সর্বশেষ আপডেট : ৪২ মিনিট ৪০ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দল দেখবো না, অপরাধীর বিচার হবেই

hasina-khadija-120161006203513নিউজ ডেস্ক:
সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এখানে কোনো দলীয় কোন্দল ছিল না বা দল হিসেবে কেউ মারতে যায়নি। কে কোন দল করে আমি সেটা দেখি না, দেখবো না, যে অপরাধী সে অপরাধী। সেই অপরাধীর বিচার হবেই।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এসময় সভাপতিত্ব করছিলেন।

কিছু পত্রিকা এবং কিছু লোক এটাকে দলীয় ব্যাপার হিসেবে প্রচার করার চেষ্টা করছে অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দলীয় হিসেবে আমরা তাদেরকে প্রশ্রয় দিচ্ছি না। এ ব্যাপারে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমার প্রশ্ন তারা যখন জীবন্ত মানুষের গায়ে পেট্রল ঢেলে দিয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারলো সেই কথা কি ভুলে যাচ্ছে? আমি যদি বলি, এভাবে প্রকাশ্যে মানুষ হত্যা করা- এটাতো এরাই শিখিয়েছে। বিএনপি জামায়াতই শিখিয়েছে। এরাই পথ দেখিয়েছে। নৃশংসতা করে করে মানুষের ভেতরে একটা পশুত্বের জন্ম দিয়ে দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে ভারত পাকিস্তান উত্তেজনা প্রসঙ্গেও কথা বলেন। তিনি ভারত ও পাকিস্তান উভয় দেশকে সংযত আচরণ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, যে কোনো দেশই হোক, কোনো দেশে সংঘাত হলে তার জন্য আমরা বাংলাদেশও ক্ষতিগ্রস্ত হবো। তারা যেন কোনো রকমের উত্তেজনা সৃষ্টি না করে যাতে দক্ষিণ এশিয়ার মানুষগুলো কষ্টে পড়ে।

প্রধানমন্ত্রী খাদিজার ওপর হামলা প্রসঙ্গে এনে বলেন, মাঝে মাঝে কিছু ঘটনা ঘটে এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। যেমন আমরা দেখলাম সিলেটে একটি মেয়েকে কিভাবে কোপানো হলো। আমার অবাক লাগে যখন এই ছবিটা দেখি, মানুষ দাঁড়িয়ে আছে, দেখছে, ভিডিও তুলছে কিন্তু মেয়েটাকে বাঁচাতে কেউ গেল না। কেন এই মানবিক মূল্যবোধগুলো হারিয়ে গেল, কেন কেউ সেখানে গেল না- সেটাই আমার প্রশ্ন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ এর বিরুদ্ধে আমরা কঠোর অবস্থান নিয়েছি। কাজেই যারা জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িত তাদেরও শাস্তি হচ্ছে এবং হবে। সেইসঙ্গে দেশবাসীকে অনুরোধ করবো, তারা যেন তাদের ছেলেমেয়েদের খোঁজ খবর রাখেন। শিক্ষকরা যেন তাদের প্রত্যেকটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্ররা কোথায় যাচ্ছে না যাচ্ছে, কার সাথে মিশছে সকল খোঁজ-খবর রাখতে হবে।

মসজিদের ইমামদের প্রতি আহ্বান, ইসলাম শান্তির ধর্ম, সন্ত্রাসের ধর্ম না, জঙ্গিবাদের ধর্ম না, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ করা এটা ইসলাম কখনো বলেনি। কিন্তু যারা ধর্মের নাম নিয়ে মানুষ খুন করছে তারা আমাদের পবিত্র ধর্ম ইসলামকেই হেয় করছে। ইসলামের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। মুসলমানদের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলছে। আল্লাহ শেষ বিচার করবেন। তিনি শাস্তি দেবেন। আল্লাহ তো কাউকে শাস্তি দেবার দায়িত্ব দেননি। তাহলে কেন এভাবে মানুষকে খুন করা, শাস্তি দেয়া? এই পথ পরিহার করে সকলে যেন মানবতার পথে আসে, শান্তির পথে আসে সে আহ্বানই জানাবো। জাগো নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: