সর্বশেষ আপডেট : ৩৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

চিকিৎসক পরিচয়ে নাইজেরিয়ানদের অভিনব প্রতারণা

logo-protarona-with-taka-lekhaনিউজ ডেস্ক:
এবার জাতিসংঘের ডাক্তার সেজে বাংলাদেশে ক্লিনিক স্থাপনের কথা বলে ২১ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে দুই নাইজেরিয়ানসহ প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে মোট ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ(ডিবি)।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, Anayo(২৯), Esi Aka Henry(২৯), মো. মাইনুল কবির(২৯), নাজিম উদ্দিন(৩৭) ও মো. রুহুল আমীন ওরফে মিঠুন(২৯)। শুক্রবার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া অ্যাণ্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে যুগ্ম কমিশনার(ডিবি) আব্দুল বাতেন বলেন, বরবধূ ডটকম থেকে এলিফেন্ট রোডের ডাচ-বাংলা ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার মমতাজ বেগমের সিভি সংগ্রহ করে চক্রটি। এরপর লেবাবন থেকে নাসির উদ্দিন নিজেকে ইউএনের ডাক্তার পরিচয়ে মমতাজ বেগমের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে।

মমতাজ বেগমকে সে জানায়, লেবাবনের যুদ্ধ বিধ্বস্ত পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশে তিনি ক্লিনিক স্থাপন করতে চায়। এজন্য সেবেশ কিছু টাকা পাঠাবে, মমতাজ বেগম যেন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

কথা অনুযায়ী নাসির উদ্দিন দামি কিছু যন্ত্রাংশ মমতাজ বেগমের ঠিকানায় পাঠায়। সেই পণ্য কাস্টমস হতে ছাড়িয়ে দেবার কথা বলে একটি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট প্রথমে এক লাখ ২৫ হাজার ও পরে আরো ১০ লাখ টাকা নেয় সিকিউরিটি মানির কথা বলে হাতিয়ে নেয়। পরে পার্সেলে প্রায় দেড় কোটি টাকা মূল্যের ডলার রয়েছে উল্লেখ করে মানি লন্ডারিংয়ের ভয় দেখিয়ে মমতাজ বেগমের কাছ থেকে চক্রটি ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

এরপর আরো ১৫ লাখ টাকা দাবি করলে মমতাজ বেগম পুলিশের শরণাপন্ন হোন এবং তার ভাই নিউ মার্কেট থানায় প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। এরপর ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে উল্লেখিত ৫ জনকে গ্রেফতার করেন।
তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদে ডিবি পুলিশ জানতে পারে, ডাক্তার যিনি তিনি নিজেও একজন প্রতারক। সি অ্যান্ডএফ এজেন্ট বলেও কেউ নেই। ক্লিনিক স্থাপনের পুরো প্রক্রিয়াই জালিয়াতি। তারা বাংলাদেশে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে দেশের বিত্তবান ও সম্পদশালীদের টার্গেট করে ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায় করে আসছিল।

তিনি বলেন, এর আগে ভুয়া ব্রিজের ব্যবসার কথা বলে একটি নাইজেরিয়ান চক্র প্রতারণার দায়ে গ্রেফতার হয়েছিল। এ দুটি চক্রই অভিন্ন। এই চক্রে ১৫/২০ জন জড়িত। তাদের অধিকাংশই অন অ্যারাইভেল ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলো। তবে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও তারা অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করে প্রতারণামূলক ও জালিয়াতি করে আসছিল।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: