সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ১২ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হিলারিকে কারাগারে পাঠানো উচিত: ট্রাম্প

57ae84b2fd128f513fc6c3460e62b0df-57fb2e8796e62আন্তর্জাতিক ডেস্ক::হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পদ্বিতীয় দফায় প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে রবিবার মুখোমুখি হয়েছেন হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিতর্কে হিলারি ক্লিনটন দম্পতিকে হিংস্র ভাষায় আক্রমণ করেন ট্রাম্প। এ সময় তিনি হিলারিকে কারাগারে পাঠানোর ইচ্ছার কথাও জানান। এমনকি মঞ্চে ওঠার পর পরস্পরের সঙ্গে করমর্দনও করেননি দুই প্রার্থী।

স্থানীয় সময় রবিবার সন্ধ্যায় সেন্ট লুইসে ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এই বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সঞ্চালক হিসেবে ছিলেন এবিসি টেলিভিশনের মার্থা রাডাৎস এবং সিএনএনের অ্যান্ডারসন কুপার।

বিতর্কে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ই-মেইল কেলেঙ্কারির জন্য হিলারির কারাগারে থাকা উচিত। নির্বাচনে বিজয়ী হলে তিনি হিলারির বিষয়ে তদন্ত চালাতে একজন স্পেশাল প্রসিকিউটর নিয়োগ দেবেন।

ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের জবাবে হিলারি বলেন, ট্রাম্প যা বলেছেন সেটা একেবারেই মিথ্যা। এতে আমি বিস্মিত হইনি। এটা বরং খুবই ভালো হয়েছে যে, ট্রাম্পের মতো একজন বদমেজাজি লোক আমাদের দেশের সর্বময় কর্তা হতে পারেন না। হিলারির এমন বক্তব্যের মাঝপথেই ফের হিলারিকে জেলে পাঠানো উচিত বলে মন্তব্য করেন ট্রাম্প।

শুক্রবার প্রকাশিত ট্রাম্পের ২০০৫ সালের ব্যাপক সমালোচিত ওই ভিডিও নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অ্যান্ডারসন কুপার। তবে আত্মপক্ষ সমর্থন করে ট্রাম্প উল্টো তীব্র আক্রমণ করেন হিলারি দম্পতিকে।

নারীদের সঙ্গে নিজের যে কোনও ধরনের যৌন অসদাচরণের কথা অস্বীকার করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। রিপাবলিকান দলীয় এ প্রার্থী বলেন, ২০০৫ সালের অশালীন মন্তব্য নিয়ে তিনি গর্বিত নন। তবে রাজনীতির ইতিহাসে বিল ক্লিনটন সবচেয়ে বেশি নারী নির্যাতন চালিয়েছেন। যৌন নিপীড়নের ঘটনায় বিল ক্লিনটনের বিরুদ্ধে কোনও ফৌজদারী ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

ট্রাম্পের আলোচিত ভিডিও ফুটেজের বিষয়ে হিলারি বলেন, আমার মনে হয় এই ভিডিওটি যারা দেখেছেন, তাদের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার। তাকে সমর্থন দিতে রিপাবলিকান পার্টির অনেক নেতারাও এরইমধ্যে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তিনি আসলেই কেমন এটা তারই প্রতিনিধিত্ব করে। নারীদের অবমাননা করার জন্য তাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

বিতর্কে উঠে আসে ট্রাম্পের কর ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টিও। তবে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে ট্রাম্প বলেন, হিলারির বন্ধু ওয়ারেন বাফেটের চেয়ে তিনি কোটি কোটি ডলার বেশি কর পরিশোধ করেছেন। এ সময় হিলারি ক্ষমতায় এলে জনগণের ওপর বাড়তি করের বোঝা চাপিয়ে দেবেন বলে মন্তব্য করেন ট্রাম্প। তার ভাষায়, ‘হিলারি আপনাদের কর বাড়িয়ে দিতে যাচ্ছেন।’ সূত্র: সিএনএন, বিবিসি, আল জাজিরা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: