সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘দলিত জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ে কাজ করতে হবে’

1475406148নিউজ ডেস্ক: নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, ‘সমাজের পিছিয়ে পড়া হরিজন ও দলিত জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায় ও তাদের বৈষম্য নিরসনে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘দলিত হরিজনসহ পিছিয়ে পড়া মানুষের পুনর্বাসন ও উন্নত জীবনমান নিশ্চিত করার জন্য আমাদের কাজ করতে হবে।’

নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান রবিবার দুপুরে রাজধানী সিরডাপ ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে রিচার্স এন্ড ডেভেলপমেন্ট কালেক্টিভ (আরডিসি) ও নাগরিক উদ্যোগের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

‘বাংলাদেশে দলিত বা হরিজন সম্প্রদায়ের মানবাধিকার নিয়ে জরিপ ও এ বিষয়ে সমস্যাবলী বিশ্লেষণ শীর্ষক জাতীয় আলোচনা’ উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানটি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও খ্রিস্টান এইডে’র সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সমাজ কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি। এতে নাজমুল হক প্রধান এমপি, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য মেঘনা গুহ ঠাকুরতা, বাংলাদেশে ইউ ডেলিগেশনের টিম লিডার- গর্ভন্যান্স-এর কাউন্সিলর ড. অ্যানা লিক্সি প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

আরডিসি-এর চেয়ারপার্সন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মেসবাহ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইআইডিএইচআর প্রকল্পের প্রোগ্রাম ম্যানেজার শিরিন খান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মনিরুল ইসলাম খান। প্যানেল ও মুক্ত আলোচনা পরিচালনা করেন নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষক, শ্রমিক, কামার, হরিজন, বেদে, কুমারসহ সব মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে ১৯৭১ সারে দেশ স্বাধীন করেছেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘হরিজন সম্প্রদায়ের মধ্যে দুইজন মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় শাহাদাৎ বরণ করেছেন।’

সরকার সমাজের সকল পর্যায়ে মানুষের অধিকার নিশ্চিত ও বৈষম্য নিরসনে কাজ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে শাজাহান খান আরও বলেন, ‘দলিত সম্প্রদায়সহ সকল ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করতে হবে। এজন্য দরকার সামাজিক আন্দোলন। কার্যকরভাবে এই আন্দোলন হলে সকলেই সচেতন হবেন।’

এতে বলা হয়, বাংলাদেশে দলিত জনগোষ্ঠীর সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে ধারণার জন্য ২০১৬ সালের মাঝামাঝি বাংলাদেশের ৮টি বিভাগের ১০টি জেলার ২৭টি উপজেলার ৩১টি সম্প্রদায়ের ৪৫৮টি পরিবারের মধ্যে একটি জরিপ এবং চাহিদা বিশ্লেষণ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

‘দলিত জনগোষ্ঠীর অধিক অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়নের মাধ্যমে তাদের দৃশ্যমান মানবাধিকার এবং সেবাপ্রাপ্তির অধিকারসহ নিশ্চিতকরণ প্রকল্পে’র অধীনে এই কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, দলিত জনগোষ্ঠীর বেশিরভাগ মানুষই স্বল্প শিক্ষিত। ৩৫% পরিবারের সদস্য লিখতে ও পড়তে পারেন না। শুধুমাত্র ৩৫% প্রাথমিক শিক্ষা এবং ১৯% মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেছেন। ৭৩% পরিবারের দলিত নারীরা গৃহিণী এবং অবশিষ্ট সকলে দিনমজুর অথবা কোন নিচু পেশার সাথে যুক্ত। -বাসস।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: