপালের মুসলমানদের জন্য আলাদা কোনো ধর্মীয় পাঠ্যপুস্তক না থাকলেও বর্তমানে নেপালে ৩৪৩টি মসজিদ রয়েছে। রয়েছে বেশ কয়েকটি মাদরাসা। ধর্মীয় পাঠ্য পুস্তক না থাকার ফলে ইসলামি শিক্ষা থেকে অনেকটাই বঞ্চিত নেপালের মুসলিমরা। সম্প্রতি মুসলমানদের নিয়ে কাজ করে এমন একটি সংগঠন নেপালী ভাষায় ভারত থেকে কোরআনের অনুবাদ প্রকাশ করেছে।

বিভিন্ন প্রতিকূলতা সত্বেও নেপালের মুসলমানদের জন্য আশার প্রদীপ ও অনুপ্রেরণা হলেন মোহনা আনসারি। তিনি ২০০৬ সালে রাজতন্ত্রের অবসানের পর রাজনৈতিক অস্থিরতার মাঝে এ কমিশনের সদস্য হন। সেখানে তিনি নিরাপত্তা বাহিনীর জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং লিঙ্গ বৈষম্য দূরীকরণে কাজ করেন। মোহনা আনসারির ভাষায়, ‘এ প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করা খুবই কঠিন কাজ।’

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সক্রিয় মোহনা আনসারি বিভিন্ন সময় ভয়ভীতি হুমকি থাকা সত্বেও তিনি তাঁর কাজে যথেষ্ট মনোযোগী। নেপালের এই মানবাধিকার কর্মী মুসলমানদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের ব্যাপারে ইতিবাচক স্বপ্ন দেখেন।

নেপালের নতুন সংবিধানে প্রথমবারের মতো মুসলমানদের কোটা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। দেশটির সরকারি চাকরির এক শতাংশ মুসলমানদের জন্য বরাদ্দ থাকবে। আনসারি নেপালে নারীদের জন্য সরকারি চাকুরিতে কোটা সংরক্ষণের নতুন আইনকে সমর্থন করেন এবং আশা করেন এতে মুসলিম নারীরাও উপকৃত হবে।

তথ্য সূত্র : দ্যা নেশন, আল জাজিরা, ও মুসলিম মিরর।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: