সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বনাথে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ বিতরণের অভিযোগ

2012-11-26-14-05-43-50b377376c86d-toxic-cough_syrup__300-1বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:
সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আগত রোগীদের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিতরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওষুধের গায়ে মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ রোগীদের অভিভাবকদের কাছে ধরা পড়লে নীরবে সমাধান করে দেন কর্মকর্তা। সেই সাথে কমপ্লেক্সে আগত রোগীদের চিকিস্যা অবহেলারও অভিযোগ ওঠেছে। সঠিক চিকিৎস্যা না পেয়ে অভিভাবকরা রোগীদের নিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। তবে কর্তব্যরত ডাক্তার বলছেন তাদের সাধ্য অনুযায়ি রোগীদের চিকিৎস্যা দিচ্ছেন।

এক শিশু রোগীর অভিভাবক আব্দুল জলিল জানান, তার বাড়ি কমপ্লেক্সের পার্শ্ববর্তি কাদিপুর গ্রামে। গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ‘রাফি’ নামের তার ৬বছরের শিশু পুত্রকে নিয়ে চিকিৎস্যার জন্য যান। ডাক্তার পরিক্ষা করে স্লীপে একটি সিরাপ লিখেন। ওই স্লীপ নিয়ে ওষুধ বিতরণ কক্ষে গেলে সেখান থেকে একটি সিরাপ তার হাতে দেয়া হয়। ওই সিরাপটি আব্দুল জলিল বাড়িতে নিয়ে দেখতে পারেন প্রায় তিন মাস পূর্বে এই সিরাপের মেয়াদ শেষ হয়েছে। গতকাল বুধবার ওই মেয়াদোত্তীর্ণ সিরাপটি তিনি স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কাছে নিয়ে গেলে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সিরাপ রেখে তাকে বিদায় করে দেন। তেমনি করে আজিজনগর গ্রামের লোকমান মিয়া চিকিৎস্যার জন্য তার বাতিজাকে নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। একইভাবে ডাক্তার পরিক্ষা করে মেয়াদোত্তীর্ণ একটি এমোক্সিসিলিন সিরাপ দেন। তার কাছ থেকেও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সিরাপটি রেখে দেন। তবে সন্তুষজনক কোনো জবাব দেননি।

এছাড়াও বুধবার বিকেল আড়াইটার সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে দেখা যায় সু-চিকিৎস্যা না পেয়ে একজন মহিলা তার শিশুপুত্রকে নিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। তিনি উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের রুনা বেগম (৩০)। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেটের সামনে তার সাথে কথা হলে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি বলেন, গত রোববার তার শিশুপুত্র মাহিন (৫)কে নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ভর্তির পর থেকে সময় মতো কোনো ডাক্তার পাওয়া যায়না। একদিন একজন ডাক্তার তার ছেলের জন্য ওষুধ লিখেছেন। কিন্তু অপর আরেকজন ডাক্তার গিয়ে বলেন ওই ওষুধ তার ছেলের রোগের জন্য নয়। তাই তিনি এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎস্যা সেবায় আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ও সঠিক চিকিৎস্যা না পেয়ে চলে যাচ্ছেন বলে দুঃখ প্রকাশ করেন।

এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মকর্তা ডাক্তার বিভাষ চন্দ্র মানি’র সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: