সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রাগীব আলী ও তার ছেলের বিরুদ্ধে আবারো গ্রেফতারি পরোয়ানা

ragib20161009212909ডেইলি সিলেট ডেস্ক:
সিলেটের শিল্পপতি রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের বিরুদ্ধে আরেক প্রতারণা মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। রোববার বিকেলে সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিম সাইফুজ্জামান হিরু এই পরোয়ানা জারি করেন।

সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) অ্যাড. মাহফুজুর রহমান জানান, অন্য এক মামলার পরোয়ানাভুক্ত আসামি হয়ে পলাতক থাকা অবস্থায় দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে নাম প্রকাশ হওয়াকে প্রতারণা আখ্যা দিয়ে রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের বিরুদ্ধে গত ৮ সেপ্টেম্বর সিলেটের বিচারকি হাকিম আদালতে একটি মামলা (নম্বর ১১১০) দায়ের করেন সুনামগঞ্জের ছাতক প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন তালুকদার।

ওই মামলায় আদালত রাগীব আলী ও তার ছেলের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। রোববার নির্ধারিত তারিখে আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় দুইজনের বিরুদ্ধেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন বিচারক।

মামলার অভিযোগে বাদী উল্লেখ করেন, দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার প্রকাশক, মুদ্রক ও সম্পাদকমন্ডলির সভাপতি হিসেবে রাগীব আলী এবং সম্পাদক হিসেবে আবদুল হাই বহুল পরিচিত। এ দুইজনের বিরুদ্ধে সিলেট কোতোয়ালী থানায় জিআর ৭৪/২০০৫ এবং জিআর ১১৪৬/২০০৫ নং মামলায় গত ১০ আগস্ট গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাই জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যান।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, কোনো পলাতক আসামি আইনের সুবিধাভোগী হতে পারে না। সংবাদপত্র একটি আইনি প্রকাশনা। সিলেটের ডাকের সম্পাদক, প্রকাশক আদালতে আত্মসমর্পণ না করে স্বীয় নাম ব্যবহার করে পত্রিকা প্রকাশ করতে পারেন না। আইন লঙ্ঘন করে নাম ব্যবহার করে পাঠকদের সঙ্গে ফাঁকিবাজি ও প্রতারণা করা হচ্ছে।

গত ১১ আগস্ট থেকে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাই তাদের নাম যুক্ত করে দৈনিক সিলেটের ডাক প্রকাশক্রমে প্রতারণার অপরাধ করে চলেছেন। পলাতক অবস্থায় সম্পাদনাজনিত প্রতারণার জন্য আবদুল হাই ২৯টি সংখ্যা প্রকাশ করে ২৯টি শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

অন্যদিকে, রাগীব আলী প্রকাশক ও মুদ্রক হিসেবে দ্বৈত সত্ত্বায় প্রতিদিন দুইটি করে অপরাধের দায় বহন করায় অপরাধের পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৮টিতে। নালিশকারী হিসেবে গিয়াস উদ্দিন তালুকদার অভিযুক্ত আসামিদের প্রতিদিনের অপরাধের জন্য রাগীব আলীর ৫৮ বছর ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের ২৯ বছর কারাদণ্ডের আবেদন করেন। এই মামলা দায়েরের পর সিলেটের ডাকের সম্পাদক পদ থেকে আব্দুল হাইকে সরানো হয়।

এ বিষয়ে মহানগর পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (আদালত প্রসিকিউশন) তৌহিদুল ইসলাম জানান, রাগীব আলী ও তার ছেলের বিরুদ্ধে প্রকাশনা আইনে নতুন আরেকটি মামলা দায়ের করেছিলেন গিয়াস নামে এক ব্যক্তি। ওই মামলায় সাক্ষী আবু তাহের সাক্ষী দিলেও আসামি রাগীব আলী ও তার ছেলে সমন পাওয়ার পরও হাজির হননি। তাই তাদের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন। পরোয়ানাটি থানায় পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে তারাপুর চা-বাগানের হাজার কোটি টাকার ভূ-সম্পত্তি দখল মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এই পরোয়ানা জারির পর সপরিবারে রাগিব আলী ভারত পালিয়ে যান।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: